১২:১৪ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১৭ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

ইবিতে ইয়ূথ এন্ডিং হাঙ্গারের কর্মশালা অনুষ্ঠিত

ইয়ূথ এন্ডিং হাঙ্গার বাংলাদেশ ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় (ইবি) শাখার আয়োজনে কর্মশালা ও ফলোআপ মিটিং অনুষ্ঠিত হয়েছে। মঙ্গলবার (২৮ নভেম্বর) দুপুর ১২ টার বিশ্ববিদ্যালয়ের সাদ্দাম হোসেন হলের গেস্ট রুমে এটি অনুষ্ঠিত হয়।
অনুষ্ঠানে সংগঠনটির ইবি শাখার সমন্বয়কারী মোতালেব বিশ্বাস লিখনের সভাপতিত্বে অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ইয়ূথ এন্ডিং হাঙ্গার বাংলাদেশ যশোর অঞ্চলের একাউন্ট অফিসার অধীশ দাস, যশোর আঞ্চলিক সমন্বয়কারী ফিরোজ হোসেন পলাশ, যুগ্ম সমন্বয়কারী মাহমুদ ও যশোর অঞ্চলের সাবেক সমন্বয়কারী দিবা রাত্রি।
এছাড়াও ইবি শাখা ইয়ূথের ফয়সাল, মানজির আহসান, রায়হান, রজনী, মিজান, সবুজ ও তামান্না সহ প্রায় ২৫ জন সদস্য কর্মশালায় উপস্থিত ছিলেন।
কর্মশালায় ইয়ূথ এন্ডিং হাঙ্গার বাংলাদেশের কার্যক্রম সম্পর্কে অবহিত ও ধারণা প্রদান করেন যশোর অঞ্চলের আঞ্চলিক সমন্বয়কারী ফিরোজ হোসেন পলাশ। সেই সাথে বাংলাদেশের ইয়ূথ হিসেবে একজন ইয়ূথের কি কি সামাজিক দায়বদ্ধতা আছে সেগুলো তুলে ধরা হয় এবং কিভাবে সমাজের পিছিয়ে পড়া জনগোষ্ঠীর জন্য কাজ করা যায় নিজ নিজ জায়গায় থেকে সে বিষয়েও আলোকপাত করা হয়। এছাড়া পরবর্তীতে ক্যাম্পাসে কি কি সামাজিক দায়বদ্ধতামূলক কাজ করা যায় সেগুলো নিয়ে আলোচনাসহ বিভিন্ন বিষয় তুলে ধরা হয়।
এ বিষয়ে ইয়ূথ এন্ডিং হাঙ্গার বাংলাদেশ ইবি শাখার সমন্বয়কারী মোতালেব বিশ্বাস লিখন বলেন, আমরা ইয়ূথ হিসেবে প্রতিজ্ঞা করছি সামাজিক দায়বদ্ধতামূলক অনেক কাজে আমরা ইবি শখার সদস্যরা কাজ করব এবং কিভাবে স্মার্ট বাংলাদেশ গড়ে তোলা যায় সেগুলো নিয়ে আমরা সচেতন হওয়ার জন্য প্রচারণামূলক কাজ করব। এছাড়াও পিছিয়ে পড়া অসহায় জনগোষ্ঠীর জন্য কাজ করব।
প্রসঙ্গত, ‘ইয়ূথ এন্ডিং হাঙ্গার-বাংলাদেশ’ আন্তর্জাতিক স্বেচ্ছাব্রতী সংস্থা ‘দি হাঙ্গার প্রজেক্ট’র অনুপ্রেরণায় সৃষ্ট একটি ছাত্র সংগঠন। শিক্ষার্থীদের নেতৃত্বেই এ সংগঠন পরিচালিত। এ সংস্থার প্রতিটি সদস্য নিজের উন্নত ভবিষ্যৎ নিজে গড়তে এবং অন্যকে সহায়তা করতে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ। ক্ষুধামুক্ত আত্মনির্ভরশীল বাংলাদেশ সৃষ্টির প্রত্যাশার লক্ষ্যে এটি পরিচালিত। ইয়ুথ এন্ডিং হাঙ্গার-বাংলাদেশ ১৯৯৫ সালে যাত্রা শুরুর পর থেকে এখন দেশের অন্যতম একটি স্বেচ্ছাব্রতী আন্দোলনে রূপ নিয়েছে।

