০৬:২২ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২২ এপ্রিল ২০২৪, ৯ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

যশোরে দুই সাংবাদিকের ওপর  পুলিশের হামলা

যশোর ২৫০ শয্যা  জেনারেল হাসপাতালে সংবাদ সংগ্রহকালে সময় সংবাদের প্রতিবেদক জুয়েল মৃধা ও চিত্র সাংবাদিক আবুল কালাম আজাদের উপর হামলা চালিয়েছে পুলিশ। এসময় পুলিশের দুই সদস্য ক্যামেরা ভাঙচুরের চেষ্টা চালালে ধস্তাধস্তি হয়। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে যান সাংবাদিক নেতৃবৃন্দ ও পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা। এসময় পুলিশ কর্মকর্তারা তাদের দুই সদস্যকে ক্লোজড করে নিয়ে যান এবং বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থা গ্রহণের আশ্বাস দেন।

 

প্রতিবেদক জুয়েল মৃধা জানান, বেনাপোল সীমান্তে ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনী বিএসএফের গুলিতে আহত দুই বাংলাদেশি নাগরিকের ছবি সংগ্রহ করতে হাসপাতালে যান। এসময় আহত ওই দুই ব্যক্তির ছবি নিতে গেলে পুলিশ সদস্য হাফিজ ও রবিউল তাতে বাধা দেয়। এমনকি চিত্র সাংবাদিক আবুল কালাম আজাদকে গলাচিপে দেয়ালে ঠেসে ধরেন। ঠেকাতে গেলে তাদের সাথে ধস্তাধস্তি শুরু হয়। এ সময় দুই পুলিশ সদস্য গ্রেপ্তারেরও হুমকি দেয়। এ খবর জানতে পেরে ঘটনাস্থলে যান সাংবাদিক নেতৃবৃন্দ ও পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা।

 

এদিকে সাংবাদিকদের উপরে হামলার ঘটনায় তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন সাংবাদিক নেতৃবৃন্দ। এ ঘটনায় জড়িতদের বিরুদ্ধে শাস্তির দাবি জানান তারা।

এসময় পুলিশ কর্মকর্তারা তাদের দুই সদস্যকে ক্লোজড করে পুলিশ লাইনে নিয়ে যান। একইসাথে তাদের বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থা গ্রহণের আশ্বাস দেন।
জনপ্রিয় সংবাদ

যশোরে দুই সাংবাদিকের ওপর  পুলিশের হামলা

আপডেট সময় : ০৮:১১:০৭ অপরাহ্ন, বুধবার, ৩ এপ্রিল ২০২৪

যশোর ২৫০ শয্যা  জেনারেল হাসপাতালে সংবাদ সংগ্রহকালে সময় সংবাদের প্রতিবেদক জুয়েল মৃধা ও চিত্র সাংবাদিক আবুল কালাম আজাদের উপর হামলা চালিয়েছে পুলিশ। এসময় পুলিশের দুই সদস্য ক্যামেরা ভাঙচুরের চেষ্টা চালালে ধস্তাধস্তি হয়। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে যান সাংবাদিক নেতৃবৃন্দ ও পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা। এসময় পুলিশ কর্মকর্তারা তাদের দুই সদস্যকে ক্লোজড করে নিয়ে যান এবং বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থা গ্রহণের আশ্বাস দেন।

 

প্রতিবেদক জুয়েল মৃধা জানান, বেনাপোল সীমান্তে ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনী বিএসএফের গুলিতে আহত দুই বাংলাদেশি নাগরিকের ছবি সংগ্রহ করতে হাসপাতালে যান। এসময় আহত ওই দুই ব্যক্তির ছবি নিতে গেলে পুলিশ সদস্য হাফিজ ও রবিউল তাতে বাধা দেয়। এমনকি চিত্র সাংবাদিক আবুল কালাম আজাদকে গলাচিপে দেয়ালে ঠেসে ধরেন। ঠেকাতে গেলে তাদের সাথে ধস্তাধস্তি শুরু হয়। এ সময় দুই পুলিশ সদস্য গ্রেপ্তারেরও হুমকি দেয়। এ খবর জানতে পেরে ঘটনাস্থলে যান সাংবাদিক নেতৃবৃন্দ ও পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা।

 

এদিকে সাংবাদিকদের উপরে হামলার ঘটনায় তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন সাংবাদিক নেতৃবৃন্দ। এ ঘটনায় জড়িতদের বিরুদ্ধে শাস্তির দাবি জানান তারা।

এসময় পুলিশ কর্মকর্তারা তাদের দুই সদস্যকে ক্লোজড করে পুলিশ লাইনে নিয়ে যান। একইসাথে তাদের বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থা গ্রহণের আশ্বাস দেন।