১০:০৯ অপরাহ্ন, রবিবার, ০৩ মার্চ ২০২৪, ২০ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

ইউক্রেনের রুশ-নিয়ন্ত্রিত এলকায় হামলা নিহত ২৮

ইউক্রেনের পূর্বাঞ্চলে রুশ-নিয়ন্ত্রিত লিসিচানস্ক শহরের একটি বেকারিতে হামলার ঘটনায় কমপক্ষে ২৮ জনের মৃত্যু হয়েছে। হামলার শিকার ওই ভবনটিতে একটি রেস্টুরেন্টও রয়েছে। রুশ কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, সেখানে হামলার ঘটনায় নারী, শিশুসহ বেশ কয়েকজন প্রাণ হারিয়েছেন। খবর বিবিসির।

ওই শহরে ইউক্রেনের এই হামলাকে সন্ত্রাসী হামলা বলে উল্লেখ করেছেন রুশ কর্মকর্তারা। ক্রেমলনি বলছে, পশ্চিমা দেশগুলোর কাছ থেকে পাওয়া অস্ত্র দিয়ে এসব হামলা চালাচ্ছে ইউক্রেন। তবে এই হামলার বিষয়ে কিয়েভের পক্ষ থেকে কিছু জানানো হয়নি।

সোমবার রুশ-নিয়ন্ত্রিত লুহানস্ক পিপলস রিপাবলিক (এলএনআর) এর প্রধান বলেন, হামলায় জরুরি পরিস্থিতি বিষয়ক মন্ত্রী অ্যালেক্সি পোটেলেশচেঙ্কো নিহত হয়েছেন। তিনি একটি রেস্টুরেন্টে জন্মদিন উদযাপন করছিলেন। সে সময় ওই রেস্টুরেন্ট হামলার শিকার হয়।

রাশিয়ার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র মারিয়া জাখারোভা বলেছেন, ইউক্রেনের সশস্ত্র বাহিনী ইচ্ছাকৃতভাবেই ওই বেকারিতে হামলা চালিয়েছে। তারা আগে থেকেই জানতো যে, স্থানীয়রা ঐতিহ্যগতভাবেই বিভিন্ন পন্য এবং জিনিসপত্রের জন্য প্রতি শনিবার সেখানে জড়ো হয়। অনেক বয়স্ক লোক এবং শিশুরাও তাদের পরিবারের সঙ্গে সেখানে আসে।

২০২২ সালের জুলাই মাসে ওই অঞ্চলের নিয়ন্ত্রণ নেয় রাশিয়া। এদিকে গত রোববার দক্ষিণ জাপোরিঝিয়া অঞ্চলে সফরের অংশ হিসাবে রোবটাইন গ্রামের কাছে অবস্থিত সেনাঘাঁটি পরিদর্শন করেছেন ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি।

এর আগে ইউক্রেনের মধ্যাঞ্চলে ব্যাপক ড্রোন হামলা চালিয়েছে রাশিয়া। এসব হামলার লক্ষ্যবস্তু ছিল বিদ্যুৎ অবকাঠামো। এতে ইউক্রেনের হাজার হাজার মানুষ বিদ্যুৎবিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছেন। সে সময় ইউক্রেনের বিমানবাহিনী জানায়, অন্তত ২৪টি ইরানি দিয়ে ড্রোন হামলা চালিয়েছে মস্কো। এসব হামলায় বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে দিনিপ্রোপেট্রোভস্ক অঞ্চলের অবকঠামোগুলো।

 

 

 

স/ম

ইউক্রেনের রুশ-নিয়ন্ত্রিত এলকায় হামলা নিহত ২৮

আপডেট সময় : ০১:০১:৫২ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

ইউক্রেনের পূর্বাঞ্চলে রুশ-নিয়ন্ত্রিত লিসিচানস্ক শহরের একটি বেকারিতে হামলার ঘটনায় কমপক্ষে ২৮ জনের মৃত্যু হয়েছে। হামলার শিকার ওই ভবনটিতে একটি রেস্টুরেন্টও রয়েছে। রুশ কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, সেখানে হামলার ঘটনায় নারী, শিশুসহ বেশ কয়েকজন প্রাণ হারিয়েছেন। খবর বিবিসির।

ওই শহরে ইউক্রেনের এই হামলাকে সন্ত্রাসী হামলা বলে উল্লেখ করেছেন রুশ কর্মকর্তারা। ক্রেমলনি বলছে, পশ্চিমা দেশগুলোর কাছ থেকে পাওয়া অস্ত্র দিয়ে এসব হামলা চালাচ্ছে ইউক্রেন। তবে এই হামলার বিষয়ে কিয়েভের পক্ষ থেকে কিছু জানানো হয়নি।

সোমবার রুশ-নিয়ন্ত্রিত লুহানস্ক পিপলস রিপাবলিক (এলএনআর) এর প্রধান বলেন, হামলায় জরুরি পরিস্থিতি বিষয়ক মন্ত্রী অ্যালেক্সি পোটেলেশচেঙ্কো নিহত হয়েছেন। তিনি একটি রেস্টুরেন্টে জন্মদিন উদযাপন করছিলেন। সে সময় ওই রেস্টুরেন্ট হামলার শিকার হয়।

রাশিয়ার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র মারিয়া জাখারোভা বলেছেন, ইউক্রেনের সশস্ত্র বাহিনী ইচ্ছাকৃতভাবেই ওই বেকারিতে হামলা চালিয়েছে। তারা আগে থেকেই জানতো যে, স্থানীয়রা ঐতিহ্যগতভাবেই বিভিন্ন পন্য এবং জিনিসপত্রের জন্য প্রতি শনিবার সেখানে জড়ো হয়। অনেক বয়স্ক লোক এবং শিশুরাও তাদের পরিবারের সঙ্গে সেখানে আসে।

২০২২ সালের জুলাই মাসে ওই অঞ্চলের নিয়ন্ত্রণ নেয় রাশিয়া। এদিকে গত রোববার দক্ষিণ জাপোরিঝিয়া অঞ্চলে সফরের অংশ হিসাবে রোবটাইন গ্রামের কাছে অবস্থিত সেনাঘাঁটি পরিদর্শন করেছেন ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি।

এর আগে ইউক্রেনের মধ্যাঞ্চলে ব্যাপক ড্রোন হামলা চালিয়েছে রাশিয়া। এসব হামলার লক্ষ্যবস্তু ছিল বিদ্যুৎ অবকাঠামো। এতে ইউক্রেনের হাজার হাজার মানুষ বিদ্যুৎবিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছেন। সে সময় ইউক্রেনের বিমানবাহিনী জানায়, অন্তত ২৪টি ইরানি দিয়ে ড্রোন হামলা চালিয়েছে মস্কো। এসব হামলায় বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে দিনিপ্রোপেট্রোভস্ক অঞ্চলের অবকঠামোগুলো।

 

 

 

স/ম