অব্যাহত অভিযানেও চলছে অবৈধ ক্লিনিক হাসপাতাল-ডায়াগনস্টিক সেন্টার

ইবিতে ইয়ূথ এন্ডিং হাঙ্গারের কর্মশালা অনুষ্ঠিত

আপডেট সময় : ০৭:০৪:১৩ অপরাহ্ন, বুধবার, ২৯ নভেম্বর ২০২৩
ইয়ূথ এন্ডিং হাঙ্গার বাংলাদেশ ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় (ইবি) শাখার আয়োজনে কর্মশালা ও ফলোআপ মিটিং অনুষ্ঠিত হয়েছে। মঙ্গলবার (২৮ নভেম্বর) দুপুর ১২ টার বিশ্ববিদ্যালয়ের সাদ্দাম হোসেন হলের গেস্ট রুমে এটি অনুষ্ঠিত হয়।
অনুষ্ঠানে সংগঠনটির ইবি শাখার সমন্বয়কারী মোতালেব বিশ্বাস লিখনের সভাপতিত্বে অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ইয়ূথ এন্ডিং হাঙ্গার বাংলাদেশ যশোর অঞ্চলের একাউন্ট অফিসার অধীশ দাস, যশোর আঞ্চলিক সমন্বয়কারী ফিরোজ হোসেন পলাশ, যুগ্ম সমন্বয়কারী মাহমুদ ও যশোর অঞ্চলের সাবেক সমন্বয়কারী দিবা রাত্রি।
এছাড়াও ইবি শাখা ইয়ূথের ফয়সাল, মানজির আহসান, রায়হান, রজনী, মিজান, সবুজ ও তামান্না সহ প্রায় ২৫ জন সদস্য কর্মশালায় উপস্থিত ছিলেন।
কর্মশালায় ইয়ূথ এন্ডিং হাঙ্গার বাংলাদেশের কার্যক্রম সম্পর্কে অবহিত ও ধারণা প্রদান করেন যশোর অঞ্চলের আঞ্চলিক সমন্বয়কারী ফিরোজ হোসেন পলাশ। সেই সাথে বাংলাদেশের ইয়ূথ হিসেবে একজন ইয়ূথের কি কি সামাজিক দায়বদ্ধতা আছে সেগুলো তুলে ধরা হয় এবং কিভাবে সমাজের পিছিয়ে পড়া জনগোষ্ঠীর জন্য কাজ করা যায় নিজ নিজ জায়গায় থেকে সে বিষয়েও আলোকপাত করা হয়। এছাড়া পরবর্তীতে ক্যাম্পাসে কি কি সামাজিক দায়বদ্ধতামূলক কাজ করা যায় সেগুলো নিয়ে আলোচনাসহ বিভিন্ন বিষয় তুলে ধরা হয়।
এ বিষয়ে ইয়ূথ এন্ডিং হাঙ্গার বাংলাদেশ ইবি শাখার সমন্বয়কারী মোতালেব বিশ্বাস লিখন বলেন, আমরা ইয়ূথ হিসেবে প্রতিজ্ঞা করছি সামাজিক দায়বদ্ধতামূলক অনেক কাজে আমরা ইবি শখার সদস্যরা কাজ করব এবং কিভাবে স্মার্ট বাংলাদেশ গড়ে তোলা যায় সেগুলো নিয়ে আমরা সচেতন হওয়ার জন্য প্রচারণামূলক কাজ করব। এছাড়াও পিছিয়ে পড়া অসহায় জনগোষ্ঠীর জন্য কাজ করব।
প্রসঙ্গত, ‘ইয়ূথ এন্ডিং হাঙ্গার-বাংলাদেশ’ আন্তর্জাতিক স্বেচ্ছাব্রতী সংস্থা ‘দি হাঙ্গার প্রজেক্ট’র অনুপ্রেরণায় সৃষ্ট একটি ছাত্র সংগঠন। শিক্ষার্থীদের নেতৃত্বেই এ সংগঠন পরিচালিত। এ সংস্থার প্রতিটি সদস্য নিজের উন্নত ভবিষ্যৎ নিজে গড়তে এবং অন্যকে সহায়তা করতে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ। ক্ষুধামুক্ত আত্মনির্ভরশীল বাংলাদেশ সৃষ্টির প্রত্যাশার লক্ষ্যে এটি পরিচালিত। ইয়ুথ এন্ডিং হাঙ্গার-বাংলাদেশ ১৯৯৫ সালে যাত্রা শুরুর পর থেকে এখন দেশের অন্যতম একটি স্বেচ্ছাব্রতী আন্দোলনে রূপ নিয়েছে।