০৫:৫৯ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২২ এপ্রিল ২০২৪, ৮ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

দুর্গাপুরে আত্রাখালী নদীর পাড়ের গাছে ঝুলছিল কৃষকের মরদেহ

নেত্রকোনার দুর্গাপুর উপজেলার সদর ইউনিয়নের চন্দ্রকোনা গ্রামের আত্রাখালী নদীর পাড়ের একটি মেরাগাছে  ঝুলন্ত অবস্থায় আব্দুল রহিম (৩০) নামের এক কৃষকের মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। তবে পরিবারের দাবী এটি হত্যা। রবিবার (৩১ মার্চ) সকালে মরদেহটি উদ্ধার করা হয়। নিহত আব্দুল রহিম ওই গ্রামের মৃত মোহাম্মদ আলীর ছেলে। সে পেশায় কৃষক।
স্থানীয় ও পরিবার সূত্রে জানা গেছে,গতকাল শনিবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে রহিম তার কৃষি জমিতে পানি দেওয়ার জন্য বাড়ি থেকে বের হয়। এরপর রাতে আর বাড়ি ফেরেনি। এরপর আজ রবিবার সকালে রহিমকে খোঁজতে বের হয় তার মা হালেমা খাতুন। খোঁজার পথে নদীর পাড়ের একটি মেরাগাছে  ছেলে রহিমের ঝুলন্ত দেহ দেখে হালেমা চিৎকার করে । এ সময় তাঁর ডাক চিৎকারে আসপাশের লোকজন এসে পুলিশকে খবর দেয়। পরে পুলিশ ঘটনাস্থল গিয়ে মরদেহ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে ।
নিহত আব্দুল রহিমের চাচা আহমদ আলী বলেন,”আমার ভাই বউ (রহিমের মা) সকালে বাড়ি থেকে খোঁজতে বের হয়ে নদীর পাড় দিয়ে যাওয়ার সময় একটা মেরা গাছে দেখে রহিম ঝুলে আছে । নিজে সে আত্মহত্যা করছে এমন কিছু লক্ষণ তার শরীরের মাঝে ভাসছে না। যে কেউ তারে মেরে ঝুলাইয়া রাখছে আমাদের ধারনা।
এ ব্যাপারে দুর্গাপুর সার্কেলের এএসপি মোহাম্মদ আক্কাস আলী জানান,লাশ সুরতহাল করে মর্গে পাঠানো হবে। ময়নাতদন্তের পরেই বলা যাবে এটি হত্যা নাকি আত্মহত্যা।
জনপ্রিয় সংবাদ

দুর্গাপুরে আত্রাখালী নদীর পাড়ের গাছে ঝুলছিল কৃষকের মরদেহ

আপডেট সময় : ০৩:২৫:৫০ অপরাহ্ন, রবিবার, ৩১ মার্চ ২০২৪
নেত্রকোনার দুর্গাপুর উপজেলার সদর ইউনিয়নের চন্দ্রকোনা গ্রামের আত্রাখালী নদীর পাড়ের একটি মেরাগাছে  ঝুলন্ত অবস্থায় আব্দুল রহিম (৩০) নামের এক কৃষকের মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। তবে পরিবারের দাবী এটি হত্যা। রবিবার (৩১ মার্চ) সকালে মরদেহটি উদ্ধার করা হয়। নিহত আব্দুল রহিম ওই গ্রামের মৃত মোহাম্মদ আলীর ছেলে। সে পেশায় কৃষক।
স্থানীয় ও পরিবার সূত্রে জানা গেছে,গতকাল শনিবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে রহিম তার কৃষি জমিতে পানি দেওয়ার জন্য বাড়ি থেকে বের হয়। এরপর রাতে আর বাড়ি ফেরেনি। এরপর আজ রবিবার সকালে রহিমকে খোঁজতে বের হয় তার মা হালেমা খাতুন। খোঁজার পথে নদীর পাড়ের একটি মেরাগাছে  ছেলে রহিমের ঝুলন্ত দেহ দেখে হালেমা চিৎকার করে । এ সময় তাঁর ডাক চিৎকারে আসপাশের লোকজন এসে পুলিশকে খবর দেয়। পরে পুলিশ ঘটনাস্থল গিয়ে মরদেহ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে ।
নিহত আব্দুল রহিমের চাচা আহমদ আলী বলেন,”আমার ভাই বউ (রহিমের মা) সকালে বাড়ি থেকে খোঁজতে বের হয়ে নদীর পাড় দিয়ে যাওয়ার সময় একটা মেরা গাছে দেখে রহিম ঝুলে আছে । নিজে সে আত্মহত্যা করছে এমন কিছু লক্ষণ তার শরীরের মাঝে ভাসছে না। যে কেউ তারে মেরে ঝুলাইয়া রাখছে আমাদের ধারনা।
এ ব্যাপারে দুর্গাপুর সার্কেলের এএসপি মোহাম্মদ আক্কাস আলী জানান,লাশ সুরতহাল করে মর্গে পাঠানো হবে। ময়নাতদন্তের পরেই বলা যাবে এটি হত্যা নাকি আত্মহত্যা।