০৫:৪৩ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ২৬ মে ২০২৪, ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

গরমে কমেছে আয় বেড়েছে দুর্ভোগ

◉অতি তীব্র তাপদাহ চলছে চুয়াডাঙ্গায়
◉রাজশাহী, কুষ্টিয়ায় চলছে তীব্র তাপদাহ
◉চট্টগ্রাম ও সিলেটে হালকা বৃষ্টির সম্ভাবনা তাসকিনা ইয়াসমিন

তীব্র তাপদাহে বিপর্যস্ত জনজীবন। গরমে মানুষের ত্রাহি ত্রাহি অবস্থা। খুব জরুরি প্রয়োজন ছাড়া মানুষজন রাস্তায় বের হচ্ছেন না। ফলে, ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীদের ব্যবসায় ধস নেমেছে। ক্রেতা নেই বড় মার্কেটগুলোতেও। প্রচণ্ড গরমে অনেকেই অসুস্থ হয়ে পড়ছেন। রাজধানীর হাসপাতালগুলোতে রোগীর ভিড় বাড়ছে। এই অবস্থায় ভালো কোনো সুখবর দেয়নি আবহাওয়া অধিদপ্তর। গতকাল রোববার সকালে আবারও ৭২ ঘন্টার তাপদাহের ঘোষণা দেওয়া হয়েছে। এতে করে তাপদাহ টানা ২৬ দিনে পৌঁছাল। তাপদাহের মধ্যেই গতকাল খুলেছে স্কুল-কলেজ। এতে রাজধানী ঢাকার চিরচেনা জ্যামমুক্ত দৃশ্য বদলে গিয়ে জ্যামের শহরে পরিণত হয়েছে ঢাকা। এতে মানুষের ভোগান্তি বেড়েছে। বর্তমানে অতি তীব্র তাপদাহ চলছে চুয়াডাঙ্গায়, তীব্র তাপদাহ চলছে রাজশাহী ও কুষ্টিয়ায়। গতকাল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান দীর্ঘদিন পর প্রথমবারের মতো খোলায় নগরীর রাস্তার মোড়ে মোড়ে তীব্র যানজটের সৃষ্টি হয়েছে। এতে অস্বস্তিতে পড়ে শিক্ষার্থী ও তাদের নিতে আসা অভিভাবকরা। এদিকে, প্রচণ্ড গরমে সবচেয়ে বেশি কষ্টে আছে শ্রমজীবী মানুষ। তাদের এমন পরিস্থিতি ঘর থেকে বের হয়ে কাজও করতে পারছে না, আবার কাজ করতে গেলে তেমন ক্রেতাও পাচ্ছে না। রাজধানীর নূর সুপার মার্কেটের থান কাপড় বিক্রেতা জসিম উদ্দিন দৈনিক সবুজ বাংলাকে বলেন, ‘এখন সারা দিন বসে থাকার পরে এক থেকে দুইজন ক্রেতা আসে। মার্কেটে যে হারে ক্রেতা আসত তা এখন একেবারেই কমে গেছে। বেচাবিক্রি একদমই নাই।’ নগরীর যাদের পরিবারে ছোট শিশু, গর্ভবতী নারী ও বয়স্ক ব্যক্তি আছেন তাদের জন্য এই গরম সামলানো খুব কঠিন হয়ে যাচ্ছে। যাদের ঘরে এসি আছে তারা বাসায় কিছুটা স্বস্তি পেলেও যারা শুধু ফ্যানের উপর নির্ভরশীল তারা ভীষণ অস্বস্তিকর অবস্থায় আছে। নগরীর সেগুনবাগিচার বাসিন্দা তাহমিনা সুরাইয়া ইসলাম দৈনিক সবুজ বাংলাকে বলেন, বাসায় ছোট শিশু থাকায় তাকে নিয়ে বেশি দুশ্চিন্তায় থাকতে হচ্ছে। একটুতেই ঠান্ডা লেগে যাচ্ছে। তিনি বলেন, তার গায়ে ঘামাচি উঠছে এটাও একটা সমস্যা।

