১২:১১ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৩ জুন ২০২৪, ২৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

১ মাস কারাভোগ শেষে মুক্ত হলেন মেয়র জাহাঙ্গীর 

  • সবুজ বাংলা
  • আপডেট সময় : ০৪:৩৩:৫৫ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৬ নভেম্বর ২০২৩
  • 31
দিনাজপুর প্রতিনিধি
হাইকোর্টের বিচারপতিকে নিয়ে অশালীন মন্তব্যের কারণে দেয়া এক মাসের সাজা ভোগ শেষে মুক্ত হয়েছে দিনাজপুর পৌরসভার মেয়র সৈয়দ জাহাঙ্গীর আলম।
বৃহস্পতিবার (১৬ নভেম্বর) বেলা সাড়ে ১১টায় দিনাজপুর জেলা কারাগার থেকে তিনি মুক্তি পান।
দিনাজপুর কারাগারের জেল সুপার নুরশেদ আহমেদ ভুইয়া এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।
৩১ অক্টোবর স্থানীয় সরকার বিভাগ তাকে মেয়রের পদ থেকে সাময়িক বরখাস্ত করে। এর আগে ১৮ অক্টোবর দিনাজপুরের চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে আত্মসমর্পন করেন। পরে বিচারক জাহাঙ্গীর আলমকে এক মাসের কারাভোগের জন্য কারাগারে প্রেরণ করেন।
সৈয়দ জাহাঙ্গীর আলম দিনাজপুর পৌরসভায় টানা ৩ বারের মেয়র এবং কেন্দ্রীয় বিএনপির রংপুর বিভাগীয় সহ-সাংগঠনিক সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করছেন।
জানা গেছে, গত ৩ আগস্ট দিনাজপুরে বিএনপির পূর্বঘোষিত কর্মসূচি পালনকালে পৌর সৈয়দ মেয়র জাহাঙ্গীর আলম তার বক্তব্য দেয়ার সময় বেগম খালেদা জিয়ার মামলায় হাইকোর্টে রায়দানকারী বিচারপতি এম. ইনায়েতুর রহিমকে নিয়ে অশালীন মন্তব্য করেন এবং বিচারের রায় নিয়েও অবমাননাকর মন্তব্য করেন।
মেয়রের এই বক্তব্য সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে প্রচার হয়। বিষয়টি নজরে আসায় তার বিরুদ্ধে আদালত অবমাননার আবেদন করেন সুপ্রিম কোর্টের চার আইনজীবী। গত ২৪ আগস্ট তলব আদেশে হাজির হয়ে বিচারপতিকে নিয়ে অশালীন মন্তব্য করার ঘটনায় আপিল বিভাগে নিঃশর্ত ক্ষমা প্রার্থনা করেন দিনাজপুর পৌরসভার মেয়র সৈয়দ জাহাঙ্গীর আলম।
পরে ১২ অক্টোবর মেয়র সৈয়দ জাহাঙ্গীর আলমের উপস্থিতিতে প্রধান বিচারপতি ওবায়দুল হাসানের নেতৃত্বে পাঁচ সদস্যের বে শুনানি করে ১ মাসের কারাদন্ড ও ১ লাখ টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরও ১ সপ্তাহের কারাদন্ডের আদেশ প্রদান করেন।
জনপ্রিয় সংবাদ

টিউশনের নামে প্রতারণার ফাঁদ

১ মাস কারাভোগ শেষে মুক্ত হলেন মেয়র জাহাঙ্গীর 

আপডেট সময় : ০৪:৩৩:৫৫ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৬ নভেম্বর ২০২৩
দিনাজপুর প্রতিনিধি
হাইকোর্টের বিচারপতিকে নিয়ে অশালীন মন্তব্যের কারণে দেয়া এক মাসের সাজা ভোগ শেষে মুক্ত হয়েছে দিনাজপুর পৌরসভার মেয়র সৈয়দ জাহাঙ্গীর আলম।
বৃহস্পতিবার (১৬ নভেম্বর) বেলা সাড়ে ১১টায় দিনাজপুর জেলা কারাগার থেকে তিনি মুক্তি পান।
দিনাজপুর কারাগারের জেল সুপার নুরশেদ আহমেদ ভুইয়া এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।
৩১ অক্টোবর স্থানীয় সরকার বিভাগ তাকে মেয়রের পদ থেকে সাময়িক বরখাস্ত করে। এর আগে ১৮ অক্টোবর দিনাজপুরের চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে আত্মসমর্পন করেন। পরে বিচারক জাহাঙ্গীর আলমকে এক মাসের কারাভোগের জন্য কারাগারে প্রেরণ করেন।
সৈয়দ জাহাঙ্গীর আলম দিনাজপুর পৌরসভায় টানা ৩ বারের মেয়র এবং কেন্দ্রীয় বিএনপির রংপুর বিভাগীয় সহ-সাংগঠনিক সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করছেন।
জানা গেছে, গত ৩ আগস্ট দিনাজপুরে বিএনপির পূর্বঘোষিত কর্মসূচি পালনকালে পৌর সৈয়দ মেয়র জাহাঙ্গীর আলম তার বক্তব্য দেয়ার সময় বেগম খালেদা জিয়ার মামলায় হাইকোর্টে রায়দানকারী বিচারপতি এম. ইনায়েতুর রহিমকে নিয়ে অশালীন মন্তব্য করেন এবং বিচারের রায় নিয়েও অবমাননাকর মন্তব্য করেন।
মেয়রের এই বক্তব্য সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে প্রচার হয়। বিষয়টি নজরে আসায় তার বিরুদ্ধে আদালত অবমাননার আবেদন করেন সুপ্রিম কোর্টের চার আইনজীবী। গত ২৪ আগস্ট তলব আদেশে হাজির হয়ে বিচারপতিকে নিয়ে অশালীন মন্তব্য করার ঘটনায় আপিল বিভাগে নিঃশর্ত ক্ষমা প্রার্থনা করেন দিনাজপুর পৌরসভার মেয়র সৈয়দ জাহাঙ্গীর আলম।
পরে ১২ অক্টোবর মেয়র সৈয়দ জাহাঙ্গীর আলমের উপস্থিতিতে প্রধান বিচারপতি ওবায়দুল হাসানের নেতৃত্বে পাঁচ সদস্যের বে শুনানি করে ১ মাসের কারাদন্ড ও ১ লাখ টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরও ১ সপ্তাহের কারাদন্ডের আদেশ প্রদান করেন।