০৫:৪৭ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ২৬ মে ২০২৪, ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

কিশোরগঞ্জে চাচা হত্যা মামলার পলাতক আসামি ভাতিজা গ্রেফতার

কিশোরগঞ্জের হোসেনপুরে চাচা সবুজ মিয়াকে ছুরিকাঘাতে হত্যা করা ভাতিজা আবদুল হাকিম কে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।
সোমবার দুপুরে তাকে আদালতে পাঠানো হয়।এর আগে রবিবার বিকেলে তাকে গাজীপুর জেলার টঙ্গী থানার আল-আকসা মসজিদ রোড এলাকা থেকে গ্রেফতার করে হোসেনপুর থানা পুলিশ। গ্রেফতারকৃত আবদুল হাকিম উপজেলার উত্তর গোবিন্দপুর গ্রামের সোলায়মান হোসেনের ছেলে।
জানা যায়,গত ৯ এপ্রিল সকালে উপজেলার উত্তর গোবিন্দপুর গ্রামের সবুজ মিয়া ও গফুর মাস্টারের মধ্যে বিরোধপূর্ণ ফসলি জমি নিয়ে তর্কবিতর্ক হয়। পরে ওইদিন বিকেলের দিকে হাকিম,গফুর মাস্টারসহ ৮ থেকে ১০ জন মিলে, সবুজ মিয়া ও হারেছের ওপর হামলা চালায়।এতে তারা গুরুতর আহত হন।পরে স্থানীয়রা তাদের কিশোরগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসক সবুজকে মৃত ঘোষণা করেন।তার ছোট ভাইয়ের অবস্থা শঙ্কাজনক হওয়ায় ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে উন্নত চিকিৎসার জন্য স্থানান্তর করা হয়।
হোসেনপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নাহিদ হাসান সুমন প্রেস ব্রিফিং এর মাধ্যমে এসব তথ্য নিশ্চিত করে জানান, গত ১০ এপ্রিল নিহতের স্ত্রী শান্তি আক্তার বাদী হয়ে ১০ জনের নাম উল্লেখ করে ও অজ্ঞাতনামা ২ থেকে ৩ জনের বিরুদ্ধে হোসেনপুর থানায় একটি হত্যা মামলা করেন।এরই প্রেক্ষিতে তথ্য প্রযুক্তির সহায়তা নিয়ে রবিবার বিকেলে হোসেনপুর থানা পুলিশ পরিদর্শক টুটুল উদ্দিন, এসআই সুশান্ত চন্দ্র, এস আই শরিফুল ইসলাম ও সঙ্গীয়দের সহযোগিতায় গাজীপুরের টঙ্গী থানার আল-আকসা মসজিদ এলাকায় অভিযান পরিচালনা করেন৷পরে সেখান থেকে আব্দুল হাকিমকে গ্রেফতার করা হয়।এ হত্যা মামলায় এর আগে আরও ৪ জনকে গ্রেফতার করেছিলো পুলিশ।
তিনি আরও জানান, অন্যান্য আসামীদের গ্রেফতারে নিয়মিত অভিযান অব্যাহত থাকবে।

ঘূর্ণিঝড় রেমাল মোকাবেলায় কতটুকু প্রস্তুত পবিপ্রবি?

কিশোরগঞ্জে চাচা হত্যা মামলার পলাতক আসামি ভাতিজা গ্রেফতার

আপডেট সময় : ০৪:১২:৫৪ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৯ এপ্রিল ২০২৪
কিশোরগঞ্জের হোসেনপুরে চাচা সবুজ মিয়াকে ছুরিকাঘাতে হত্যা করা ভাতিজা আবদুল হাকিম কে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।
সোমবার দুপুরে তাকে আদালতে পাঠানো হয়।এর আগে রবিবার বিকেলে তাকে গাজীপুর জেলার টঙ্গী থানার আল-আকসা মসজিদ রোড এলাকা থেকে গ্রেফতার করে হোসেনপুর থানা পুলিশ। গ্রেফতারকৃত আবদুল হাকিম উপজেলার উত্তর গোবিন্দপুর গ্রামের সোলায়মান হোসেনের ছেলে।
জানা যায়,গত ৯ এপ্রিল সকালে উপজেলার উত্তর গোবিন্দপুর গ্রামের সবুজ মিয়া ও গফুর মাস্টারের মধ্যে বিরোধপূর্ণ ফসলি জমি নিয়ে তর্কবিতর্ক হয়। পরে ওইদিন বিকেলের দিকে হাকিম,গফুর মাস্টারসহ ৮ থেকে ১০ জন মিলে, সবুজ মিয়া ও হারেছের ওপর হামলা চালায়।এতে তারা গুরুতর আহত হন।পরে স্থানীয়রা তাদের কিশোরগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসক সবুজকে মৃত ঘোষণা করেন।তার ছোট ভাইয়ের অবস্থা শঙ্কাজনক হওয়ায় ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে উন্নত চিকিৎসার জন্য স্থানান্তর করা হয়।
হোসেনপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নাহিদ হাসান সুমন প্রেস ব্রিফিং এর মাধ্যমে এসব তথ্য নিশ্চিত করে জানান, গত ১০ এপ্রিল নিহতের স্ত্রী শান্তি আক্তার বাদী হয়ে ১০ জনের নাম উল্লেখ করে ও অজ্ঞাতনামা ২ থেকে ৩ জনের বিরুদ্ধে হোসেনপুর থানায় একটি হত্যা মামলা করেন।এরই প্রেক্ষিতে তথ্য প্রযুক্তির সহায়তা নিয়ে রবিবার বিকেলে হোসেনপুর থানা পুলিশ পরিদর্শক টুটুল উদ্দিন, এসআই সুশান্ত চন্দ্র, এস আই শরিফুল ইসলাম ও সঙ্গীয়দের সহযোগিতায় গাজীপুরের টঙ্গী থানার আল-আকসা মসজিদ এলাকায় অভিযান পরিচালনা করেন৷পরে সেখান থেকে আব্দুল হাকিমকে গ্রেফতার করা হয়।এ হত্যা মামলায় এর আগে আরও ৪ জনকে গ্রেফতার করেছিলো পুলিশ।
তিনি আরও জানান, অন্যান্য আসামীদের গ্রেফতারে নিয়মিত অভিযান অব্যাহত থাকবে।