প্রচণ্ড গরম আর রোদ্রের মধ্যে মানুষকে ভীষণ রকম ঘামে ভেজা ও কষ্টের মধ্যে দেখা গেছে। নগরীর মানুষ তীব্র গরম থেকে মুক্তি পেতে ডাব, লেবু- পানির শরবত ও স্যালাইন খাওয়ার দিকে ঝুঁকছে। গতকালও ডাবের পানি ১৩০-১৪০ টাকা দরে বিক্রি হয়েছে। ডাবের দাম সহসাই কমছে না এমনটিই জানিয়েছেন মতিঝিল মেট্রোরেলের কাছের ডাব বিক্রেতা আনোয়ার হোসেন। এবছর টানা ২৬ দিন ধরে তাপদাহ চলছে। এর আগে গতবছর এ তাপদাহ ২৩ দিন ধরে চলমান ছিল। আবহাওয়া অধিদপ্তর বার্তায় জানিয়েছে, পরবর্তী ৭২ ঘণ্টা তাপদাহ অব্যাহত থাকতে পারে। বাতাসে জলীয়বাষ্পের আধিক্যের কারণে গরমে অস্বস্তিকর অনুভূতিও বাড়বে। চুয়াডাঙ্গার তাপমাত্রা গতকাল ছিল ৪১.৮ ডিগ্রি। সেখানকার আবহাওয়া স্থানীয়দের মধ্যে অস্বস্তি সৃষ্টি করছে। ভ্যাপসা গরম ও প্রচণ্ড ঘামে সাধারণ মানুষের ত্রাহি ত্রাহি অবস্থা। জনগণকে গরম থেকে রক্ষা পেতে প্রচণ্ড রোদে বেশিক্ষণ বাইরে থেকে কাজ না করার অনুরোধ জানিয়েছে স্থানীয় প্রশাসন। যশোরের তাপমাত্রা ছিল গতকাল ৪১ ডিগ্রি। রাজশাহীর তাপমাত্রা দুপুরে ৪২ ডিগ্রি রেকর্ড করেছে আবহাওয়া অধিদপ্তর। এখানে আগামী ২৪ ঘণ্টায়ও বৃষ্টির কোনো সম্ভাবনা নেই। এই শহরে দিলীপ বিশ্বাস নামে একজনের মৃত্যু হয়েছে। তার মৃত্যু হিটস্ট্রোকে হয়েছে বলে পরিবারের সদস্যরা গণমাধ্যমকে নিশ্চিত করেছে। আবহাওয়া অধিদপ্তর জানিয়েছে, চুয়াডাঙ্গা জেলার উপর দিয়ে অতি তীব্র তাপপ্রবাহ এবং রাজশাহী, পাবনা, সিরাজগঞ্জ, যশোর ও কুষ্টিয়া জেলাসমূহের

ঘূর্ণিঝড় রেমাল মোকাবেলায় কতটুকু প্রস্তুত পবিপ্রবি?

গরমে কমেছে আয় বেড়েছে দুর্ভোগ

আপডেট সময় : ০৮:০০:৪৭ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২৯ এপ্রিল ২০২৪

◉অতি তীব্র তাপদাহ চলছে চুয়াডাঙ্গায়
◉রাজশাহী, কুষ্টিয়ায় চলছে তীব্র তাপদাহ
◉চট্টগ্রাম ও সিলেটে হালকা বৃষ্টির সম্ভাবনা তাসকিনা ইয়াসমিন

