০৭:১৩ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৮ মে ২০২৪, ১৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ভোটের আমেজে শঙ্কা

  • প্রথম দফার ১৩৯ উপজেলায় ভোটগ্রহণ আজ
  • অনুপ্রবেশ ঠেকাতে যানবাহন চলাচলে বিধিনিষেধ
  • শেষ মুহূর্তে সরিষাবাড়ী ও নাঙ্গলকোটে ভোট স্থগিত
  • সিরাজগঞ্জে ৫ প্রিসাইডিং কর্মকর্তাসহ ছয়জন কারাগারে
  • ভোটের আগের দিন কারাগারে ফরিদপুর সদরের চেয়ারম্যান প্রার্থী

আলোচিত ষষ্ঠ উপজেলা পরিষদের প্রথম দফার নির্বাচন অনুষ্ঠিত হচ্ছে আজ বুধবার। সকাল ৮টা থেকে ভোটগ্রহণ শুরু হয়ে চলবে বিকাল ৪টা পর্যন্ত। প্রথম দফায় মোট ১৫২টি উপজেলায় নির্বাচনের কথা থাকলেও তফসিল ঘোষণার পর বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতা, স্থগিত ও ধাপ পরিবর্তনের কারণে কিছু বাদ দেওয়ার পর আজ ১৩৯টি উপজেলায় ভোটগ্রহণ করা হবে। বিভিন্ন কারণে নির্বাচনের আগের দিনও সরিষাবাড়ি ও নাঙ্গলকোট উপজেলার ভোট স্থগিত করা হয়েছে। এদিকে নির্বাচনের প্রচারণা পর্বে বিভিন্ন স্থানে সংঘাত-সহিংসতা বৃদ্ধি পাওয়ায় ভোট সুষ্ঠু হওয়া ও ভোটার উপস্থিতি নিয়ে রয়েছে শঙ্কা। যদিও ভোটের দিন কেন্দ্রগুলোতে কড়া নিরাপত্তাব্যবস্থা নেওয়ার কথা জানিয়েছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)।

জাতীয় পার্টির ৪ জন প্রার্থী। এর বাইরে জেপির দুই জন, ওয়ার্কার্স পার্টি ও জাসদের প্রার্থী একজন। তবে অধিকাংশ উপজেলাতেই আওয়ামী লীগের একাধিক প্রার্থী নির্বাচনে অংশ নিচ্ছেন। এ ছাড়াও প্রায় ২৮ উপজেলায় বিএনপির নেতারা চেয়ারম্যান প্রার্থী হয়েছেন। ফলে ১ম ধাপের ভোটের ফলাফলের দিকে নজর রয়েছে দেশেবাসীর। এ ছাড়া সারা দেশে আওয়ামী লীগের একাধিক প্রার্থী থাকায় দলটির তৃণমূলে অভ্যন্তরীণ কোন্দল বেড়েছে। যা সংঘাতের পর্যায়ে পৌঁছেছে। তফসিল ঘোষণার পর থেকে সংঘাত-সহিংসতায় প্রায় দেড়শতাধিক মানুষ আহত হয়েছেন।

