০৬:৩৫ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৩০ মে ২০২৪, ১৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

আর্থিক খাত উন্নয়নে বিশ্বব্যাংকের ৭০ বিলিয়ন ডলারের ফান্ড ঘোষণা

আর্থিক খাত সংস্কার ও উন্নয়নে বড় অঙ্কের একটি ফান্ড ঘোষণা করেছে বিশ্বব্যাংক। উদ্ভাবনী আর্থিক খাতে আগামী ১০ বছরের জন্য ঘোষণাকৃত ফান্ডটির আকার ৭০ বিলিয়ন ডলার। সদস্যভুক্ত দেশ হওয়ায় এর সুবিধা বাংলাদেশও পেতে পারে। গত শুক্রবার সংস্থাটির প্রধান কার্যালয় ওয়াশিংটন থেকে পাঠানো এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

 

বিজ্ঞপ্তিতে সংস্থাটি বলেছে, ঋণ দেওয়ার ক্ষমতা বাড়ানোর পাশাপাশি বৈশ্বিক চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করতে চায় বিশ্বব্যাংক গ্রুপ। ঝুঁকি মোকাবিলায় নতুন আর্থিক উপকরণগুলো একটি উল্লেখযোগ্য অনুমোদন পেয়েছে। ঘোষিত ৭০ বিলিয়ন ডলারের এ ফান্ড থেকে ১১টি দেশে ১১ বিলিয়ন ডলার অর্থায়ন করবে বিশ্বব্যাংক। বাসযোগ্য পৃথিবী নতুনভাবে সাজাতে এই ফান্ড ঘোষণা করা হয়েছে।

 

বিশ্বব্যাংক গ্রুপের প্রেসিডেন্ট অজয় বাঙ্গা বলেন, আমরা এই নতুন আর্থিক তহবিল তৈরি করতে কঠোর পরিশ্রম করেছি, যা আমাদের ঋণ দেওয়ার ক্ষমতা বাড়াবে। দাতাদের তহবিলকে বহুগুণ বৃদ্ধি করে শেষ পর্যন্ত আমরা আরো বেশি মানুষের জীবনকে উন্নত করতে পারবো। দাতা দেশগুলোর উদারতায় আমরা ব্যাংকের সংস্কার করছি। বিশ্বব্যাপী উন্নয়নের নানা চ্যালেঞ্জ ভাগ করছি।

 

এদিকে বিশ্বব্যাংকের দেয়া শর্তগুলো পূরণ করায় ওয়াশিংটনভিত্তিক সংস্থাটির কাছ থেকে এরই মধ্যে ঋণ হিসেবে আরো ২৫০ মিলিয়ন ডলার বাজেট সহায়তা আশা করছে বাংলাদেশ। দেশের প্রবৃদ্ধি ধরে রাখতে শক্তিশালী আর্থিক খাত গড়ে তোলার ক্ষেত্রে সহায়তার অংশ হিসেবে বিশ্বব্যাংক দুই কিস্তির প্রথম কিস্তির অর্থ ছাড় দিতে যাচ্ছে বলে জানা গেছে। গত অর্থবছরেই অবশ্য এই তহবিল আসার কথা ছিল। কিন্তু সরকার ১২টি শর্ত পূরণ করতে না পারায় অর্থ ছাড় দেয়নি বিশ্বব্যাংক।

 

আর্থিক খাত উন্নয়নে বিশ্বব্যাংকের ৭০ বিলিয়ন ডলারের ফান্ড ঘোষণা

আপডেট সময় : ০৭:৫২:৫০ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ২১ এপ্রিল ২০২৪

আর্থিক খাত সংস্কার ও উন্নয়নে বড় অঙ্কের একটি ফান্ড ঘোষণা করেছে বিশ্বব্যাংক। উদ্ভাবনী আর্থিক খাতে আগামী ১০ বছরের জন্য ঘোষণাকৃত ফান্ডটির আকার ৭০ বিলিয়ন ডলার। সদস্যভুক্ত দেশ হওয়ায় এর সুবিধা বাংলাদেশও পেতে পারে। গত শুক্রবার সংস্থাটির প্রধান কার্যালয় ওয়াশিংটন থেকে পাঠানো এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

 

বিজ্ঞপ্তিতে সংস্থাটি বলেছে, ঋণ দেওয়ার ক্ষমতা বাড়ানোর পাশাপাশি বৈশ্বিক চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করতে চায় বিশ্বব্যাংক গ্রুপ। ঝুঁকি মোকাবিলায় নতুন আর্থিক উপকরণগুলো একটি উল্লেখযোগ্য অনুমোদন পেয়েছে। ঘোষিত ৭০ বিলিয়ন ডলারের এ ফান্ড থেকে ১১টি দেশে ১১ বিলিয়ন ডলার অর্থায়ন করবে বিশ্বব্যাংক। বাসযোগ্য পৃথিবী নতুনভাবে সাজাতে এই ফান্ড ঘোষণা করা হয়েছে।

 

বিশ্বব্যাংক গ্রুপের প্রেসিডেন্ট অজয় বাঙ্গা বলেন, আমরা এই নতুন আর্থিক তহবিল তৈরি করতে কঠোর পরিশ্রম করেছি, যা আমাদের ঋণ দেওয়ার ক্ষমতা বাড়াবে। দাতাদের তহবিলকে বহুগুণ বৃদ্ধি করে শেষ পর্যন্ত আমরা আরো বেশি মানুষের জীবনকে উন্নত করতে পারবো। দাতা দেশগুলোর উদারতায় আমরা ব্যাংকের সংস্কার করছি। বিশ্বব্যাপী উন্নয়নের নানা চ্যালেঞ্জ ভাগ করছি।

 

এদিকে বিশ্বব্যাংকের দেয়া শর্তগুলো পূরণ করায় ওয়াশিংটনভিত্তিক সংস্থাটির কাছ থেকে এরই মধ্যে ঋণ হিসেবে আরো ২৫০ মিলিয়ন ডলার বাজেট সহায়তা আশা করছে বাংলাদেশ। দেশের প্রবৃদ্ধি ধরে রাখতে শক্তিশালী আর্থিক খাত গড়ে তোলার ক্ষেত্রে সহায়তার অংশ হিসেবে বিশ্বব্যাংক দুই কিস্তির প্রথম কিস্তির অর্থ ছাড় দিতে যাচ্ছে বলে জানা গেছে। গত অর্থবছরেই অবশ্য এই তহবিল আসার কথা ছিল। কিন্তু সরকার ১২টি শর্ত পূরণ করতে না পারায় অর্থ ছাড় দেয়নি বিশ্বব্যাংক।