০৬:৫১ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২২ এপ্রিল ২০২৪, ৯ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

শ্রীপুরে এক বাইক চুরির তদন্তে মিলল ৯ টি,গ্রেপ্তার-৫  

গাজীপুরের শ্রীপুরে একটি মোটরসাইকেল  চুরির ঘটনা তদন্তে নেমে চোরাই নয়টি  মোটরসাইকেল উদ্ধারের কথা জানিয়েছে শ্রীপুর থানা পুলিশ। এসব ঘটনায় ৫ জনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। পুলিশের ভাষ্য, তারা আন্তঃজেলা বাইক চোর চক্রের সদস্য। বুধবার দুপুর ১২টায় শ্রীপুর থানায় এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান গাজীপুর জেলা পুলিশের কালিয়াকৈর সার্কেলের জ্যেষ্ঠ সহকারী পুলিশ সুপার মো আজমীর হোসেন।
এ সময় শ্রীপুর থানার ওসি মো. শাহ্ জামান, পরিদর্শক (তদন্ত) মো. সাখাওয়াত হোসেন, মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই মো. এনায়েত কবিরসহ সংশ্লিষ্টরা উপস্থিত ছিলেন। গ্রেপ্তাররা হলেন- কিশোরগঞ্জের সদর উপজেলার ফিসারী রোড় এলাকার শিপন হোসেন (৩০), ময়মনসিংহের নান্দাইল উপজেলার আলীহরগাতি গ্রামের দুরন্ত খান (৩০), একই উপজেলার বৈতাগৈর গ্রামের রঞ্জিত সরকার (২৯) ও সাগর (২১) এবং নেত্রকোণার পশ্চিম বিলাশপুর গ্রামের রিপন মিয়া (২১)।
সহকারী পুলিশ সুপার আজমীর বলেন, ১০ মার্চ রাতে দিকে শ্রীপুর পৌরসভার চন্নাপাড়া গ্রামে ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কের পাশ থেকে এস এম পলাশের মালিকানাধীন একটি মোটরসাইকেল চুরির ঘটনা ঘটে।এ ঘটনায় থানায় মামলার তদন্তে নামে শ্রীপুর থানা পুলিশ। তদন্তে নেমেই পুলিশ মোটরসাইকেল চোর চক্রের বড় এক সিন্ডিকেটের সন্ধান পায়। পরে শ্রীপুর পৌর এলাকার চন্নাপাড়া থেকে দুরন্ত খান ও রঞ্চিত সরকারকে গ্রেপ্তার করা হয়।তিনি বলেন, পরে তাদের জিজ্ঞাসাবাদ করে মাওনা এলাকা থেকে শিপন হোসেনকে গ্রেপ্তার করে শ্রীপুর, ময়মনসিংহের গফরগাঁও, নান্দাইল, ঈশ্বরগঞ্জ, কিশোরগঞ্জের সদর, করিমগঞ্জ ও ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সরাইল উপজেলায় অভিযান চালানো হয়।
এ সময় তাদের দেওয়া তথ্য মতে, ৯টি মোটরসাইকেল উদ্ধার এবং রিপন মিয়া ও সাগরকে গ্রেপ্তার করা হয়।সহকারী পুলিশ সুপার বলেন, গ্রেপ্তাররা গাজীপুর, টাঙ্গাইল ও ময়মনসিংহসহ বিভিন্ন জায়গা থেকে মোটরসাইকেল চুরি করে কিশোরগঞ্জ, ব্রাহ্মণবাড়িয়া, কুমিল্লা, শেরপুর এবং  জামালপুরসহ বিভিন্ন জায়গাতে বিক্রি করে থাকে।এরা সংঘবদ্ধ চোর চক্র। শিপন মিয়ার বিরুদ্ধে ছয়টি মামলা রয়েছে। তিনি জানিয়েছেন, ৫-৬ বছর যাবৎ মোটরসাইকেল চুরির সঙ্গে সম্পৃক্ত।শ্রীপুর থানার ওসি শাহজামান বলেন, গ্রেপ্তারদের বুধবার দুপুরে আদালতে পাঠানো হয়েছে। এ বিষয়ে আরও তদন্ত করা হচ্ছে।
জনপ্রিয় সংবাদ

