০৯:৩৯ অপরাহ্ন, শনিবার, ০২ মার্চ ২০২৪, ১৯ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

উপজেলা নির্বাচন চার ধাপে, শুরু ৪ মে

সংরক্ষিত নারী আসনের ভোট ১৪ মার্চ

চার ধাপে দেশের বিভিন্ন উপজেলা পরিষদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। আগামী ৪ মে প্রথম ধাপের ভোট হবে। এদিকে জাতীয় সংসদের সংরক্ষিত নারী আসনের ভোটগ্রহণ আগামী ১৪ মার্চ অনুষ্ঠিত হবে। ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ ১৪ দলের শরিকদের সঙ্গে জোটবদ্ধ হয়ে সংসদে সংরক্ষিত ৪৮টি নারী আসনে নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবে এবং স্বতন্ত্ররা তাদের সহযোগিতা করবে। পাশাপাশি বিরোধী দল হওয়ায় দুটি আসন পাচ্ছে জাতীয় পার্টি।

গতকাল মঙ্গলবার সংরক্ষিত নারী আসনের ভোটের তফসিল ঘোষণা করা হয়েছে। প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কাজী হাবিবুল আউয়ালের সভাপতিত্বে কমিশন বৈঠকে এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। বৈঠক শেষে তফসিল ঘোষণা করেন ইসি সচিব মো. জাহাংগীর আলম।

অন্যদিকে জাতীয় সংসদ নির্বাচনের পর ষষ্ঠ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের প্রস্তুতি শুরু করেছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। চার ধাপে উপজেলা ভোট শুরু হবে ৪ মে। তফসিল অনুযায়ী, সংসদের সংরক্ষিত নারী আসনে মনোনয়নপত্র দাখিলের শেষ সময় ১৮ ফেব্রুয়ারি, মনোনয়ন যাচাই-বাছাই ১৯ ও ২০ ফেব্রুয়ারি, আপিল করা যাবে ২২ ফেব্রুয়ারি, আপিল নিষ্পত্তি ২৪ ফেব্রুয়ারি, প্রার্থিতা প্রত্যাহার ২৫ ফেব্রুয়ারি, প্রতীক বরাদ্দ ২৭ ফেব্রুয়ারি এবং ভোটগ্রহণ ১৪ মার্চ বৃহস্পতিবার অনুষ্ঠিত হবে।
এই নির্বাচনে রিটার্নিং অফিসারের দায়িত্ব পালন করবেন নির্বাচন কমিশন সচিবালয়ের অর্থ ও প্রশাসন অনুবিভাগের যুগ্ম সচিব মো. মুনিরুজ্জামান। তাকে সহায়তা করতে একজন সহকারী রিটার্নিং কর্মকর্তা দায়িত্ব পালন করবেন। দুইজন পোলিং এজেন্ট থাকবে। বর্তমান সংসদের ২৯৯ আসনের প্রজ্ঞাপন অনুযায়ী বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ ও স্বতন্ত্র প্রর্থী মিলে জোট করে এবং জাতীয় পার্টি একক ভাবে নির্বাচন করবে।

ইসি সচিব মো. জাহাংগীর আলম জানান, ষষ্ঠ উপজেলা পরিষদ নির্বাচন চার ধাপে অনুষ্ঠিত হবে। এবারের উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের প্রথম ধাপের ভোট হবে ৪ মে, দ্বিতীয় ধাপের ভোট হবে ১১ মে, তৃতীয় ধাপের ভোট হবে ১৮ মে এবং চতুর্থ ধাপের ভোট হবে ২৫ মে। চলতি বছর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনসহ আরো কিছু স্থানীয় সরকার প্রতিষ্ঠানের নির্বাচন করতে হবে। সারা দেশে উপজেলা পরিষদ আছে ৪৯৫টি। সাধারণত সব উপজেলায় একসঙ্গে নির্বাচন করা হয় না। একাধিক ধাপে এই নির্বাচন করা হয়। এবারও ধাপে ধাপে এই নির্বাচন করার চিন্তা করছে ইসি।

আইন অনুযায়ী উপজেলা পরিষদের মেয়াদ পূর্তির আগের ১৮০ দিনের মধ্যে নির্বাচন করতে হয়। এখন ৪৫২টি উপজেলা পরিষদ নির্বাচন উপযোগী হয়ে আছে। জুনের মধ্যে এসব উপজেলায় নির্বাচন করতে হবে। এ ছাড়া আগামী মার্চের মধ্যে অল্প কিছু বাদে প্রায় সবকটি উপজেলা নির্বাচন উপযোগী হবে।

