০৫:২১ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২২ এপ্রিল ২০২৪, ৮ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

যেভাবে মারা গেলেন নীল তারকা জেসি

মার্কিন নীল সিনেমার আলোচিত তারকা জেসি জেনি। ৪৩ বছর বয়সে তিনি মারা যান। বুধবার যুক্তরাষ্ট্রের ওকলাহোমার বাসভবনে জেসির লাশ পাওয়া গেছে। এ সময় ঘটনাস্থল থেকে তার প্রেমিক হাসেন মুলারকে মৃত অবস্থায় উদ্ধার করা হয়।

 

এনডিটিভির খবরে বলা হয়েছে, তিনি অতিরিক্ত মদপান করেছিলেন। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৪৩ বছর। ‘দ্য নিউইয়র্ক টাইমস’ পত্রিকার খবরেও তার মৃত্যুর খবর প্রকাশ করা হয়েছে।

এই নীল তারকা ২০০৩ সালে অ্যাডাল্ট ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রিতে যাত্রা করেন। পামেলা অ্যান্ডারসনের সঙ্গে ‘বেওয়াচ: হাওয়াইয়ান ওয়েডিং’-এ স্ক্রিনও শেয়ার করেছেন তিনি।

এছাড়া প্লেবয় চ্যানেলের শো ‘নটি অ্যামেচার্স হোম ভিডিয়োজ’ ও ‘নাইট কলস’-এ সঞ্চালিকার ভূমিকাতেও দেখা গেছে।

২০০৪ সালে জেসি এইচবিও সিরিজ ‘স্টারস্কাই অ্যান্ড হাচ’ ও ‘এনট্য়ুরেজ’-এ অভিনয় করেছেন। এখন পর্যন্ত পর্নোগ্রাফিক সিনেমার ইতিহাসে সবচেয়ে ব্যয়বহুল সিনেমার নাম ‘পাইরেটস’। ‘পাইরেটস’ সিরিজে জুলসের চরিত্রে জেসি সবার নজর কেড়েছিলেন। মুর হাই স্কুল থেকে ১৯৯৮ সালে জেসি স্নাতক হয়েছিলেন। পর্নোগ্রাফিক অভিনেত্রী ও মডেল হিসেবে জেসির পরিচিতি।

এই অভিনেত্রী এভিএন ও এক্সআরসিও হল অফ ফেমেও ঠাঁই পেয়েছেন। অ্যাডাল্ট ইন্ডাস্ট্রিতে তার কর্মজীবনে অসংখ্য পুরস্কার লাভ করেছেন।

জেসি পর্নোতারকাদের মধ্যে একজন ছিলেন, যিনি নীল সিনেমার জগত থেকে হলিউডে পা রেখেছিলেন। বেশ কিছু সিনেমা ও সিরিজেও কাজ করেছেন।

জনপ্রিয় সংবাদ

যেভাবে মারা গেলেন নীল তারকা জেসি

আপডেট সময় : ০৫:৪৪:২৪ অপরাহ্ন, সোমবার, ১ এপ্রিল ২০২৪

মার্কিন নীল সিনেমার আলোচিত তারকা জেসি জেনি। ৪৩ বছর বয়সে তিনি মারা যান। বুধবার যুক্তরাষ্ট্রের ওকলাহোমার বাসভবনে জেসির লাশ পাওয়া গেছে। এ সময় ঘটনাস্থল থেকে তার প্রেমিক হাসেন মুলারকে মৃত অবস্থায় উদ্ধার করা হয়।

 

এনডিটিভির খবরে বলা হয়েছে, তিনি অতিরিক্ত মদপান করেছিলেন। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৪৩ বছর। ‘দ্য নিউইয়র্ক টাইমস’ পত্রিকার খবরেও তার মৃত্যুর খবর প্রকাশ করা হয়েছে।

এই নীল তারকা ২০০৩ সালে অ্যাডাল্ট ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রিতে যাত্রা করেন। পামেলা অ্যান্ডারসনের সঙ্গে ‘বেওয়াচ: হাওয়াইয়ান ওয়েডিং’-এ স্ক্রিনও শেয়ার করেছেন তিনি।

এছাড়া প্লেবয় চ্যানেলের শো ‘নটি অ্যামেচার্স হোম ভিডিয়োজ’ ও ‘নাইট কলস’-এ সঞ্চালিকার ভূমিকাতেও দেখা গেছে।

২০০৪ সালে জেসি এইচবিও সিরিজ ‘স্টারস্কাই অ্যান্ড হাচ’ ও ‘এনট্য়ুরেজ’-এ অভিনয় করেছেন। এখন পর্যন্ত পর্নোগ্রাফিক সিনেমার ইতিহাসে সবচেয়ে ব্যয়বহুল সিনেমার নাম ‘পাইরেটস’। ‘পাইরেটস’ সিরিজে জুলসের চরিত্রে জেসি সবার নজর কেড়েছিলেন। মুর হাই স্কুল থেকে ১৯৯৮ সালে জেসি স্নাতক হয়েছিলেন। পর্নোগ্রাফিক অভিনেত্রী ও মডেল হিসেবে জেসির পরিচিতি।

এই অভিনেত্রী এভিএন ও এক্সআরসিও হল অফ ফেমেও ঠাঁই পেয়েছেন। অ্যাডাল্ট ইন্ডাস্ট্রিতে তার কর্মজীবনে অসংখ্য পুরস্কার লাভ করেছেন।

জেসি পর্নোতারকাদের মধ্যে একজন ছিলেন, যিনি নীল সিনেমার জগত থেকে হলিউডে পা রেখেছিলেন। বেশ কিছু সিনেমা ও সিরিজেও কাজ করেছেন।