০৭:০১ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৬ জুলাই ২০২৪, ১ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

নির্ধারিত সময়ের আগেই শেষ হচ্ছে এশিয়ার সর্ববৃহৎ ঘোড়াশাল-পলাশ ইউরিয়া সার কারখানা

  • সবুজ বাংলা
  • আপডেট সময় : ০৫:০৪:৩০ অপরাহ্ন, বুধবার, ৬ সেপ্টেম্বর ২০২৩
  • 27
শিল্পমন্ত্রী এডভোকেট নুরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ূন এমপি বলেছেন, বিদেশী কোম্পানীকে বেধে দেয়া নির্ধারিত সময়ের আগেই শেষ হচ্ছে ঘোড়াশাল-পলাশ ইউরিয়া সার কারখানার সার্বিক কাজ। ইতোমধ্যেই ৯৫/৯৮ ভাগ কার্যক্রম সম্পন্ন হয়েছে, চলতি মাসেই পরীক্ষামুলক উৎপাদনে যাবে এশিয়ার সর্ববৃহৎ পরিবেশ বান্ধব এই সার কারখানাটি । গ্যাস সংকটের কথা বিবেচনায় যমুনা সার কারখানার বিকল্প বের করে এই কারখানায় নিরবচ্ছিন্ন গ্যাসসহ সার্বিক কার্যক্রম নিশ্চিত করা হয়েছে।
তিনি বুধবার (৬ সেপ্টেম্বর) দুপুরে নরসিংদীর ঘোড়াশাল-পলাশ ইউরিয়া সার কারখানা পরিদর্শন ও কমিশনিং কার্যক্রমের উদ্বোধন শেষে সাংবাদিকদের সাথে আলোচনায় এসব কথা বলেন।
ঘোড়াশাল পলাশ ইউরিয়ার ফার্টিলাইজার ফ্যক্টরির প্রকল্প পরিচালক রাজিউর রহমান মল্লিকের সভাপতিত্বে এসময় শিল্পপ্রতিমন্ত্রী কামাল আহমেদ মজুমদার, নরসিংদী-২ পলাশ আসনের সংসদস্য ডা. আনোয়ারুল আশরাফ খানা দীলিপ, শিল্প সচিব জাকিয়া সুলতানা, বিসিআইসির চেয়ারম্যান সাইদুর রহমান, শিল্প মন্ত্রনালয়ের অতিরিক্ত সচিব এস এম আলম সহ প্রকল্পের কর্মকর্তা, ইঞ্জিনিয়ারবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন ।
খাদ্য নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে দেশের ইউরিয়া সারের চাহিদা মিটানোর পাশাপাশি সুলভমুল্যে কৃষকদের কাছে সার পৌছে দিতে ২০১৮ সালে এই প্রকল্পের নির্মান কাজ শুরু করে শিল্পমন্ত্রনায়। এতে বছরে ৯ লক্ষ ২৪ হাজার মেট্রিকটন ইউরিয়ার সার উৎপাদন সম্ভব হবে । ইতোমধ্যেই নির্মাণ কাজের ৯৫ শতাংশ কাজ সম্পন্ন হয়েছে বলে জানানো হয় প্রকল্প পরিচালকের পক্ষ থেকে।  আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনের পূর্বে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এশিয়ার সবচেয়ে বড় পরিবেশ বান্ধব এই সার কারখানাটি উদ্বোধন করবেন বলে জানানো হয়।

মুক্তিযোদ্ধাদের সর্বোচ্চ সম্মান দেখাতে হবে : প্রধানমন্ত্রী

নির্ধারিত সময়ের আগেই শেষ হচ্ছে এশিয়ার সর্ববৃহৎ ঘোড়াশাল-পলাশ ইউরিয়া সার কারখানা

আপডেট সময় : ০৫:০৪:৩০ অপরাহ্ন, বুধবার, ৬ সেপ্টেম্বর ২০২৩
শিল্পমন্ত্রী এডভোকেট নুরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ূন এমপি বলেছেন, বিদেশী কোম্পানীকে বেধে দেয়া নির্ধারিত সময়ের আগেই শেষ হচ্ছে ঘোড়াশাল-পলাশ ইউরিয়া সার কারখানার সার্বিক কাজ। ইতোমধ্যেই ৯৫/৯৮ ভাগ কার্যক্রম সম্পন্ন হয়েছে, চলতি মাসেই পরীক্ষামুলক উৎপাদনে যাবে এশিয়ার সর্ববৃহৎ পরিবেশ বান্ধব এই সার কারখানাটি । গ্যাস সংকটের কথা বিবেচনায় যমুনা সার কারখানার বিকল্প বের করে এই কারখানায় নিরবচ্ছিন্ন গ্যাসসহ সার্বিক কার্যক্রম নিশ্চিত করা হয়েছে।
তিনি বুধবার (৬ সেপ্টেম্বর) দুপুরে নরসিংদীর ঘোড়াশাল-পলাশ ইউরিয়া সার কারখানা পরিদর্শন ও কমিশনিং কার্যক্রমের উদ্বোধন শেষে সাংবাদিকদের সাথে আলোচনায় এসব কথা বলেন।
ঘোড়াশাল পলাশ ইউরিয়ার ফার্টিলাইজার ফ্যক্টরির প্রকল্প পরিচালক রাজিউর রহমান মল্লিকের সভাপতিত্বে এসময় শিল্পপ্রতিমন্ত্রী কামাল আহমেদ মজুমদার, নরসিংদী-২ পলাশ আসনের সংসদস্য ডা. আনোয়ারুল আশরাফ খানা দীলিপ, শিল্প সচিব জাকিয়া সুলতানা, বিসিআইসির চেয়ারম্যান সাইদুর রহমান, শিল্প মন্ত্রনালয়ের অতিরিক্ত সচিব এস এম আলম সহ প্রকল্পের কর্মকর্তা, ইঞ্জিনিয়ারবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন ।
খাদ্য নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে দেশের ইউরিয়া সারের চাহিদা মিটানোর পাশাপাশি সুলভমুল্যে কৃষকদের কাছে সার পৌছে দিতে ২০১৮ সালে এই প্রকল্পের নির্মান কাজ শুরু করে শিল্পমন্ত্রনায়। এতে বছরে ৯ লক্ষ ২৪ হাজার মেট্রিকটন ইউরিয়ার সার উৎপাদন সম্ভব হবে । ইতোমধ্যেই নির্মাণ কাজের ৯৫ শতাংশ কাজ সম্পন্ন হয়েছে বলে জানানো হয় প্রকল্প পরিচালকের পক্ষ থেকে।  আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনের পূর্বে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এশিয়ার সবচেয়ে বড় পরিবেশ বান্ধব এই সার কারখানাটি উদ্বোধন করবেন বলে জানানো হয়।