উপজেলা নির্বাচন চার ধাপে, শুরু ৪ মে

আপডেট সময় : ০৯:২৭:১৪ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

চার ধাপে দেশের বিভিন্ন উপজেলা পরিষদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। আগামী ৪ মে প্রথম ধাপের ভোট হবে। এদিকে জাতীয় সংসদের সংরক্ষিত নারী আসনের ভোটগ্রহণ আগামী ১৪ মার্চ অনুষ্ঠিত হবে। ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ ১৪ দলের শরিকদের সঙ্গে জোটবদ্ধ হয়ে সংসদে সংরক্ষিত ৪৮টি নারী আসনে নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবে এবং স্বতন্ত্ররা তাদের সহযোগিতা করবে। পাশাপাশি বিরোধী দল হওয়ায় দুটি আসন পাচ্ছে জাতীয় পার্টি।

গতকাল মঙ্গলবার সংরক্ষিত নারী আসনের ভোটের তফসিল ঘোষণা করা হয়েছে। প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কাজী হাবিবুল আউয়ালের সভাপতিত্বে কমিশন বৈঠকে এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। বৈঠক শেষে তফসিল ঘোষণা করেন ইসি সচিব মো. জাহাংগীর আলম।

অন্যদিকে জাতীয় সংসদ নির্বাচনের পর ষষ্ঠ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের প্রস্তুতি শুরু করেছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। চার ধাপে উপজেলা ভোট শুরু হবে ৪ মে। তফসিল অনুযায়ী, সংসদের সংরক্ষিত নারী আসনে মনোনয়নপত্র দাখিলের শেষ সময় ১৮ ফেব্রুয়ারি, মনোনয়ন যাচাই-বাছাই ১৯ ও ২০ ফেব্রুয়ারি, আপিল করা যাবে ২২ ফেব্রুয়ারি, আপিল নিষ্পত্তি ২৪ ফেব্রুয়ারি, প্রার্থিতা প্রত্যাহার ২৫ ফেব্রুয়ারি, প্রতীক বরাদ্দ ২৭ ফেব্রুয়ারি এবং ভোটগ্রহণ ১৪ মার্চ বৃহস্পতিবার অনুষ্ঠিত হবে।
এই নির্বাচনে রিটার্নিং অফিসারের দায়িত্ব পালন করবেন নির্বাচন কমিশন সচিবালয়ের অর্থ ও প্রশাসন অনুবিভাগের যুগ্ম সচিব মো. মুনিরুজ্জামান। তাকে সহায়তা করতে একজন সহকারী রিটার্নিং কর্মকর্তা দায়িত্ব পালন করবেন। দুইজন পোলিং এজেন্ট থাকবে। বর্তমান সংসদের ২৯৯ আসনের প্রজ্ঞাপন অনুযায়ী বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ ও স্বতন্ত্র প্রর্থী মিলে জোট করে এবং জাতীয় পার্টি একক ভাবে নির্বাচন করবে।

ইসি সচিব মো. জাহাংগীর আলম জানান, ষষ্ঠ উপজেলা পরিষদ নির্বাচন চার ধাপে অনুষ্ঠিত হবে। এবারের উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের প্রথম ধাপের ভোট হবে ৪ মে, দ্বিতীয় ধাপের ভোট হবে ১১ মে, তৃতীয় ধাপের ভোট হবে ১৮ মে এবং চতুর্থ ধাপের ভোট হবে ২৫ মে। চলতি বছর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনসহ আরো কিছু স্থানীয় সরকার প্রতিষ্ঠানের নির্বাচন করতে হবে। সারা দেশে উপজেলা পরিষদ আছে ৪৯৫টি। সাধারণত সব উপজেলায় একসঙ্গে নির্বাচন করা হয় না। একাধিক ধাপে এই নির্বাচন করা হয়। এবারও ধাপে ধাপে এই নির্বাচন করার চিন্তা করছে ইসি।

আইন অনুযায়ী উপজেলা পরিষদের মেয়াদ পূর্তির আগের ১৮০ দিনের মধ্যে নির্বাচন করতে হয়। এখন ৪৫২টি উপজেলা পরিষদ নির্বাচন উপযোগী হয়ে আছে। জুনের মধ্যে এসব উপজেলায় নির্বাচন করতে হবে। এ ছাড়া আগামী মার্চের মধ্যে অল্প কিছু বাদে প্রায় সবকটি উপজেলা নির্বাচন উপযোগী হবে।