০৭:৩৬ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৮ মে ২০২৪, ১৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

উত্তরায় প্রকৌশলী ফুলবাবু হত্যা মামলায় বাসচালকের সহকারী গ্রেপ্তার

রাজধানীর উত্তরার আজমপুরে প্রকৌশলী ফুলবাবু হত্যায় জড়িত অভিযোগে মাসুদ রানা নামের এক যুবককে গ্রেপ্তার করার কথা জানিয়েছেন র‍্যাব।
র‍্যাবের দাবি- বাগ্‌বিতণ্ডার জেরে বাসচালকের সহকারী মাসুদ রানা (৩৪) ফুলবাবু ও ইয়াছিনকে জোর করে বাসে তোলেন। ইয়াছিনকে পরে বাস থেকে নামিয়ে দেওয়া হয়। কিন্তু ফুলবাবুকে উত্তরার আবদুল্লাহপুরে নিয়ে মারধর করেন তাঁরা। পরে সে মারা যায়।
শুক্রবার বিষয়টি নিশ্চিত করে র‍্যাব-১-এর জ্যেষ্ঠ সহকারী পুলিশ সুপার পারভেজ রানা জানান, গতকাল বৃহস্পতিবার গভীর রাতে গাবতলী বাস টার্মিনালের একটি ফিলিং স্টেশনের সামনে থাকা এক বাস থেকে মাসুদ রানাকে গ্রেপ্তার করা হয়।
র‍্যাব-১-এর জ্যেষ্ঠ সহকারী পুলিশ সুপার পারভেজ রানা বলেন, ফুলবাবু বাস র‍্যাপিড ট্রানজিটের (বিআরটি) প্রকৌশলী ছিলেন। গত ১৩ এপ্রিল উত্তরা ৭ নম্বর সেক্টরের আজমপুর পথচারী-সেতুর নিচে বিআরটির কাজ চলার সময় ফুলবাবু ও তাঁর সহকর্মী ইয়াছিন আসমানি নামের একটি পরিবহন প্রতিষ্ঠানের বাসকে দ্রুত রাস্তা থেকে সরিয়ে নিতে পরিবহনকর্মীদের বলেন। এ নিয়ে তাঁদের মধ্যে কথা-কাটাকাটি হয়।
ঘটনার দিনই আল আমিন নামের এক পরিবহনকর্মীকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। আর হত্যা মামলার এজাহারভুক্ত আসামি মাসুদ এত দিন পালিয়ে ছিলেন। হত্যায় জড়িত অন্যদের শনাক্ত করে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে বলে জানিয়েছে র‍্যাব।
এই বাগ্‌বিতণ্ডার জেরে বাসচালকের সহকারী মাসুদ রানা (৩৪) ফুলবাবু ও ইয়াছিনকে জোর করে বাসে তোলেন। ইয়াছিনকে পরে বাস থেকে নামিয়ে দেওয়া হয়। কিন্তু ফুলবাবুকে উত্তরার আবদুল্লাহপুরে নিয়ে মারধর করেন তাঁরা। আহত অবস্থায় তাঁকে উদ্ধার করে উত্তরার বেসরকারি আধুনিক মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে ১৪ এপ্রিল বিকেলে ফুলবাবু মারা যান। এ ঘটনায় তাঁর স্ত্রী জোসনা বেগম বাদী হয়ে উত্তরা পশ্চিম থানায় হত্যা মামলা করেন।
র‍্যাব কর্মকর্তা পারভেজ রানা আরও বলেন, ঘটনার দিনই আল আমিন নামের এক পরিবহনকর্মীকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। আর হত্যা মামলার এজাহারভুক্ত আসামি মাসুদ রানা এত দিন পালিয়ে ছিলেন। হত্যায় জড়িত অন্যদের শনাক্ত করে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

