০৭:২৯ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ২০ এপ্রিল ২০২৪, ৭ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

নতুন সিরিজ দিয়ে পর্দায় ফিরলেন নায়ক মান্না

ঢাকাই সিনেমার গণমানুষের নায়ক মান্না। দুই যুগেরও বেশি সময় বাংলা চলচ্চিত্রে দাপিয়ে বেড়িয়েছেন তিনি। ক্যারিয়ারে একের পর এক হিট সিনেমা উপর দিয়েছেন মান্না; যা আজও দাগ কেটে আছে সিনেমাপ্রেমীদের মনে। কিন্তু জনপ্রিয়তার তুঙ্গে থাকা অবস্থায় মান্না ২০০৮ সালের ১৭ ফেব্রুয়ারি মাত্র ৪৪ বছর বয়সে পাড়ি জমান না ফেরার দেশে। তবে সম্প্রতি জীবিতরূপে পর্দায় ফিরলেন অ্যাকশন হিরোর বেশে! মুক্তি প্রতীক্ষিত সায়েন্স ফিকশন সিরিজ ‘ব্ল্যাকস্টোন’-এ দেখা যাবে জীবন্ত মান্নাকে! এটি নির্মাণ করেছেন তরুণ নির্মাতা শাহরিয়ার গালিব।

সম্প্রতি প্রকাশ্যে এসেছে সিরিজটির ট্রেলার, যা প্রশংসা কুড়িয়ে নিয়েছে নেটিজেনদের। মন্তব্যঘরে একজন লিখেছেন, পুরোই হলিউড ভাইবস। গর্বের সহিত বলব- আমরাও পারি।’ প্রকাশিত ১ মিনিট ৬ সেকেন্ডের ট্রেলারে দেখা যায়, একটি পাথরখণ্ডের স্পর্শে বদলে যায় সিরিজটির প্রধান চরিত্রের জীবন। রয়েছে ধুন্ধুমার অ্যাকশনের আভাসও। আর শেষ দৃশ্যে দেখা মেলে প্রয়াত অভিনেতা মান্নার।

 

নির্মাতা শাহরিয়ার গালিব বলেন, এই সিরিজ নির্মাণে অনুপ্রাণিত হয়েছি জেমস ক্যামেরন ও ক্রিস্টোফার নোলানের কাছ থেকে। এখানে আমরা নায়ক মান্নাকে ট্রিবিউট করেছি। কারণ স্টার ওয়ার্স কিংবা অন্যান্য হলিউড মুভিতে দেখবেন প্রয়াত অভিনেতাদের কম্পিউটা কিংবা এআই প্রযুক্তির সাহায্যে আবারও অভিনয়ে ফেরানো হচ্ছে। এই জিনিসটি কিন্তু আমাদের এখানে অথবা বলিউডে তেমন প্রচলিত না। তাই ভাবলাম একবার চেষ্টা করে দেখি! অবশেষে কাজটি করলাম এবং ভালো সাড়া পাচ্ছি।

নির্মাতা জানান, সিরিজটি নিয়ে প্রয়াত চিত্রনায়ক মান্নার পরিবারের অনুমতি নেওয়ার জন্য বেশ কয়েকবার চেষ্টা করেছেন। কিন্তু এখনও যোগাযোগ করতে পারেননি। তবে তিনি মান্নার পরিবারের অনুমতি নেওয়ার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন।

 

‘ব্ল্যাকস্টোন’র গল্প প্রসঙ্গে শাহরিয়ার গালিব জানান, মহাকাশ থেকে একটা পাওয়ারফুল পাথর এসে পৃথিবীতে পড়ে। যেখানে পড়ে, সেখানে দৈবভাবে সিরিজটির প্রধান চরিত্রটিও থাকে। সে পাথরটি দেখতে পায় এবং ছুঁয়ে ফেলে। যে কারণে ওই পাথর থেকে একটা শক্তি তার ওপর ভর করে। সে এক ধরনের ম্যাজিক্যাল পাওয়ার পায়। এতে তার দৈনন্দিন জীবনে ব্যাঘাত ঘটে। সে আর আগের মতো স্বাভাবিক জীবনযাপন করতে পারে না। ছড়াতে থাকে গল্পের ডালপালা। এগিয়ে যায় কাহিনি।

ব্ল্যাকবক্স স্টুডিওর ব্যানারে নির্মিত এই সিরিজে অভিনয় করেছেন চট্টগ্রামের স্থানীয় অভিনয়শিল্পীরা। আছেন রাফি, রাজিব, শাহরিয়ার কবির প্রমুখ। প্রযোজনা করেছেন রবিউল করিম।