শ্রীপুরে এক বাইক চুরির তদন্তে মিলল ৯ টি,গ্রেপ্তার-৫  

আপডেট সময় : ০৫:৫০:৪৪ অপরাহ্ন, বুধবার, ২০ মার্চ ২০২৪
গাজীপুরের শ্রীপুরে একটি মোটরসাইকেল  চুরির ঘটনা তদন্তে নেমে চোরাই নয়টি  মোটরসাইকেল উদ্ধারের কথা জানিয়েছে শ্রীপুর থানা পুলিশ। এসব ঘটনায় ৫ জনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। পুলিশের ভাষ্য, তারা আন্তঃজেলা বাইক চোর চক্রের সদস্য। বুধবার দুপুর ১২টায় শ্রীপুর থানায় এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান গাজীপুর জেলা পুলিশের কালিয়াকৈর সার্কেলের জ্যেষ্ঠ সহকারী পুলিশ সুপার মো আজমীর হোসেন।
এ সময় শ্রীপুর থানার ওসি মো. শাহ্ জামান, পরিদর্শক (তদন্ত) মো. সাখাওয়াত হোসেন, মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই মো. এনায়েত কবিরসহ সংশ্লিষ্টরা উপস্থিত ছিলেন। গ্রেপ্তাররা হলেন- কিশোরগঞ্জের সদর উপজেলার ফিসারী রোড় এলাকার শিপন হোসেন (৩০), ময়মনসিংহের নান্দাইল উপজেলার আলীহরগাতি গ্রামের দুরন্ত খান (৩০), একই উপজেলার বৈতাগৈর গ্রামের রঞ্জিত সরকার (২৯) ও সাগর (২১) এবং নেত্রকোণার পশ্চিম বিলাশপুর গ্রামের রিপন মিয়া (২১)।
সহকারী পুলিশ সুপার আজমীর বলেন, ১০ মার্চ রাতে দিকে শ্রীপুর পৌরসভার চন্নাপাড়া গ্রামে ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কের পাশ থেকে এস এম পলাশের মালিকানাধীন একটি মোটরসাইকেল চুরির ঘটনা ঘটে।এ ঘটনায় থানায় মামলার তদন্তে নামে শ্রীপুর থানা পুলিশ। তদন্তে নেমেই পুলিশ মোটরসাইকেল চোর চক্রের বড় এক সিন্ডিকেটের সন্ধান পায়। পরে শ্রীপুর পৌর এলাকার চন্নাপাড়া থেকে দুরন্ত খান ও রঞ্চিত সরকারকে গ্রেপ্তার করা হয়।তিনি বলেন, পরে তাদের জিজ্ঞাসাবাদ করে মাওনা এলাকা থেকে শিপন হোসেনকে গ্রেপ্তার করে শ্রীপুর, ময়মনসিংহের গফরগাঁও, নান্দাইল, ঈশ্বরগঞ্জ, কিশোরগঞ্জের সদর, করিমগঞ্জ ও ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সরাইল উপজেলায় অভিযান চালানো হয়।
এ সময় তাদের দেওয়া তথ্য মতে, ৯টি মোটরসাইকেল উদ্ধার এবং রিপন মিয়া ও সাগরকে গ্রেপ্তার করা হয়।সহকারী পুলিশ সুপার বলেন, গ্রেপ্তাররা গাজীপুর, টাঙ্গাইল ও ময়মনসিংহসহ বিভিন্ন জায়গা থেকে মোটরসাইকেল চুরি করে কিশোরগঞ্জ, ব্রাহ্মণবাড়িয়া, কুমিল্লা, শেরপুর এবং  জামালপুরসহ বিভিন্ন জায়গাতে বিক্রি করে থাকে।এরা সংঘবদ্ধ চোর চক্র। শিপন মিয়ার বিরুদ্ধে ছয়টি মামলা রয়েছে। তিনি জানিয়েছেন, ৫-৬ বছর যাবৎ মোটরসাইকেল চুরির সঙ্গে সম্পৃক্ত।শ্রীপুর থানার ওসি শাহজামান বলেন, গ্রেপ্তারদের বুধবার দুপুরে আদালতে পাঠানো হয়েছে। এ বিষয়ে আরও তদন্ত করা হচ্ছে।