১২:২২ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১৭ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

বইমেলায় সোহরাওয়ার্দী কলেজ শিক্ষার্থীর বই ‘বিবি মতিজান’

অমর একুশে বইমেলায় প্রকাশিত হয়েছে সরকারি শহীদ সোহরাওয়ার্দী কলেজ প্রাক্তন শিক্ষার্থী সানজিদা আক্তার বই ‘বিবি মতিজান’। বইটি সামাজিক ও সামসময়িক শিশু মনস্তাত্ত্বিক বিষয়াবলি, রোমান্টিক প্রেমের আবহকে উপজীব্য করে রচিত বাস্তবিক রহস্য উপন্যাস।

বইটি প্রকাশ করেছে ভূমি প্রকাশনা। বইটির মূল্য রাখা হয়েছে ৫৯৫ টাকা। শিক্ষার্থীরা ৩০ শতাংশ ছাড়ে সংগ্রহ করতে পারবেন বইটি। একুশে বইমেলার ভূমিপ্রকাশের (৩০৬-৩০৭ নং) স্টলে পাওয়া যাবে।

তরুণ লেখক সানজিদা আক্তার বলেন, “আমার বিয়ে হয়ে যায় অল্প বয়সে। দুই সন্তান ও সংসার সামলে শুধু ফাইনাল পরীক্ষাগুলো (সংসার থেকে ক্লাস/ কোচিং করা, টেস্ট বা প্রি-টেস্ট পরীক্ষা দেওয়ার অনুমতি/ সুযোগ পেতাম না) দিয়ে দিয়ে একাডেমিক স্টাডি শেষ করলেও চাকরির চেষ্টা করায় আর সম্ভব হয়নি। এরপর একরকম ঘর থেকে নিজের প্রয়োজনে বের হওয়াটা অসম্ভব হয়ে পড়ে।

হঠাৎই ঝোঁকের বশে একদিন লিখতে বসি, কোনরকম প্রস্তুতি, চিন্তা ছাড়াই। কয়েক পৃষ্ঠা লেখার পর উপন্যাসের গল্পটি সাজিয়েছি। এছাড়াও আরো দুটো উপন্যাসিকা ও বেশ কয়েকটি ছোটগল্প লিখেছি। লেখার অভ্যাসটা ধরে রাখার সংকল্প আছে। সাহিত্যের বই পড়তে ভালোবাসি।

ফুরসৎ যদিও তেমন মেলে না, বই পড়ার চেষ্টা করি। মূলত লাইব্রেরী থেকে ক্লাসিক বইগুলো নিয়ে পড়া হয়। এছাড়াও নিজের বই সংগ্রহের শখও আছে। ছোট্ট হলেও পারিবারিক সুন্দর  পাঠাগার গড়ার শখ আছে। আশাপূর্ণা দেবী, আহমদ ছফা, সমরেশ মজুমদার, বিভূতিভূষণ, সুনীল, মানিক, হুমায়ূন আহমেদের বই পড়তে পছন্দ করি। বর্তমান লেখকদের বইও ভালো লাগে।

স/মিফা

অব্যাহত অভিযানেও চলছে অবৈধ ক্লিনিক হাসপাতাল-ডায়াগনস্টিক সেন্টার

বইমেলায় সোহরাওয়ার্দী কলেজ শিক্ষার্থীর বই ‘বিবি মতিজান’

আপডেট সময় : ০৮:৪১:২৫ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

অমর একুশে বইমেলায় প্রকাশিত হয়েছে সরকারি শহীদ সোহরাওয়ার্দী কলেজ প্রাক্তন শিক্ষার্থী সানজিদা আক্তার বই ‘বিবি মতিজান’। বইটি সামাজিক ও সামসময়িক শিশু মনস্তাত্ত্বিক বিষয়াবলি, রোমান্টিক প্রেমের আবহকে উপজীব্য করে রচিত বাস্তবিক রহস্য উপন্যাস।

বইটি প্রকাশ করেছে ভূমি প্রকাশনা। বইটির মূল্য রাখা হয়েছে ৫৯৫ টাকা। শিক্ষার্থীরা ৩০ শতাংশ ছাড়ে সংগ্রহ করতে পারবেন বইটি। একুশে বইমেলার ভূমিপ্রকাশের (৩০৬-৩০৭ নং) স্টলে পাওয়া যাবে।

তরুণ লেখক সানজিদা আক্তার বলেন, “আমার বিয়ে হয়ে যায় অল্প বয়সে। দুই সন্তান ও সংসার সামলে শুধু ফাইনাল পরীক্ষাগুলো (সংসার থেকে ক্লাস/ কোচিং করা, টেস্ট বা প্রি-টেস্ট পরীক্ষা দেওয়ার অনুমতি/ সুযোগ পেতাম না) দিয়ে দিয়ে একাডেমিক স্টাডি শেষ করলেও চাকরির চেষ্টা করায় আর সম্ভব হয়নি। এরপর একরকম ঘর থেকে নিজের প্রয়োজনে বের হওয়াটা অসম্ভব হয়ে পড়ে।

হঠাৎই ঝোঁকের বশে একদিন লিখতে বসি, কোনরকম প্রস্তুতি, চিন্তা ছাড়াই। কয়েক পৃষ্ঠা লেখার পর উপন্যাসের গল্পটি সাজিয়েছি। এছাড়াও আরো দুটো উপন্যাসিকা ও বেশ কয়েকটি ছোটগল্প লিখেছি। লেখার অভ্যাসটা ধরে রাখার সংকল্প আছে। সাহিত্যের বই পড়তে ভালোবাসি।

ফুরসৎ যদিও তেমন মেলে না, বই পড়ার চেষ্টা করি। মূলত লাইব্রেরী থেকে ক্লাসিক বইগুলো নিয়ে পড়া হয়। এছাড়াও নিজের বই সংগ্রহের শখও আছে। ছোট্ট হলেও পারিবারিক সুন্দর  পাঠাগার গড়ার শখ আছে। আশাপূর্ণা দেবী, আহমদ ছফা, সমরেশ মজুমদার, বিভূতিভূষণ, সুনীল, মানিক, হুমায়ূন আহমেদের বই পড়তে পছন্দ করি। বর্তমান লেখকদের বইও ভালো লাগে।

স/মিফা