০৬:৫০ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৮ মে ২০২৪, ১৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

আদালতের নির্দেশে এফআইআর না করে  আসামীকে ধরতে বাদীর কাছে ঘুষবানিজ্য করেন ওসি ওয়াজেদ

ময়মনসিংহ রেঞ্জ ডিআইজি শাহ আবিদ হোসেন বরাবর অভিযোগ দায়ের করেন তারাকান্দা থানার ইনচার্জ ওয়াজেদ আলীর বিরুদ্ধে ।
ঘটনার বিবরনে জানা যায় গত বছর ২৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৩ সকাল ১০ টার দিকে তারাকান্দা থানার সুবলিয়া গ্রামের ফয়েজ উদ্দিন সাবেক কামারিয়া ইউপি সদস্য কে শফিউল আলম ও হাজী তাজুল ইসলামের সাথে ফিসারীর রাস্তা নিয়ে বিরোধ ছিলো । ঘটনার দিন উক্ত জায়গাতে ফয়েজ উদ্দিন পৌঁছালে শফিউল আলমের লোকজন তাকে কিলঘুষি মারে। এতে করে ফয়েজ উদ্দিন মাটিতে পড়ে যায়। তাকে উদ্ধার করে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হলে ডাক্তার তাকে মৃত ঘোষনা করেন । তৎকালীন ওসি থানায় মামলা না নেওয়াতে মৃত ফয়েজ উদ্দিনের ছোট ছেলে বিজ্ঞ সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে তারাকান্দা সিআর -১৮২/২৩ একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। বিজ্ঞ আদালত জেলা গোয়েন্দা শাখাকে তদন্তের নির্দেশ দেন ।
গোয়েন্দা শাখা আদালতে প্রতিবেদন দাখিল করিলে গত ৭ মে মঙ্গলবার ২০২৪ তারাকান্দা থানায় মামলাটি এফআইআর হিসাবে গণ্য করে মামলা রুজু করার নির্দেশনা দেন। বাদী পক্ষকে থানার ইনচার্জ ওয়াজেদ আলী তিনি বলেন আগে আসামী ধরি পরে মামলা নিবো । এরই ফাঁকে বাদীর কাছে ৫০ হাজার টাকা দাবী করেন । তারা ১০ হাজার টাকা ইনচার্জের হাতে তুলেদেন। তিনি টাকা গুলো পেন্টের পকেটে ভরেন। ইনচার্জ বিভিন্ন অজুহাতে গত ৭ মে থেকে ১০ মে পর্যন্ত আসামী ধরতে টালবাহানা করেন ।
এই এফআইআর এর ঘটনা ফাঁস হয়ে যাওয়াতে আসামীরা পালিয়েছে । বিষয়টি গুরুত্ব বিবচনায় নিয়ে সুবিচারের আশায় অভিযুক্তদের গ্রেফতারে ও ন্যায় বিচার না পাওয়ার আশংকায় মামলাটি জেলা গোয়েন্দা শাখার কাছে হস্তান্তর করে এবং  তারাকান্দা থানার ইনচার্জ ওয়াজেদ আলী অভিযুক্তদের ধরার কথা বলে টাকা নিয়ে পুলিশের ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন করায় সুবিচার চেয়ে মৃত ফয়েজ উদ্দিনের ছেলে মো: ফরহাদ মিয়া ১৩ মে ময়মনসিংহ রেঞ্জ ডিআইজি বরাবর অভিযোগ দায়ের করেন ।

জ্বালানি ও বিদ্যুৎ খাতে রাশিয়ান বিনিয়োগের আহ্বান ঢাকা চেম্বারের

আদালতের নির্দেশে এফআইআর না করে  আসামীকে ধরতে বাদীর কাছে ঘুষবানিজ্য করেন ওসি ওয়াজেদ

আপডেট সময় : ০৭:২২:২২ অপরাহ্ন, সোমবার, ১৩ মে ২০২৪
ময়মনসিংহ রেঞ্জ ডিআইজি শাহ আবিদ হোসেন বরাবর অভিযোগ দায়ের করেন তারাকান্দা থানার ইনচার্জ ওয়াজেদ আলীর বিরুদ্ধে ।
ঘটনার বিবরনে জানা যায় গত বছর ২৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৩ সকাল ১০ টার দিকে তারাকান্দা থানার সুবলিয়া গ্রামের ফয়েজ উদ্দিন সাবেক কামারিয়া ইউপি সদস্য কে শফিউল আলম ও হাজী তাজুল ইসলামের সাথে ফিসারীর রাস্তা নিয়ে বিরোধ ছিলো । ঘটনার দিন উক্ত জায়গাতে ফয়েজ উদ্দিন পৌঁছালে শফিউল আলমের লোকজন তাকে কিলঘুষি মারে। এতে করে ফয়েজ উদ্দিন মাটিতে পড়ে যায়। তাকে উদ্ধার করে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হলে ডাক্তার তাকে মৃত ঘোষনা করেন । তৎকালীন ওসি থানায় মামলা না নেওয়াতে মৃত ফয়েজ উদ্দিনের ছোট ছেলে বিজ্ঞ সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে তারাকান্দা সিআর -১৮২/২৩ একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। বিজ্ঞ আদালত জেলা গোয়েন্দা শাখাকে তদন্তের নির্দেশ দেন ।
গোয়েন্দা শাখা আদালতে প্রতিবেদন দাখিল করিলে গত ৭ মে মঙ্গলবার ২০২৪ তারাকান্দা থানায় মামলাটি এফআইআর হিসাবে গণ্য করে মামলা রুজু করার নির্দেশনা দেন। বাদী পক্ষকে থানার ইনচার্জ ওয়াজেদ আলী তিনি বলেন আগে আসামী ধরি পরে মামলা নিবো । এরই ফাঁকে বাদীর কাছে ৫০ হাজার টাকা দাবী করেন । তারা ১০ হাজার টাকা ইনচার্জের হাতে তুলেদেন। তিনি টাকা গুলো পেন্টের পকেটে ভরেন। ইনচার্জ বিভিন্ন অজুহাতে গত ৭ মে থেকে ১০ মে পর্যন্ত আসামী ধরতে টালবাহানা করেন ।
এই এফআইআর এর ঘটনা ফাঁস হয়ে যাওয়াতে আসামীরা পালিয়েছে । বিষয়টি গুরুত্ব বিবচনায় নিয়ে সুবিচারের আশায় অভিযুক্তদের গ্রেফতারে ও ন্যায় বিচার না পাওয়ার আশংকায় মামলাটি জেলা গোয়েন্দা শাখার কাছে হস্তান্তর করে এবং  তারাকান্দা থানার ইনচার্জ ওয়াজেদ আলী অভিযুক্তদের ধরার কথা বলে টাকা নিয়ে পুলিশের ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন করায় সুবিচার চেয়ে মৃত ফয়েজ উদ্দিনের ছেলে মো: ফরহাদ মিয়া ১৩ মে ময়মনসিংহ রেঞ্জ ডিআইজি বরাবর অভিযোগ দায়ের করেন ।