রাষ্ট্রপতির কাছে পরিচয়পত্র পেশ করেছেন তিন দেশের রাষ্ট্রদূতগণ

উত্তরায় প্রকৌশলী ফুলবাবু হত্যা মামলায় বাসচালকের সহকারী গ্রেপ্তার

আপডেট সময় : ০৫:৩৮:০৬ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১০ মে ২০২৪
রাজধানীর উত্তরার আজমপুরে প্রকৌশলী ফুলবাবু হত্যায় জড়িত অভিযোগে মাসুদ রানা নামের এক যুবককে গ্রেপ্তার করার কথা জানিয়েছেন র‍্যাব।
র‍্যাবের দাবি- বাগ্‌বিতণ্ডার জেরে বাসচালকের সহকারী মাসুদ রানা (৩৪) ফুলবাবু ও ইয়াছিনকে জোর করে বাসে তোলেন। ইয়াছিনকে পরে বাস থেকে নামিয়ে দেওয়া হয়। কিন্তু ফুলবাবুকে উত্তরার আবদুল্লাহপুরে নিয়ে মারধর করেন তাঁরা। পরে সে মারা যায়।
শুক্রবার বিষয়টি নিশ্চিত করে র‍্যাব-১-এর জ্যেষ্ঠ সহকারী পুলিশ সুপার পারভেজ রানা জানান, গতকাল বৃহস্পতিবার গভীর রাতে গাবতলী বাস টার্মিনালের একটি ফিলিং স্টেশনের সামনে থাকা এক বাস থেকে মাসুদ রানাকে গ্রেপ্তার করা হয়।
র‍্যাব-১-এর জ্যেষ্ঠ সহকারী পুলিশ সুপার পারভেজ রানা বলেন, ফুলবাবু বাস র‍্যাপিড ট্রানজিটের (বিআরটি) প্রকৌশলী ছিলেন। গত ১৩ এপ্রিল উত্তরা ৭ নম্বর সেক্টরের আজমপুর পথচারী-সেতুর নিচে বিআরটির কাজ চলার সময় ফুলবাবু ও তাঁর সহকর্মী ইয়াছিন আসমানি নামের একটি পরিবহন প্রতিষ্ঠানের বাসকে দ্রুত রাস্তা থেকে সরিয়ে নিতে পরিবহনকর্মীদের বলেন। এ নিয়ে তাঁদের মধ্যে কথা-কাটাকাটি হয়।
ঘটনার দিনই আল আমিন নামের এক পরিবহনকর্মীকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। আর হত্যা মামলার এজাহারভুক্ত আসামি মাসুদ এত দিন পালিয়ে ছিলেন। হত্যায় জড়িত অন্যদের শনাক্ত করে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে বলে জানিয়েছে র‍্যাব।
এই বাগ্‌বিতণ্ডার জেরে বাসচালকের সহকারী মাসুদ রানা (৩৪) ফুলবাবু ও ইয়াছিনকে জোর করে বাসে তোলেন। ইয়াছিনকে পরে বাস থেকে নামিয়ে দেওয়া হয়। কিন্তু ফুলবাবুকে উত্তরার আবদুল্লাহপুরে নিয়ে মারধর করেন তাঁরা। আহত অবস্থায় তাঁকে উদ্ধার করে উত্তরার বেসরকারি আধুনিক মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে ১৪ এপ্রিল বিকেলে ফুলবাবু মারা যান। এ ঘটনায় তাঁর স্ত্রী জোসনা বেগম বাদী হয়ে উত্তরা পশ্চিম থানায় হত্যা মামলা করেন।
র‍্যাব কর্মকর্তা পারভেজ রানা আরও বলেন, ঘটনার দিনই আল আমিন নামের এক পরিবহনকর্মীকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। আর হত্যা মামলার এজাহারভুক্ত আসামি মাসুদ রানা এত দিন পালিয়ে ছিলেন। হত্যায় জড়িত অন্যদের শনাক্ত করে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।