জনপ্রিয় সংবাদ

নতুন সিরিজ দিয়ে পর্দায় ফিরলেন নায়ক মান্না

আপডেট সময় : ০৩:২৭:৩৯ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৮ মার্চ ২০২৪

ঢাকাই সিনেমার গণমানুষের নায়ক মান্না। দুই যুগেরও বেশি সময় বাংলা চলচ্চিত্রে দাপিয়ে বেড়িয়েছেন তিনি। ক্যারিয়ারে একের পর এক হিট সিনেমা উপর দিয়েছেন মান্না; যা আজও দাগ কেটে আছে সিনেমাপ্রেমীদের মনে। কিন্তু জনপ্রিয়তার তুঙ্গে থাকা অবস্থায় মান্না ২০০৮ সালের ১৭ ফেব্রুয়ারি মাত্র ৪৪ বছর বয়সে পাড়ি জমান না ফেরার দেশে। তবে সম্প্রতি জীবিতরূপে পর্দায় ফিরলেন অ্যাকশন হিরোর বেশে! মুক্তি প্রতীক্ষিত সায়েন্স ফিকশন সিরিজ ‘ব্ল্যাকস্টোন’-এ দেখা যাবে জীবন্ত মান্নাকে! এটি নির্মাণ করেছেন তরুণ নির্মাতা শাহরিয়ার গালিব।

সম্প্রতি প্রকাশ্যে এসেছে সিরিজটির ট্রেলার, যা প্রশংসা কুড়িয়ে নিয়েছে নেটিজেনদের। মন্তব্যঘরে একজন লিখেছেন, পুরোই হলিউড ভাইবস। গর্বের সহিত বলব- আমরাও পারি।’ প্রকাশিত ১ মিনিট ৬ সেকেন্ডের ট্রেলারে দেখা যায়, একটি পাথরখণ্ডের স্পর্শে বদলে যায় সিরিজটির প্রধান চরিত্রের জীবন। রয়েছে ধুন্ধুমার অ্যাকশনের আভাসও। আর শেষ দৃশ্যে দেখা মেলে প্রয়াত অভিনেতা মান্নার।

 

নির্মাতা শাহরিয়ার গালিব বলেন, এই সিরিজ নির্মাণে অনুপ্রাণিত হয়েছি জেমস ক্যামেরন ও ক্রিস্টোফার নোলানের কাছ থেকে। এখানে আমরা নায়ক মান্নাকে ট্রিবিউট করেছি। কারণ স্টার ওয়ার্স কিংবা অন্যান্য হলিউড মুভিতে দেখবেন প্রয়াত অভিনেতাদের কম্পিউটা কিংবা এআই প্রযুক্তির সাহায্যে আবারও অভিনয়ে ফেরানো হচ্ছে। এই জিনিসটি কিন্তু আমাদের এখানে অথবা বলিউডে তেমন প্রচলিত না। তাই ভাবলাম একবার চেষ্টা করে দেখি! অবশেষে কাজটি করলাম এবং ভালো সাড়া পাচ্ছি।

নির্মাতা জানান, সিরিজটি নিয়ে প্রয়াত চিত্রনায়ক মান্নার পরিবারের অনুমতি নেওয়ার জন্য বেশ কয়েকবার চেষ্টা করেছেন। কিন্তু এখনও যোগাযোগ করতে পারেননি। তবে তিনি মান্নার পরিবারের অনুমতি নেওয়ার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন।

 

‘ব্ল্যাকস্টোন’র গল্প প্রসঙ্গে শাহরিয়ার গালিব জানান, মহাকাশ থেকে একটা পাওয়ারফুল পাথর এসে পৃথিবীতে পড়ে। যেখানে পড়ে, সেখানে দৈবভাবে সিরিজটির প্রধান চরিত্রটিও থাকে। সে পাথরটি দেখতে পায় এবং ছুঁয়ে ফেলে। যে কারণে ওই পাথর থেকে একটা শক্তি তার ওপর ভর করে। সে এক ধরনের ম্যাজিক্যাল পাওয়ার পায়। এতে তার দৈনন্দিন জীবনে ব্যাঘাত ঘটে। সে আর আগের মতো স্বাভাবিক জীবনযাপন করতে পারে না। ছড়াতে থাকে গল্পের ডালপালা। এগিয়ে যায় কাহিনি।

ব্ল্যাকবক্স স্টুডিওর ব্যানারে নির্মিত এই সিরিজে অভিনয় করেছেন চট্টগ্রামের স্থানীয় অভিনয়শিল্পীরা। আছেন রাফি, রাজিব, শাহরিয়ার কবির প্রমুখ। প্রযোজনা করেছেন রবিউল করিম।