ফলে নির্বাচন কমিশন থেকে সুষ্ঠু ভোট বাস্তবায়নে পদক্ষেপ নেওয়া হলেও শঙ্কা রয়েছে। নির্বাচন অবাধ, সুষ্ঠু, নিরপেক্ষ করতে সব ধরনের প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কাজী হাবিবুল আওয়াল বলেছেন, এ নির্বাচনের জন্য যা যা করণীয় সব ধরনের প্রস্তুতি গ্রহণ করেছি। যাতে নির্বাচনটা অবাধ, নিরপেক্ষ হয়। যাতে নির্বাচন অবাধ, সুষ্ঠু নিরপেক্ষ হয় সে লক্ষ্যে বিভাগ, জেলা পর্যায়ে কমিশন মতবিনিময়ও করেছে। আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্য মোতায়েন ও টহলের সুবিধার্থে ধাপে ধাপে ভোটের ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। এবার ইভিএম এর মাধ্যমে ২২টি উপজেলায় নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। বাকি উপজেলাগুলোতে ব্যালট পেপারে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। ইসি সূত্র জানায়, নির্বাচনে ভোটার উপস্থিতিই বড় চ্যালেঞ্জ। তবে বিশ্লেষকরা মনে করছেন, প্রার্থীরা নিজেদের ভোটারদের কেন্দ্রে আনতে পারলে ভোটার উপস্থিতি বাড়বে। নির্বাচন ঘিরে সব ধরনের প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে ইসি। এরই মধ্যে দুর্গম এলাকার কেন্দ্রগুলোতে ব্যালট পেপার গতকাল মঙ্গলবার পৌঁছেছে। রাঙামাটির সিনিয়র জেলা নির্বাচন অফিসার ও রিটার্নিং কর্মকর্তা মোহাম্মদ মনির হোসেন জানিয়েছেন, ৪ উপজেলার মোট ৯২টি ভোটকেন্দ্রের মধ্যে দুর্গম ৫৬টি কেন্দ্রে নির্বাচনী সরঞ্জাম পাঠানো হয়েছে। বাকি ৩২টি কেন্দ্রে ভোটের দিন সকালে সরঞ্জামাদি পৌঁছানো হবে। বাকি উপজেলাগুলোতে আজ সকালে ব্যালট বাক্স পৌঁছাবে। সেখানে প্রার্থীর এজেন্ট ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর উপস্থিতিতে ব্যালট বাক্স পরীক্ষা শেষে ভোটগ্রহণ শুরু হবে। নির্বাচনে কোনো দলের অংশগ্রহণ করা না করাটা অনেক বড় ইস্যু বাংলাদেশে। কেননা সেই দলটি নির্বাচনকে ডামি নির্বাচন অভিহিত করে এতে অংশগ্রহণ না করার জন্য জনগণকে আহ্বান জানিয়েছে। এদিকে দল আওয়ামী লীগ মন্ত্রী এমপিদের আত্মীয়-স্বজনদের নির্বাচনে অংশগ্রহণ না করতে নির্দেশনা দিয়েছে। এমন পরিস্থিতিতে সিইসি বলেছেন, উপজেলা ভোট নিয়ে আমরা কোনো ধরনের বেকায়দায় নেই। একটা ভালো দিক হচ্ছে রাজনৈতিক সদিচ্ছা বিকশিত হয়েছে।

এই সদিচ্ছা নির্বাচনকে অবাধ ও নিরপেক্ষ করতে সহায়ক হবে। তার পরও যদি কোনো সংসদ সদস্য প্রভাব বিস্তার করে থাকেন অভিযোগ পেলে তাৎক্ষণিক ব্যবস্থা নেওয়ার চেষ্টা করি। ভোটের দিন আমরা সতর্ক থাকব, কেন্দ্রীয়ভাবে মনিটরিং করব। তিনি বলেন, নির্বাচনে আমরা সবার সহযোগিতা প্রত্যাশা করি। সংশ্লিষ্টরা নিয়মকানুন প্রতিপালন করলে নির্বাচনটা সহজ হবে। তারা যদি বিশৃঙ্খলা তৈরি করে আইনশৃঙ্খলা রক্ষা করা দুরূহ হবে। এবার কিছু পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে এবং প্রার্থীসহ সবার সঙ্গে মতবিনিময় করা হয়েছে। নির্বাচনটাকে স্বচ্ছ করার চেষ্টা করছি। প্রত্যেকটা অভিযোগ খতিয়ে দেখা হচ্ছে। তদন্ত করে কারো কারো প্রার্থিতা বাতিল করা হয়েছে। নির্বাচন যাতে প্রভাবিত না হয়, সেজন্যে ইসির তরফ থেকে সব ধরনের চেষ্টা করে যাচ্ছি। তিনি বলেন, মন্ত্রী-এমপিদের নিবৃত্ত করা হয়েছে, প্রভাব বিস্তারের কারণে কিছু কিছু ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। বিশেষ করে নির্বাচনের দিন কেউ যেন ভোটকেন্দ্রে অনুপ্রবেশ করতে না পারে এবং সেখানে যেন অনিয়ম না হয় সে বিষয়ে নির্দেশনা রয়েছে। সিইসি বলেন, কে কোন দল করে আমরা জানি না।

