১১:৫৬ অপরাহ্ন, বুধবার, ১২ জুন ২০২৪, ২৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

চবিতে ‘সাংস্কৃতিক জোট’ সংগঠনের উদ্ব্যোগে শীতকালীন পিঠা উৎসব

‘নতুন ধানে, নতুন প্রাণে চলো মাতি পিঠার গানে’ এই স্লোগানকে সামনে রেখে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় সাংস্কৃতিক জোট সংগঠনের উদ্ব্যোগে আয়োজন করে  দিনব্যাপী পিঠা উৎসব-২০২৪ ও সাংস্কৃতিক আয়োজন। সাংস্কৃতিক জোটের সংগঠনগুলো হলো
চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় অঙ্গন, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় আবৃত্তি মঞ্চ, প্রথম আলো বন্ধুসভা, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় ভিন্নষড়জ, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়।
সোমবার (৫ ফেব্রুয়ারি) বেলা ১১ টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় শহিদ মিনারে এই শীতকালীন পিঠা উৎসব অনুষ্ঠিত হয়।
পিঠা বাঙালিদের ঐতিহ্যবাহী খাবার। শীতের এই কুয়াশামাখা সময়ে পিঠে-পুলি ছাড়া বাঙালিপনা যেন একেবারে জমেই না। এই উৎসবে বিশ্ববিদ্যালয় সাংস্কৃতিক সংগঠনগুলোর ভ্রাম্যমাণ দোকানে প্রায় ৫০ রকমের পিঠার স্টল দেখা যায়।
২০১৭-২০১৮ সেশনের প্রিয়া মনি চাকমা বলেন, এই আয়োজনটা আমাদের কাছে একটা উৎসবের মত। আমরা এই আয়োজনের মাধ্যমে শীতকালীন পিঠা যেন, সবার মাঝে পৌছাতে পারি। আমরা আমাদের পরবর্তী প্রজন্মের কাছে শীতের আয়োজনের ঐতিহ্যটা ধরে রাখার উৎসাহ দেওয়ার জন্য এই আয়োজন। আয়োজনে প্রায় ১৬ প্রকারের পিঠা বানিয়েছি। আমাদের থেকে খুব ভালো লাগে এমন আয়োজনটা করতে পেরে।
২০১৭-২০১৮ সেশনের অনামিকা বর্ম বলেন, আমরা আমাদের আগ্রহ থেকে এই আয়োজন করেছি। আমরা আমাদের এই আয়োজনের মাধ্যমে সবার কাছে শীতকালীন পিঠা খাওয়ার যে আনন্দ সে আনন্দটা পৌছে দিচ্ছি। এই আয়োজন করতে পেরে আমাদের থেকেও খুব আনন্দ লাগতেছে।
এই আয়োজনটাতে খুব উৎসব মুখোর পরিবেশ ছিল। পিঠা উৎসবে এসে ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিভাগের ২০২০-২০২১ সেশনের শিক্ষার্থী আইয়ুবুর রহমান তৌফিক বলেন, আমি এই আয়োজনে এসে খুব ভালো লাগলো।
আমি নিজে এখান থেকে পিঠা খেয়েছি আমার থেকে পিঠাগুলো ভালো লেগেছে। আসলে শীতকালীন এই পিঠার উৎসবটার মাধ্যমে আমরা শীতকালীন পিঠা খাওয়ার আনন্দটা নিতে পারি। যারা যারা এই আয়োজন করেছে তাদের প্রত্যেকের জন্য শুভকামনা।
জনপ্রিয় সংবাদ

টিউশনের নামে প্রতারণার ফাঁদ

চবিতে ‘সাংস্কৃতিক জোট’ সংগঠনের উদ্ব্যোগে শীতকালীন পিঠা উৎসব

আপডেট সময় : ০৬:২১:৩৭ অপরাহ্ন, সোমবার, ৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪
‘নতুন ধানে, নতুন প্রাণে চলো মাতি পিঠার গানে’ এই স্লোগানকে সামনে রেখে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় সাংস্কৃতিক জোট সংগঠনের উদ্ব্যোগে আয়োজন করে  দিনব্যাপী পিঠা উৎসব-২০২৪ ও সাংস্কৃতিক আয়োজন। সাংস্কৃতিক জোটের সংগঠনগুলো হলো
চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় অঙ্গন, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় আবৃত্তি মঞ্চ, প্রথম আলো বন্ধুসভা, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় ভিন্নষড়জ, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়।
সোমবার (৫ ফেব্রুয়ারি) বেলা ১১ টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় শহিদ মিনারে এই শীতকালীন পিঠা উৎসব অনুষ্ঠিত হয়।
পিঠা বাঙালিদের ঐতিহ্যবাহী খাবার। শীতের এই কুয়াশামাখা সময়ে পিঠে-পুলি ছাড়া বাঙালিপনা যেন একেবারে জমেই না। এই উৎসবে বিশ্ববিদ্যালয় সাংস্কৃতিক সংগঠনগুলোর ভ্রাম্যমাণ দোকানে প্রায় ৫০ রকমের পিঠার স্টল দেখা যায়।
২০১৭-২০১৮ সেশনের প্রিয়া মনি চাকমা বলেন, এই আয়োজনটা আমাদের কাছে একটা উৎসবের মত। আমরা এই আয়োজনের মাধ্যমে শীতকালীন পিঠা যেন, সবার মাঝে পৌছাতে পারি। আমরা আমাদের পরবর্তী প্রজন্মের কাছে শীতের আয়োজনের ঐতিহ্যটা ধরে রাখার উৎসাহ দেওয়ার জন্য এই আয়োজন। আয়োজনে প্রায় ১৬ প্রকারের পিঠা বানিয়েছি। আমাদের থেকে খুব ভালো লাগে এমন আয়োজনটা করতে পেরে।
২০১৭-২০১৮ সেশনের অনামিকা বর্ম বলেন, আমরা আমাদের আগ্রহ থেকে এই আয়োজন করেছি। আমরা আমাদের এই আয়োজনের মাধ্যমে সবার কাছে শীতকালীন পিঠা খাওয়ার যে আনন্দ সে আনন্দটা পৌছে দিচ্ছি। এই আয়োজন করতে পেরে আমাদের থেকেও খুব আনন্দ লাগতেছে।
এই আয়োজনটাতে খুব উৎসব মুখোর পরিবেশ ছিল। পিঠা উৎসবে এসে ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিভাগের ২০২০-২০২১ সেশনের শিক্ষার্থী আইয়ুবুর রহমান তৌফিক বলেন, আমি এই আয়োজনে এসে খুব ভালো লাগলো।
আমি নিজে এখান থেকে পিঠা খেয়েছি আমার থেকে পিঠাগুলো ভালো লেগেছে। আসলে শীতকালীন এই পিঠার উৎসবটার মাধ্যমে আমরা শীতকালীন পিঠা খাওয়ার আনন্দটা নিতে পারি। যারা যারা এই আয়োজন করেছে তাদের প্রত্যেকের জন্য শুভকামনা।