০৬:৩২ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৬ জুলাই ২০২৪, ১ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

জবিসাস কার্যালয়ের সিলগালা তালা ভাংচুরের ঘটনায় তদন্তের দাবি

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের সাংবাদিক সমিতির (জবিসাস) কার্যালয়ের সিলগালা তালা ভাঙচুরের ঘটনায় তদন্ত পূর্বক কঠোর শাস্তির দাবি জানিয়েছেন সংগঠনটির নেতৃবৃন্দ।

বুধবার (১১ অক্টোবর) জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতির সভাপতি মাহমুদুল হাসান তানভীর ও সাধারণ সম্পাদক মামুন শেখ এক যৌথ বিবৃতিতে এ দাবি জানান।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, গত ১০ অক্টোবর অবৈধ আহ্বায়ক কমিটি প্রশাসনের নির্দেশ অমান্য করে সিলগালা করা তালা ভেঙে সমিতির কক্ষে প্রবেশ করে যা বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখানোর শামিল। এ ঘটনায় জড়িতদের বিরুদ্ধে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন থেকে তদন্ত কমিটি গঠন করে দ্রুত সময়ের মধ্যে ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে। অন্যথায় একটি গ্রুপের চরম উদ্ধত আচরণের জন্য বিশৃঙ্খল পরিবেশ তৈরি হলে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনকে এই দায়ভার নিতে হবে।

বিজ্ঞপ্তিতে আরো বলেন, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতির গঠনতন্ত্র মোতাবেক বিগত ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৩ ইং তারিখে মাননীয় উপাচার্য মহোদয়সহ সকল উপদেষ্টা এবং সাংবাদিক সমিতির সকল সদস্যের উপস্থিতিতে সমিতির ২০২৩-২৪ মেয়াদের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। কিন্তু মেয়াদের ৩ মাস পূর্ণ হওয়ার আগেই ভোটে পরাজিত কয়েকজন প্রার্থী ও একটি কুচক্রী মহলের ইন্ধনে গত ১১ জুন কয়েকজন সদস্য গঠনতন্ত্র লঙ্ঘন করে তথাকথিত একটি আহবায়ক কমিটি ঘোষণা করে, যা সম্পূর্ণ অবৈধ। এরপর অবৈধ কমিটি সমিতির কার্যালয় দখল ও বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির চেষ্টা করলে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন ১৯ জুন সমিতির কার্যালয় সিলগালা করে দেয়।

এবিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক ড. মোস্তফা কামাল বলেন, এবিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন থেকে একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে। কমিটি সাংবাদিক সমিতির সকল বিষয় দেখবে।

ইবির বঙ্গবন্ধু হলের পকেট গেট বন্ধ করে দিল প্রশাসন 

জবিসাস কার্যালয়ের সিলগালা তালা ভাংচুরের ঘটনায় তদন্তের দাবি

আপডেট সময় : ০৫:৪১:৫৪ অপরাহ্ন, বুধবার, ১১ অক্টোবর ২০২৩

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের সাংবাদিক সমিতির (জবিসাস) কার্যালয়ের সিলগালা তালা ভাঙচুরের ঘটনায় তদন্ত পূর্বক কঠোর শাস্তির দাবি জানিয়েছেন সংগঠনটির নেতৃবৃন্দ।

বুধবার (১১ অক্টোবর) জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতির সভাপতি মাহমুদুল হাসান তানভীর ও সাধারণ সম্পাদক মামুন শেখ এক যৌথ বিবৃতিতে এ দাবি জানান।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, গত ১০ অক্টোবর অবৈধ আহ্বায়ক কমিটি প্রশাসনের নির্দেশ অমান্য করে সিলগালা করা তালা ভেঙে সমিতির কক্ষে প্রবেশ করে যা বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখানোর শামিল। এ ঘটনায় জড়িতদের বিরুদ্ধে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন থেকে তদন্ত কমিটি গঠন করে দ্রুত সময়ের মধ্যে ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে। অন্যথায় একটি গ্রুপের চরম উদ্ধত আচরণের জন্য বিশৃঙ্খল পরিবেশ তৈরি হলে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনকে এই দায়ভার নিতে হবে।

বিজ্ঞপ্তিতে আরো বলেন, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতির গঠনতন্ত্র মোতাবেক বিগত ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৩ ইং তারিখে মাননীয় উপাচার্য মহোদয়সহ সকল উপদেষ্টা এবং সাংবাদিক সমিতির সকল সদস্যের উপস্থিতিতে সমিতির ২০২৩-২৪ মেয়াদের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। কিন্তু মেয়াদের ৩ মাস পূর্ণ হওয়ার আগেই ভোটে পরাজিত কয়েকজন প্রার্থী ও একটি কুচক্রী মহলের ইন্ধনে গত ১১ জুন কয়েকজন সদস্য গঠনতন্ত্র লঙ্ঘন করে তথাকথিত একটি আহবায়ক কমিটি ঘোষণা করে, যা সম্পূর্ণ অবৈধ। এরপর অবৈধ কমিটি সমিতির কার্যালয় দখল ও বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির চেষ্টা করলে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন ১৯ জুন সমিতির কার্যালয় সিলগালা করে দেয়।

এবিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক ড. মোস্তফা কামাল বলেন, এবিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন থেকে একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে। কমিটি সাংবাদিক সমিতির সকল বিষয় দেখবে।