নির্বাচন আয়োজন করা আমাদের কাজ। কে দাঁড়ালো, কে দাঁড়ালো না, আমাদের কাছে সবাই প্রার্থী। আমরা দেখছি প্রতিদ্বন্দ্বিতা হচ্ছে। কেউ এলো কি, কেউ এলো না, তা নয়। প্রতিটি উপজেলায় অন্তত চারজন করে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছে। দলীয় প্রতিদ্বন্দ্বিতা দেখতে যাচ্ছি না, প্রার্থীদের প্রতিদ্বন্দ্বিতা হচ্ছে। গতকাল বিকালে নির্বাচনী আচরণবিধি লঙ্ঘনের দায়ে জামালপুরের সরিষাবাড়ী উপজেলা পরিষদের নির্বাচন স্থগিত করা হয়েছে। শেষ মুহূর্তে নির্বাচন আচরণ বিধি লঙ্ঘনের অভিযোগ উঠেছে সাবেক স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক এমপির বিরুদ্ধে। তার ফুফাত ভাই মো. ইসরাফীল হোসেনের পক্ষে প্রচার চালাচ্ছেন বলে অভিযোগ করেছেন প্রার্থী ও জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক সুদেব কুমার সাহা। গাজীপুর সদর উপজেলার চারটি ইউনিয়নে মোট ৪৯টি ভোটকেন্দ্রের মধ্যে ২০ কেন্দ্রই ঝুঁকিপূর্ণ, ২৯টি কম ঝুঁকিপূর্ণ। এ ব্যাপারে গাজীপুরের পুলিশ সুপার কাজী শফিকুল আলম বলেন, ঝুঁকিপূর্ণ কেন্দ্রগুলোতে র‍্যাব, পুলিশ ও আনসার মোতায়েন করা হবে। সার্বিক নিরাপত্তায় আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা সার্বক্ষণিক প্রস্তুত থাকবে। প্রথম দফার নির্বাচনে তফসিল হয়েছিল ১৫২টিতে, মনোনয়নপত্র জমা পড়ে ১৫০টিতে। ধাপ পরিবর্তন ও বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতার পরে আজ ১৩৯টি উপজেলায় ভোট হবে।

প্রতিদ্বন্দ্বিতায় ১ হাজার ৭৩৫ জন। এর মধ্যে চেয়ারম্যান ৫৭০ জন, সাধারণ ভাইস চেয়ারম্যান ৬২৫ জন ও সংরক্ষিত নারী ভাইস চেয়ারম্যান ৪৪০ জন। বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত ২৮ জন (চেয়ারম্যান ৮ জন, সাধারণ ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান ১০ জন করে)। তিন পদে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় জয়ী হয়েছে ৫ উপজেলায়- হাতিয়া, মুন্সীগঞ্জ সদর, বাগেরহাট সদর, পরশুরাম ও শিবচর। এদিকে জামালপুরের সরিষাবাড়ী উপজেলা পরিষদের নির্বাচন স্থগিত করেছে নির্বাচন কমিশন। ভোটের আগের দিন গতকাল মঙ্গলবার বিকালে রিটার্নিং কর্মকর্তার কাছে এ সংক্রান্ত নির্দেশনা পাঠিয়েছেন ইসির উপসচিব আতিয়ার রহমান। অন্যদিকে কুমিল্লার নাঙ্গলকোট উপজেলা পরিষদ নির্বাচন স্থগিত করেছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে ছালেহা বেগম আদালতের রায়ে নির্বাচনের একদিন আগে প্রার্থিতা ফিরে পাওয়ায় ওই নির্বাচন স্থগিত করা হয়। এবারের নির্বাচনের ভোটার প্রায় ৩ কোটি ১৪ লাখ। ভোটকেন্দ্র প্রায় ১২ হাজার। প্রায় ভোট কক্ষ ৭৮ হাজার। প্রতিটি সাধারণ ভোটকেন্দ্রে ১৭ জন সদস্য ও গুরুত্বপূর্ণ ভোটকেন্দ্রে ১৮-১৯ জন করে নিরাপত্তায় নিয়োজিত থাকবেন। দুর্গম এলাকায় সাধারণ কেন্দ্রে ১৯ জন এবং গুরুত্বপূর্ণ কেন্দ্রে ২০/২১ জন করে নিরাপত্তা সদস্য থাকবে। প্রথম ধাপে নির্বাহী হাকিম রয়েছে ১৫০ জন যারা এরই মধ্যে নিয়োজিত, ভোটের আগে আইন শৃঙ্খলাবাহিনীর সঙ্গে আরও সমসংখ্যক যোগ দেবেন।

