০৪:৪৮ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ২৬ মে ২০২৪, ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

সাংস্কৃতিক আয়োজনে এনএসইউতে বাংলা নববর্ষ-১৪৩১ উদযাপন

 

বাংলা নতুন বছরকে বরণ করে নিতে নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটিতে শনবিার বর্ষবরণ উৎসব ও বৈশাখী মেলা ১৪৩১-এর আয়োজিত হয়েছে।

নতুন বছরকে বরণ করে নিতে সকালে মঙ্গল শোভাযাত্রার মধ্য দিয়ে শুরু হয় বর্ষবরণ। এরপর শুরু হয় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। নাচ, গান ও বাউল সংগীতসহ ছিল ভিন্নধর্মী সব আয়োজন। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন এনএসইউ’র উপাচার্য অধ্যাপক আতিকুল ইসলাম। এছাড়া আরও উপস্থিত ছিলেন এনএসইউ’র কোষাধ্যক্ষ ও উপ-উপাচার্য (ভারপ্রাপ্ত) অধ্যাপক আবদুর রব খান, এবং এনএসইউ রেজিস্ট্রার ড. আহমেদ তাজমীন।

ছাত্রদের উদ্দেশে কথা বলতে গিয়ে, অধ্যাপক আতিকুল ইসলাম বলেন, পহেলা বৈশাখ অসাম্প্রদায়িক বাঙালির প্রাণের উৎসব। এই বছর বিশ্ববিদ্যালয় ইদের ছুটির কারণে বন্ধ থাকায় এবং অব্যাহত তাবদাহের কারণে আমরা এই উৎসব দেরিতে উৎযাপন করছি। নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয় পরিবার এই অনুষ্ঠানে সামগ্রিক আয়োজন চমৎকারভাবে করেছেন। আমি সকলকে আয়োজন সফল করার জন্য শুভেচ্ছা জানাই।

অধ্যাপক আবদুর রব খান শিক্ষার্থীদের উদ্দেশে বলেন, আমাদের নিজেদের সংস্কৃতি লালন করতে হবে, উৎযাপন করতে হবে। সমাজে শুভও শক্তি দিয়ে সমাজকে একটি সাংস্কৃতিক বিপ্লবের দিয়ে এগিয়ে নিয়ে যেতে হবে।

এই অনুষ্ঠানের সার্বিক তত্ত্বাবধানে কাজ করেন স্টুডেন্ট অ্যাফেয়ার্স এর ডিরেক্টর ড. সাঈদ উজ জামান খান। তিনি এমন আনন্দঘন অনুষ্ঠান আয়োজন করতে পেরে সন্তোষ প্রকাশ করেন।

সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করে নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটি সাংস্কৃতিক সংগঠন এবং দিনব্যাপী বৈশাখী মেলার আয়োজন করে নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটি সোশ্যাল সার্ভিসেস ক্লাব।

ঘূর্ণিঝড় রেমাল মোকাবেলায় কতটুকু প্রস্তুত পবিপ্রবি?

সাংস্কৃতিক আয়োজনে এনএসইউতে বাংলা নববর্ষ-১৪৩১ উদযাপন

আপডেট সময় : ০৬:১৯:১২ অপরাহ্ন, শনিবার, ১১ মে ২০২৪

 

বাংলা নতুন বছরকে বরণ করে নিতে নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটিতে শনবিার বর্ষবরণ উৎসব ও বৈশাখী মেলা ১৪৩১-এর আয়োজিত হয়েছে।

নতুন বছরকে বরণ করে নিতে সকালে মঙ্গল শোভাযাত্রার মধ্য দিয়ে শুরু হয় বর্ষবরণ। এরপর শুরু হয় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। নাচ, গান ও বাউল সংগীতসহ ছিল ভিন্নধর্মী সব আয়োজন। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন এনএসইউ’র উপাচার্য অধ্যাপক আতিকুল ইসলাম। এছাড়া আরও উপস্থিত ছিলেন এনএসইউ’র কোষাধ্যক্ষ ও উপ-উপাচার্য (ভারপ্রাপ্ত) অধ্যাপক আবদুর রব খান, এবং এনএসইউ রেজিস্ট্রার ড. আহমেদ তাজমীন।

ছাত্রদের উদ্দেশে কথা বলতে গিয়ে, অধ্যাপক আতিকুল ইসলাম বলেন, পহেলা বৈশাখ অসাম্প্রদায়িক বাঙালির প্রাণের উৎসব। এই বছর বিশ্ববিদ্যালয় ইদের ছুটির কারণে বন্ধ থাকায় এবং অব্যাহত তাবদাহের কারণে আমরা এই উৎসব দেরিতে উৎযাপন করছি। নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয় পরিবার এই অনুষ্ঠানে সামগ্রিক আয়োজন চমৎকারভাবে করেছেন। আমি সকলকে আয়োজন সফল করার জন্য শুভেচ্ছা জানাই।

অধ্যাপক আবদুর রব খান শিক্ষার্থীদের উদ্দেশে বলেন, আমাদের নিজেদের সংস্কৃতি লালন করতে হবে, উৎযাপন করতে হবে। সমাজে শুভও শক্তি দিয়ে সমাজকে একটি সাংস্কৃতিক বিপ্লবের দিয়ে এগিয়ে নিয়ে যেতে হবে।

এই অনুষ্ঠানের সার্বিক তত্ত্বাবধানে কাজ করেন স্টুডেন্ট অ্যাফেয়ার্স এর ডিরেক্টর ড. সাঈদ উজ জামান খান। তিনি এমন আনন্দঘন অনুষ্ঠান আয়োজন করতে পেরে সন্তোষ প্রকাশ করেন।

সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করে নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটি সাংস্কৃতিক সংগঠন এবং দিনব্যাপী বৈশাখী মেলার আয়োজন করে নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটি সোশ্যাল সার্ভিসেস ক্লাব।