০৮:০৯ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ২০ এপ্রিল ২০২৪, ৭ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

আড়াই ঘণ্টার রুদ্ধশ্বাস অভিযানে নয়ন বাহিনীর সেকেন্ড-ইন-কমান্ড পিয়াসকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ

মুন্সীগঞ্জের গজারিয়ায় মেঘনা নদীতে ডাকাতির প্রস্তুতিকালে পুলিশের বিশেষ অভিযানে গজারিয়ার শীর্ষ সন্ত্রাসী ও নৌ-ডাকাত নয়ন বাহিনীর সেকেন্ড-ইন-কমান্ড পিয়াস ওরফে ডাকাত পিয়াসকে (৩৩) গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।বুধবার (২০ মার্চ) দুপুর ৩টার দিকে উপজেলার গুয়াগাছিয়া ইউনিয়নের মেঘনা নদীর পাড়ে পুলিশ এই বিশেষ অভিযান চালায়।
অভিযানের সময় নৌ-ডাকাতরা পুলিশকে উদ্দেশ্য করে কয়েক রাউন্ড গুলি এবং ইট পাটকেল নিক্ষেপ করলে তিন পুলিশ সদস্য আহত হন বলে জানা গেছে। ঘটনাস্থল থেকে একটি বন্দুকসহ কিছু অস্ত্র উদ্ধার করেছে পুলিশ।
আটক পিয়াস সরকারের বাড়ি উপজেলার গুয়াগাছিয়া ইউনিয়নের জামালপুর গ্রামে। তাঁর বিরুদ্ধে গজারিয়া থানাসহ বিভিন্ন থানায় অস্ত্র, মাদক, নদীতে ডাকাতি, মারামারির অভিযোগে ২৩টি মামলা রয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।
গজারিয়া থানা সূত্রে জানা গেছে,  আজ দুপুর ৩টার দিকে বিশেষ অভিযান চালিয়ে পিয়াসকে গ্রেপ্তার করা হয়। পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে থেকে একটি এক নলা বন্ধুক, দুটি কার্তুজ, তিনটি তাজা ককটেল ও কিছু দেশীয় অস্ত্র উদ্ধার করেছে।
গজারিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. রাজিব খান বলেন, সদর-গজারিয়া সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার থান্দার খায়রুল হাসানের নেতৃত্বে নয়ন বাহিনীর বিরুদ্ধে আজকে আমরা একটি বিশেষ অভিযান পরিচালনা করি। এ সময় নৌডাকাত নয়ন বাহিনীর প্রধান নয়নকে পাওয়া না গেলেও সেকেন্ড-ইন-কমান্ড পিয়াসকে পাওয়া যায়। পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে পিয়াস ও তার সহযোগীরা পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি, ককটেল এবং ইট পাটকেল নিক্ষেপ শুরু করে। আত্মরক্ষার্থে পুলিশও পাল্টা গুলি চালায়। অভিযানে পিয়াসকে গ্রেপ্তার করা হলেও তাঁর সহযোগীরা পালিয়ে যায়। সন্ত্রাসীদের হামলায় আহত হন তিন পুলিশ সদস্য। অভিযানে পুলিশ ১০ রাউন্ড গুলি করেছে। ঘটনাস্থল থেকে একটি এক নলা বন্দুক, দুটি কার্টুজ, তিনটি ককটেলসহ কিছু দেশীয় অস্ত্র উদ্ধার করা হয়েছে।
এ নয়ন বাহিনী বিগত কয়েক বছর যাবত মুন্সিগঞ্জ, চাঁদপুর,নারায়ণগঞ্জ জেলার নদীগুলোতে নৌ পথে ডাকাতি করে থাকতো।পিয়াস সহ নয়ন ডাকাতের  বিরুদ্ধে বিভিন্ন জেলায় একাধিক মামলা রয়েছে।
মুন্সীগঞ্জ সদর-গজারিয়া সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার থান্দার খায়রুল হাসান বলেন, গোপন সূত্রে আমরা খবর পাই পিয়াসের নেতৃত্বে নয়ন বাহিনীর লোকজন নদীতে ডাকাতির প্রস্তুতি নিচ্ছে। এমন খবরের ভিত্তিতে আমরা একটি বিশেষ অভিযান চালাই। আড়াই ঘণ্টার রুদ্ধশ্বাস অভিযানে নয়ন বাহিনীর সেকেন্ড-ইন-কমান্ড পিয়াসকে গ্রেপ্তার করতে সক্ষম হয়েছি। সন্ত্রীদের বিরুদ্ধে আমাদের অভিযান অব্যাহত থাকবে।
জনপ্রিয় সংবাদ