জ্বালানি ও বিদ্যুৎ খাতে রাশিয়ান বিনিয়োগের আহ্বান ঢাকা চেম্বারের

ভোটের আমেজে শঙ্কা

আপডেট সময় : ০৮:৩৬:২২ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ৮ মে ২০২৪
  • প্রথম দফার ১৩৯ উপজেলায় ভোটগ্রহণ আজ
  • অনুপ্রবেশ ঠেকাতে যানবাহন চলাচলে বিধিনিষেধ
  • শেষ মুহূর্তে সরিষাবাড়ী ও নাঙ্গলকোটে ভোট স্থগিত
  • সিরাজগঞ্জে ৫ প্রিসাইডিং কর্মকর্তাসহ ছয়জন কারাগারে
  • ভোটের আগের দিন কারাগারে ফরিদপুর সদরের চেয়ারম্যান প্রার্থী

আলোচিত ষষ্ঠ উপজেলা পরিষদের প্রথম দফার নির্বাচন অনুষ্ঠিত হচ্ছে আজ বুধবার। সকাল ৮টা থেকে ভোটগ্রহণ শুরু হয়ে চলবে বিকাল ৪টা পর্যন্ত। প্রথম দফায় মোট ১৫২টি উপজেলায় নির্বাচনের কথা থাকলেও তফসিল ঘোষণার পর বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতা, স্থগিত ও ধাপ পরিবর্তনের কারণে কিছু বাদ দেওয়ার পর আজ ১৩৯টি উপজেলায় ভোটগ্রহণ করা হবে। বিভিন্ন কারণে নির্বাচনের আগের দিনও সরিষাবাড়ি ও নাঙ্গলকোট উপজেলার ভোট স্থগিত করা হয়েছে। এদিকে নির্বাচনের প্রচারণা পর্বে বিভিন্ন স্থানে সংঘাত-সহিংসতা বৃদ্ধি পাওয়ায় ভোট সুষ্ঠু হওয়া ও ভোটার উপস্থিতি নিয়ে রয়েছে শঙ্কা। যদিও ভোটের দিন কেন্দ্রগুলোতে কড়া নিরাপত্তাব্যবস্থা নেওয়ার কথা জানিয়েছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)।

জাতীয় পার্টির ৪ জন প্রার্থী। এর বাইরে জেপির দুই জন, ওয়ার্কার্স পার্টি ও জাসদের প্রার্থী একজন। তবে অধিকাংশ উপজেলাতেই আওয়ামী লীগের একাধিক প্রার্থী নির্বাচনে অংশ নিচ্ছেন। এ ছাড়াও প্রায় ২৮ উপজেলায় বিএনপির নেতারা চেয়ারম্যান প্রার্থী হয়েছেন। ফলে ১ম ধাপের ভোটের ফলাফলের দিকে নজর রয়েছে দেশেবাসীর। এ ছাড়া সারা দেশে আওয়ামী লীগের একাধিক প্রার্থী থাকায় দলটির তৃণমূলে অভ্যন্তরীণ কোন্দল বেড়েছে। যা সংঘাতের পর্যায়ে পৌঁছেছে। তফসিল ঘোষণার পর থেকে সংঘাত-সহিংসতায় প্রায় দেড়শতাধিক মানুষ আহত হয়েছেন।

