০৬:৩৯ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৬ জুলাই ২০২৪, ১ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

বান্দরবানে পানির ঢলে মা মেয়ে নিখোঁজ, মেয়ের লাশ উদ্ধার

  • সবুজ বাংলা
  • আপডেট সময় : ১০:৫৫:৫৭ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ১ সেপ্টেম্বর ২০২৩
  • 35

বান্দরবান প্রতিনিধি

বান্দরবানে রোয়াংছড়িতে ঝিড়ি পারাপারে সময় পাহাড়ি পানির ঢলে মা মাহ্লা খেয়াং (৪২) ও তার মেয়ে মানু খেয়াং (১৬) ভেসে গেছে।

বৃহস্পতিবার (৩১ আগস্ট) বিকালে রোয়াংছড়ি নোয়াপতং ইউনিয়নের তুইচাখালে এ ঘটনা ঘটে।

তারা হলেন- ৪নং নোয়াপতং ইউনিয়নের ৮নং ওয়ার্ড ক্রংলাই পাড়ার স্থায়ী বাসিন্দা মাহ্লা খেয়াং (৪২) ও তার মেয়ে মানু খেয়াং (১৬)।

স্থানীয়রা জানান, মা ও মেয়ে জুমের কাজ শেষ করে বাড়িতে ফিরছিলেন। এসময় টানা বৃষ্টিপাত শুরু হয়। তুইচাখাল পারাপারের সময় পাহাড় থেকে নেমে আসা ঢলে পানিতে মা ও মেয়ে ভেসে যায়। খবর পেয়ে খোজাখুজির পর মেয়ে মানু খেয়াং (১৬) লাশ উদ্ধার করে স্থানীয়রা। এখনো মা মাহ্লা খেয়াং (৪২) কে খুজে পাওয়া যায়নি।

সত্যতা নিশ্চিত করে নোয়াপতং ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান চনু মং মারমা জানিয়েছেন, হঠাৎ বৃষ্টির পাহাড়ি ঢলের পানিতে মা ও মেয়ে ভেসে গেছেন। ক্রংহ্লাইপাড়া এলাকাটি খুবই দুর্গম। সেখানে ৩০টি খেয়াং ও মারমা পরিবার বসবাস করে।

কোটা আন্দোলন : চট্টগ্রামে সংঘর্ষে নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৩

বান্দরবানে পানির ঢলে মা মেয়ে নিখোঁজ, মেয়ের লাশ উদ্ধার

আপডেট সময় : ১০:৫৫:৫৭ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ১ সেপ্টেম্বর ২০২৩

বান্দরবান প্রতিনিধি

বান্দরবানে রোয়াংছড়িতে ঝিড়ি পারাপারে সময় পাহাড়ি পানির ঢলে মা মাহ্লা খেয়াং (৪২) ও তার মেয়ে মানু খেয়াং (১৬) ভেসে গেছে।

বৃহস্পতিবার (৩১ আগস্ট) বিকালে রোয়াংছড়ি নোয়াপতং ইউনিয়নের তুইচাখালে এ ঘটনা ঘটে।

তারা হলেন- ৪নং নোয়াপতং ইউনিয়নের ৮নং ওয়ার্ড ক্রংলাই পাড়ার স্থায়ী বাসিন্দা মাহ্লা খেয়াং (৪২) ও তার মেয়ে মানু খেয়াং (১৬)।

স্থানীয়রা জানান, মা ও মেয়ে জুমের কাজ শেষ করে বাড়িতে ফিরছিলেন। এসময় টানা বৃষ্টিপাত শুরু হয়। তুইচাখাল পারাপারের সময় পাহাড় থেকে নেমে আসা ঢলে পানিতে মা ও মেয়ে ভেসে যায়। খবর পেয়ে খোজাখুজির পর মেয়ে মানু খেয়াং (১৬) লাশ উদ্ধার করে স্থানীয়রা। এখনো মা মাহ্লা খেয়াং (৪২) কে খুজে পাওয়া যায়নি।

সত্যতা নিশ্চিত করে নোয়াপতং ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান চনু মং মারমা জানিয়েছেন, হঠাৎ বৃষ্টির পাহাড়ি ঢলের পানিতে মা ও মেয়ে ভেসে গেছেন। ক্রংহ্লাইপাড়া এলাকাটি খুবই দুর্গম। সেখানে ৩০টি খেয়াং ও মারমা পরিবার বসবাস করে।