আড়াই ঘণ্টার রুদ্ধশ্বাস অভিযানে নয়ন বাহিনীর সেকেন্ড-ইন-কমান্ড পিয়াসকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ

আপডেট সময় : ১০:১০:২৫ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২১ মার্চ ২০২৪
মুন্সীগঞ্জের গজারিয়ায় মেঘনা নদীতে ডাকাতির প্রস্তুতিকালে পুলিশের বিশেষ অভিযানে গজারিয়ার শীর্ষ সন্ত্রাসী ও নৌ-ডাকাত নয়ন বাহিনীর সেকেন্ড-ইন-কমান্ড পিয়াস ওরফে ডাকাত পিয়াসকে (৩৩) গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।বুধবার (২০ মার্চ) দুপুর ৩টার দিকে উপজেলার গুয়াগাছিয়া ইউনিয়নের মেঘনা নদীর পাড়ে পুলিশ এই বিশেষ অভিযান চালায়।
অভিযানের সময় নৌ-ডাকাতরা পুলিশকে উদ্দেশ্য করে কয়েক রাউন্ড গুলি এবং ইট পাটকেল নিক্ষেপ করলে তিন পুলিশ সদস্য আহত হন বলে জানা গেছে। ঘটনাস্থল থেকে একটি বন্দুকসহ কিছু অস্ত্র উদ্ধার করেছে পুলিশ।
আটক পিয়াস সরকারের বাড়ি উপজেলার গুয়াগাছিয়া ইউনিয়নের জামালপুর গ্রামে। তাঁর বিরুদ্ধে গজারিয়া থানাসহ বিভিন্ন থানায় অস্ত্র, মাদক, নদীতে ডাকাতি, মারামারির অভিযোগে ২৩টি মামলা রয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।
গজারিয়া থানা সূত্রে জানা গেছে,  আজ দুপুর ৩টার দিকে বিশেষ অভিযান চালিয়ে পিয়াসকে গ্রেপ্তার করা হয়। পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে থেকে একটি এক নলা বন্ধুক, দুটি কার্তুজ, তিনটি তাজা ককটেল ও কিছু দেশীয় অস্ত্র উদ্ধার করেছে।
গজারিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. রাজিব খান বলেন, সদর-গজারিয়া সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার থান্দার খায়রুল হাসানের নেতৃত্বে নয়ন বাহিনীর বিরুদ্ধে আজকে আমরা একটি বিশেষ অভিযান পরিচালনা করি। এ সময় নৌডাকাত নয়ন বাহিনীর প্রধান নয়নকে পাওয়া না গেলেও সেকেন্ড-ইন-কমান্ড পিয়াসকে পাওয়া যায়। পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে পিয়াস ও তার সহযোগীরা পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি, ককটেল এবং ইট পাটকেল নিক্ষেপ শুরু করে। আত্মরক্ষার্থে পুলিশও পাল্টা গুলি চালায়। অভিযানে পিয়াসকে গ্রেপ্তার করা হলেও তাঁর সহযোগীরা পালিয়ে যায়। সন্ত্রাসীদের হামলায় আহত হন তিন পুলিশ সদস্য। অভিযানে পুলিশ ১০ রাউন্ড গুলি করেছে। ঘটনাস্থল থেকে একটি এক নলা বন্দুক, দুটি কার্টুজ, তিনটি ককটেলসহ কিছু দেশীয় অস্ত্র উদ্ধার করা হয়েছে।
এ নয়ন বাহিনী বিগত কয়েক বছর যাবত মুন্সিগঞ্জ, চাঁদপুর,নারায়ণগঞ্জ জেলার নদীগুলোতে নৌ পথে ডাকাতি করে থাকতো।পিয়াস সহ নয়ন ডাকাতের  বিরুদ্ধে বিভিন্ন জেলায় একাধিক মামলা রয়েছে।
মুন্সীগঞ্জ সদর-গজারিয়া সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার থান্দার খায়রুল হাসান বলেন, গোপন সূত্রে আমরা খবর পাই পিয়াসের নেতৃত্বে নয়ন বাহিনীর লোকজন নদীতে ডাকাতির প্রস্তুতি নিচ্ছে। এমন খবরের ভিত্তিতে আমরা একটি বিশেষ অভিযান চালাই। আড়াই ঘণ্টার রুদ্ধশ্বাস অভিযানে নয়ন বাহিনীর সেকেন্ড-ইন-কমান্ড পিয়াসকে গ্রেপ্তার করতে সক্ষম হয়েছি। সন্ত্রীদের বিরুদ্ধে আমাদের অভিযান অব্যাহত থাকবে।