ফলে নির্বাচন কমিশন থেকে সুষ্ঠু ভোট বাস্তবায়নে পদক্ষেপ নেওয়া হলেও শঙ্কা রয়েছে। নির্বাচন অবাধ, সুষ্ঠু, নিরপেক্ষ করতে সব ধরনের প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কাজী হাবিবুল আওয়াল বলেছেন, এ নির্বাচনের জন্য যা যা করণীয় সব ধরনের প্রস্তুতি গ্রহণ করেছি। যাতে নির্বাচনটা অবাধ, নিরপেক্ষ হয়। যাতে নির্বাচন অবাধ, সুষ্ঠু নিরপেক্ষ হয় সে লক্ষ্যে বিভাগ, জেলা পর্যায়ে কমিশন মতবিনিময়ও করেছে। আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্য মোতায়েন ও টহলের সুবিধার্থে ধাপে ধাপে ভোটের ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। এবার ইভিএম এর মাধ্যমে ২২টি উপজেলায় নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। বাকি উপজেলাগুলোতে ব্যালট পেপারে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। ইসি সূত্র জানায়, নির্বাচনে ভোটার উপস্থিতিই বড় চ্যালেঞ্জ। তবে বিশ্লেষকরা মনে করছেন, প্রার্থীরা নিজেদের ভোটারদের কেন্দ্রে আনতে পারলে ভোটার উপস্থিতি বাড়বে। নির্বাচন ঘিরে সব ধরনের প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে ইসি। এরই মধ্যে দুর্গম এলাকার কেন্দ্রগুলোতে ব্যালট পেপার গতকাল মঙ্গলবার পৌঁছেছে। রাঙামাটির সিনিয়র জেলা নির্বাচন অফিসার ও রিটার্নিং কর্মকর্তা মোহাম্মদ মনির হোসেন জানিয়েছেন, ৪ উপজেলার মোট ৯২টি ভোটকেন্দ্রের মধ্যে দুর্গম ৫৬টি কেন্দ্রে নির্বাচনী সরঞ্জাম পাঠানো হয়েছে। বাকি ৩২টি কেন্দ্রে ভোটের দিন সকালে সরঞ্জামাদি পৌঁছানো হবে। বাকি উপজেলাগুলোতে আজ সকালে ব্যালট বাক্স পৌঁছাবে। সেখানে প্রার্থীর এজেন্ট ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর উপস্থিতিতে ব্যালট বাক্স পরীক্ষা শেষে ভোটগ্রহণ শুরু হবে। নির্বাচনে কোনো দলের অংশগ্রহণ করা না করাটা অনেক বড় ইস্যু বাংলাদেশে। কেননা সেই দলটি নির্বাচনকে ডামি নির্বাচন অভিহিত করে এতে অংশগ্রহণ না করার জন্য জনগণকে আহ্বান জানিয়েছে। এদিকে দল আওয়ামী লীগ মন্ত্রী এমপিদের আত্মীয়-স্বজনদের নির্বাচনে অংশগ্রহণ না করতে নির্দেশনা দিয়েছে। এমন পরিস্থিতিতে সিইসি বলেছেন, উপজেলা ভোট নিয়ে আমরা কোনো ধরনের বেকায়দায় নেই। একটা ভালো দিক হচ্ছে রাজনৈতিক সদিচ্ছা বিকশিত হয়েছে।

এই সদিচ্ছা নির্বাচনকে অবাধ ও নিরপেক্ষ করতে সহায়ক হবে। তার পরও যদি কোনো সংসদ সদস্য প্রভাব বিস্তার করে থাকেন অভিযোগ পেলে তাৎক্ষণিক ব্যবস্থা নেওয়ার চেষ্টা করি। ভোটের দিন আমরা সতর্ক থাকব, কেন্দ্রীয়ভাবে মনিটরিং করব। তিনি বলেন, নির্বাচনে আমরা সবার সহযোগিতা প্রত্যাশা করি। সংশ্লিষ্টরা নিয়মকানুন প্রতিপালন করলে নির্বাচনটা সহজ হবে। তারা যদি বিশৃঙ্খলা তৈরি করে আইনশৃঙ্খলা রক্ষা করা দুরূহ হবে। এবার কিছু পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে এবং প্রার্থীসহ সবার সঙ্গে মতবিনিময় করা হয়েছে। নির্বাচনটাকে স্বচ্ছ করার চেষ্টা করছি। প্রত্যেকটা অভিযোগ খতিয়ে দেখা হচ্ছে। তদন্ত করে কারো কারো প্রার্থিতা বাতিল করা হয়েছে। নির্বাচন যাতে প্রভাবিত না হয়, সেজন্যে ইসির তরফ থেকে সব ধরনের চেষ্টা করে যাচ্ছি। তিনি বলেন, মন্ত্রী-এমপিদের নিবৃত্ত করা হয়েছে, প্রভাব বিস্তারের কারণে কিছু কিছু ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। বিশেষ করে নির্বাচনের দিন কেউ যেন ভোটকেন্দ্রে অনুপ্রবেশ করতে না পারে এবং সেখানে যেন অনিয়ম না হয় সে বিষয়ে নির্দেশনা রয়েছে। সিইসি বলেন, কে কোন দল করে আমরা জানি না।

