০৯:৩৮ অপরাহ্ন, শনিবার, ০২ মার্চ ২০২৪, ১৯ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

যৌন নিপীড়নে জড়িত ব্যক্তিকে ক্ষমা, হাঙ্গেরির প্রেসিডেন্টের পদত্যাগ

হাঙ্গেরির প্রেসিডেন্ট কাতালিন নোভাক পদত্যাগ করেছেন। শনিবার তিনি পদত্যাগের ঘোষণা দেন। খবর আল জাজিরার। এক শিশুর সঙ্গে ঘটে যাওয়া যৌন নিপীড়নের ঘটনা ধামাচাপা দিতে এক দোষীকে ক্ষমা করে দেওয়ার কেলেঙ্কারির দায় মাথায় নিয়ে উদ্ভূত চাপের মধ্যে তিনি পদত্যাগ করলেন।

রাষ্ট্রীয় টিভি চ্যানেলে সম্প্রচারিত ভাষণে নোভাক বলেন, আমি ভুল করেছি। প্রেসিডেন্ট হিসেবে আজ আমার শেষ ভাষণ। তিনি বলেন, গেল বছরের এপ্রিলে আমি ক্ষমা করার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলাম। আমি ভুল করেছি।

গেল শুক্রবার হাজার লোক দেশটির রাজধানীতে বিক্ষোভ করেন এবং প্রেসিডেন্টের পদত্যাগ দাবি করেন। হাঙ্গেরিয়ান বিরোধী দলগুলোও তার পদত্যাগ দাবি করে। নোভাক ২০২৩ সালের এপ্রিলে পোপ ফ্রান্সিসের সফরের আগে প্রায় দুই ডজন লোককে ক্ষমা করার সিদ্ধান্ত নেন। তাদের মধ্যে একটি শিশু সদনের উপ-পরিচালকও ছিলেন, যিনি প্রতিষ্ঠানটির পরিচালককে তার অপরাধ ঢাকতে সাহায্য করেছিলেন।

২০২২ সালে এন্দ্রে কে নামে ওই ব্যক্তির তিন বছর চার মাসের কারাদণ্ড হয় এবং তাকে পাঁচ বছরের জন্য সব কর্মকাণ্ড এবং তার পেশা থেকে নিষিদ্ধ করা হয়। তবে প্রেসিডেন্ট নোভাক ক্ষমা করে দেওয়ায় তিনি মুক্ত হন এবং পেশায় ফেরার অনুমোদন পান। মার্ট পপ নামে ভুক্তভোগীদের একজন নোভাকের কাছে ব্যাখ্যা চেয়ে বলেন, আপনার করুণা দেখানোর সিদ্ধান্ত যখন ভুক্তভোগীদের যথাযথ ন্যায়বিচার থেকে বঞ্চিত করে, তখন তা ভাষায় প্রকাশ করা কঠিন।

 

 

স/মিফা

যৌন নিপীড়নে জড়িত ব্যক্তিকে ক্ষমা, হাঙ্গেরির প্রেসিডেন্টের পদত্যাগ

আপডেট সময় : ১২:০৩:৪৪ অপরাহ্ন, সোমবার, ১২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

হাঙ্গেরির প্রেসিডেন্ট কাতালিন নোভাক পদত্যাগ করেছেন। শনিবার তিনি পদত্যাগের ঘোষণা দেন। খবর আল জাজিরার। এক শিশুর সঙ্গে ঘটে যাওয়া যৌন নিপীড়নের ঘটনা ধামাচাপা দিতে এক দোষীকে ক্ষমা করে দেওয়ার কেলেঙ্কারির দায় মাথায় নিয়ে উদ্ভূত চাপের মধ্যে তিনি পদত্যাগ করলেন।

রাষ্ট্রীয় টিভি চ্যানেলে সম্প্রচারিত ভাষণে নোভাক বলেন, আমি ভুল করেছি। প্রেসিডেন্ট হিসেবে আজ আমার শেষ ভাষণ। তিনি বলেন, গেল বছরের এপ্রিলে আমি ক্ষমা করার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলাম। আমি ভুল করেছি।

গেল শুক্রবার হাজার লোক দেশটির রাজধানীতে বিক্ষোভ করেন এবং প্রেসিডেন্টের পদত্যাগ দাবি করেন। হাঙ্গেরিয়ান বিরোধী দলগুলোও তার পদত্যাগ দাবি করে। নোভাক ২০২৩ সালের এপ্রিলে পোপ ফ্রান্সিসের সফরের আগে প্রায় দুই ডজন লোককে ক্ষমা করার সিদ্ধান্ত নেন। তাদের মধ্যে একটি শিশু সদনের উপ-পরিচালকও ছিলেন, যিনি প্রতিষ্ঠানটির পরিচালককে তার অপরাধ ঢাকতে সাহায্য করেছিলেন।

২০২২ সালে এন্দ্রে কে নামে ওই ব্যক্তির তিন বছর চার মাসের কারাদণ্ড হয় এবং তাকে পাঁচ বছরের জন্য সব কর্মকাণ্ড এবং তার পেশা থেকে নিষিদ্ধ করা হয়। তবে প্রেসিডেন্ট নোভাক ক্ষমা করে দেওয়ায় তিনি মুক্ত হন এবং পেশায় ফেরার অনুমোদন পান। মার্ট পপ নামে ভুক্তভোগীদের একজন নোভাকের কাছে ব্যাখ্যা চেয়ে বলেন, আপনার করুণা দেখানোর সিদ্ধান্ত যখন ভুক্তভোগীদের যথাযথ ন্যায়বিচার থেকে বঞ্চিত করে, তখন তা ভাষায় প্রকাশ করা কঠিন।

 

 

স/মিফা