তীব্র তাপদাহে বিপর্যস্ত জনজীবন। গরমে মানুষের ত্রাহি ত্রাহি অবস্থা। খুব জরুরি প্রয়োজন ছাড়া মানুষজন রাস্তায় বের হচ্ছেন না। ফলে, ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীদের ব্যবসায় ধস নেমেছে। ক্রেতা নেই বড় মার্কেটগুলোতেও। প্রচণ্ড গরমে অনেকেই অসুস্থ হয়ে পড়ছেন। রাজধানীর হাসপাতালগুলোতে রোগীর ভিড় বাড়ছে। এই অবস্থায় ভালো কোনো সুখবর দেয়নি আবহাওয়া অধিদপ্তর। গতকাল রোববার সকালে আবারও ৭২ ঘন্টার তাপদাহের ঘোষণা দেওয়া হয়েছে। এতে করে তাপদাহ টানা ২৬ দিনে পৌঁছাল। তাপদাহের মধ্যেই গতকাল খুলেছে স্কুল-কলেজ। এতে রাজধানী ঢাকার চিরচেনা জ্যামমুক্ত দৃশ্য বদলে গিয়ে জ্যামের শহরে পরিণত হয়েছে ঢাকা। এতে মানুষের ভোগান্তি বেড়েছে। বর্তমানে অতি তীব্র তাপদাহ চলছে চুয়াডাঙ্গায়, তীব্র তাপদাহ চলছে রাজশাহী ও কুষ্টিয়ায়। গতকাল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান দীর্ঘদিন পর প্রথমবারের মতো খোলায় নগরীর রাস্তার মোড়ে মোড়ে তীব্র যানজটের সৃষ্টি হয়েছে। এতে অস্বস্তিতে পড়ে শিক্ষার্থী ও তাদের নিতে আসা অভিভাবকরা। এদিকে, প্রচণ্ড গরমে সবচেয়ে বেশি কষ্টে আছে শ্রমজীবী মানুষ। তাদের এমন পরিস্থিতি ঘর থেকে বের হয়ে কাজও করতে পারছে না, আবার কাজ করতে গেলে তেমন ক্রেতাও পাচ্ছে না। রাজধানীর নূর সুপার মার্কেটের থান কাপড় বিক্রেতা জসিম উদ্দিন দৈনিক সবুজ বাংলাকে বলেন, ‘এখন সারা দিন বসে থাকার পরে এক থেকে দুইজন ক্রেতা আসে। মার্কেটে যে হারে ক্রেতা আসত তা এখন একেবারেই কমে গেছে। বেচাবিক্রি একদমই নাই।’ নগরীর যাদের পরিবারে ছোট শিশু, গর্ভবতী নারী ও বয়স্ক ব্যক্তি আছেন তাদের জন্য এই গরম সামলানো খুব কঠিন হয়ে যাচ্ছে। যাদের ঘরে এসি আছে তারা বাসায় কিছুটা স্বস্তি পেলেও যারা শুধু ফ্যানের উপর নির্ভরশীল তারা ভীষণ অস্বস্তিকর অবস্থায় আছে। নগরীর সেগুনবাগিচার বাসিন্দা তাহমিনা সুরাইয়া ইসলাম দৈনিক সবুজ বাংলাকে বলেন, বাসায় ছোট শিশু থাকায় তাকে নিয়ে বেশি দুশ্চিন্তায় থাকতে হচ্ছে। একটুতেই ঠান্ডা লেগে যাচ্ছে। তিনি বলেন, তার গায়ে ঘামাচি উঠছে এটাও একটা সমস্যা।

প্রচণ্ড গরম আর রোদ্রের মধ্যে মানুষকে ভীষণ রকম ঘামে ভেজা ও কষ্টের মধ্যে দেখা গেছে। নগরীর মানুষ তীব্র গরম থেকে মুক্তি পেতে ডাব, লেবু- পানির শরবত ও স্যালাইন খাওয়ার দিকে ঝুঁকছে। গতকালও ডাবের পানি ১৩০-১৪০ টাকা দরে বিক্রি হয়েছে। ডাবের দাম সহসাই কমছে না এমনটিই জানিয়েছেন মতিঝিল মেট্রোরেলের কাছের ডাব বিক্রেতা আনোয়ার হোসেন। এবছর টানা ২৬ দিন ধরে তাপদাহ চলছে। এর আগে গতবছর এ তাপদাহ ২৩ দিন ধরে চলমান ছিল। আবহাওয়া অধিদপ্তর বার্তায় জানিয়েছে, পরবর্তী ৭২ ঘণ্টা তাপদাহ অব্যাহত থাকতে পারে। বাতাসে জলীয়বাষ্পের আধিক্যের কারণে গরমে অস্বস্তিকর অনুভূতিও বাড়বে। চুয়াডাঙ্গার তাপমাত্রা গতকাল ছিল ৪১.৮ ডিগ্রি। সেখানকার আবহাওয়া স্থানীয়দের মধ্যে অস্বস্তি সৃষ্টি করছে। ভ্যাপসা গরম ও প্রচণ্ড ঘামে সাধারণ মানুষের ত্রাহি ত্রাহি অবস্থা। জনগণকে গরম থেকে রক্ষা পেতে প্রচণ্ড রোদে বেশিক্ষণ বাইরে থেকে কাজ না করার অনুরোধ জানিয়েছে স্থানীয় প্রশাসন। যশোরের তাপমাত্রা ছিল গতকাল ৪১ ডিগ্রি। রাজশাহীর তাপমাত্রা দুপুরে ৪২ ডিগ্রি রেকর্ড করেছে আবহাওয়া অধিদপ্তর। এখানে আগামী ২৪ ঘণ্টায়ও বৃষ্টির কোনো সম্ভাবনা নেই। এই শহরে দিলীপ বিশ্বাস নামে একজনের মৃত্যু হয়েছে। তার মৃত্যু হিটস্ট্রোকে হয়েছে বলে পরিবারের সদস্যরা গণমাধ্যমকে নিশ্চিত করেছে। আবহাওয়া অধিদপ্তর জানিয়েছে, চুয়াডাঙ্গা জেলার উপর দিয়ে অতি তীব্র তাপপ্রবাহ এবং রাজশাহী, পাবনা, সিরাজগঞ্জ, যশোর ও কুষ্টিয়া জেলাসমূহের