নির্বাচন আয়োজন করা আমাদের কাজ। কে দাঁড়ালো, কে দাঁড়ালো না, আমাদের কাছে সবাই প্রার্থী। আমরা দেখছি প্রতিদ্বন্দ্বিতা হচ্ছে। কেউ এলো কি, কেউ এলো না, তা নয়। প্রতিটি উপজেলায় অন্তত চারজন করে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছে। দলীয় প্রতিদ্বন্দ্বিতা দেখতে যাচ্ছি না, প্রার্থীদের প্রতিদ্বন্দ্বিতা হচ্ছে। গতকাল বিকালে নির্বাচনী আচরণবিধি লঙ্ঘনের দায়ে জামালপুরের সরিষাবাড়ী উপজেলা পরিষদের নির্বাচন স্থগিত করা হয়েছে। শেষ মুহূর্তে নির্বাচন আচরণ বিধি লঙ্ঘনের অভিযোগ উঠেছে সাবেক স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক এমপির বিরুদ্ধে। তার ফুফাত ভাই মো. ইসরাফীল হোসেনের পক্ষে প্রচার চালাচ্ছেন বলে অভিযোগ করেছেন প্রার্থী ও জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক সুদেব কুমার সাহা। গাজীপুর সদর উপজেলার চারটি ইউনিয়নে মোট ৪৯টি ভোটকেন্দ্রের মধ্যে ২০ কেন্দ্রই ঝুঁকিপূর্ণ, ২৯টি কম ঝুঁকিপূর্ণ। এ ব্যাপারে গাজীপুরের পুলিশ সুপার কাজী শফিকুল আলম বলেন, ঝুঁকিপূর্ণ কেন্দ্রগুলোতে র‍্যাব, পুলিশ ও আনসার মোতায়েন করা হবে। সার্বিক নিরাপত্তায় আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা সার্বক্ষণিক প্রস্তুত থাকবে। প্রথম দফার নির্বাচনে তফসিল হয়েছিল ১৫২টিতে, মনোনয়নপত্র জমা পড়ে ১৫০টিতে। ধাপ পরিবর্তন ও বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতার পরে আজ ১৩৯টি উপজেলায় ভোট হবে।

প্রতিদ্বন্দ্বিতায় ১ হাজার ৭৩৫ জন। এর মধ্যে চেয়ারম্যান ৫৭০ জন, সাধারণ ভাইস চেয়ারম্যান ৬২৫ জন ও সংরক্ষিত নারী ভাইস চেয়ারম্যান ৪৪০ জন। বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত ২৮ জন (চেয়ারম্যান ৮ জন, সাধারণ ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান ১০ জন করে)। তিন পদে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় জয়ী হয়েছে ৫ উপজেলায়- হাতিয়া, মুন্সীগঞ্জ সদর, বাগেরহাট সদর, পরশুরাম ও শিবচর। এদিকে জামালপুরের সরিষাবাড়ী উপজেলা পরিষদের নির্বাচন স্থগিত করেছে নির্বাচন কমিশন। ভোটের আগের দিন গতকাল মঙ্গলবার বিকালে রিটার্নিং কর্মকর্তার কাছে এ সংক্রান্ত নির্দেশনা পাঠিয়েছেন ইসির উপসচিব আতিয়ার রহমান। অন্যদিকে কুমিল্লার নাঙ্গলকোট উপজেলা পরিষদ নির্বাচন স্থগিত করেছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে ছালেহা বেগম আদালতের রায়ে নির্বাচনের একদিন আগে প্রার্থিতা ফিরে পাওয়ায় ওই নির্বাচন স্থগিত করা হয়। এবারের নির্বাচনের ভোটার প্রায় ৩ কোটি ১৪ লাখ। ভোটকেন্দ্র প্রায় ১২ হাজার। প্রায় ভোট কক্ষ ৭৮ হাজার। প্রতিটি সাধারণ ভোটকেন্দ্রে ১৭ জন সদস্য ও গুরুত্বপূর্ণ ভোটকেন্দ্রে ১৮-১৯ জন করে নিরাপত্তায় নিয়োজিত থাকবেন। দুর্গম এলাকায় সাধারণ কেন্দ্রে ১৯ জন এবং গুরুত্বপূর্ণ কেন্দ্রে ২০/২১ জন করে নিরাপত্তা সদস্য থাকবে। প্রথম ধাপে নির্বাহী হাকিম রয়েছে ১৫০ জন যারা এরই মধ্যে নিয়োজিত, ভোটের আগে আইন শৃঙ্খলাবাহিনীর সঙ্গে আরও সমসংখ্যক যোগ দেবেন।