১০:০২ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১৭ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

একুশে পদক পাচ্ছেন যারা

বিভিন্ন ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ অবদানের জন্য দেশের ২১জন বিশিষ্ট নাগরিককে একুশে পদক দিচ্ছে সরকার।

আজ মঙ্গলবার (১৩ ফেব্রুয়ারি) সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের উপসচিব আইরীন ফারজানা স্বাক্ষরিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানান।

ভাষা আন্দোলনে অবদানের জন্য (মরণোত্তর) একুশে পদক পেয়েছেন আশরাফুদ্দীন আহমেদ, বীর মুক্তিযোদ্ধা হাতেম আলী মিয়া, জালাল উদ্দীন খাঁ।

এছাড়াও ভাষা ও সাহিত্যে অবদানের জন্য একুশে পদক পেয়েছেন কবি রুদ্র মুহম্মদ শহীদুল্লাহ (মরণোত্তর); বাংলাদেশ কবিতা পরিষদের সভাপতি ড. মুহাম্মদ সামাদ, ছড়াকার লুৎফুর রহমান রিটন ও কবি মিনার মনসুর এবং শিক্ষায় অবদানের জন্য অধ্যাপক ড. জিনবোধি ভিক্ষু; সমাজসেবায় অবদানের জন্য মো. জিয়াউল হক ও রফিক আহমদ পাচ্ছেন একুশে পদক ।

শিল্পকলার বিভিন্ন বিভাগে একুশে পদক পেয়েছেন ১১ জন। সংগীতে পেয়েছেন জালাল উদ্দীন খাঁ (মরণোত্তর), বীর মুক্তিযোদ্ধা কল্যাণী ঘোষ, বিদিত লাল দাস (মরণোত্তর), এন্ড্রু কিশোর (মরণোত্তর) ও শুভ্র দেব। অভিনয়ে ডলি জহর ও এমএ আলমগীর, আবৃতিতে খান মো. মুস্তাফা ওয়ালীদ (শিমুল মুস্তাফা) ও রূপা চক্রবর্তী, নৃত্যকলায় শিবলী মোহাম্মদ এবং চিত্রকলায় শাহজাহান আহমেদ বিকাশ।

মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক প্রামাণ্যচিত্র নির্মাণ ও আর্কাইভিংয়ের জন্য একুশে পদক পেয়েছেন কাউসার চৌধুরী ও চিত্রকলায় শাহজাহান আহমেদ বিকাশ।

 

 

স/মিফা

একুশে পদক পাচ্ছেন যারা

আপডেট সময় : ০৭:৪৬:৪৮ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

বিভিন্ন ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ অবদানের জন্য দেশের ২১জন বিশিষ্ট নাগরিককে একুশে পদক দিচ্ছে সরকার।

আজ মঙ্গলবার (১৩ ফেব্রুয়ারি) সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের উপসচিব আইরীন ফারজানা স্বাক্ষরিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানান।

ভাষা আন্দোলনে অবদানের জন্য (মরণোত্তর) একুশে পদক পেয়েছেন আশরাফুদ্দীন আহমেদ, বীর মুক্তিযোদ্ধা হাতেম আলী মিয়া, জালাল উদ্দীন খাঁ।

এছাড়াও ভাষা ও সাহিত্যে অবদানের জন্য একুশে পদক পেয়েছেন কবি রুদ্র মুহম্মদ শহীদুল্লাহ (মরণোত্তর); বাংলাদেশ কবিতা পরিষদের সভাপতি ড. মুহাম্মদ সামাদ, ছড়াকার লুৎফুর রহমান রিটন ও কবি মিনার মনসুর এবং শিক্ষায় অবদানের জন্য অধ্যাপক ড. জিনবোধি ভিক্ষু; সমাজসেবায় অবদানের জন্য মো. জিয়াউল হক ও রফিক আহমদ পাচ্ছেন একুশে পদক ।

শিল্পকলার বিভিন্ন বিভাগে একুশে পদক পেয়েছেন ১১ জন। সংগীতে পেয়েছেন জালাল উদ্দীন খাঁ (মরণোত্তর), বীর মুক্তিযোদ্ধা কল্যাণী ঘোষ, বিদিত লাল দাস (মরণোত্তর), এন্ড্রু কিশোর (মরণোত্তর) ও শুভ্র দেব। অভিনয়ে ডলি জহর ও এমএ আলমগীর, আবৃতিতে খান মো. মুস্তাফা ওয়ালীদ (শিমুল মুস্তাফা) ও রূপা চক্রবর্তী, নৃত্যকলায় শিবলী মোহাম্মদ এবং চিত্রকলায় শাহজাহান আহমেদ বিকাশ।

মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক প্রামাণ্যচিত্র নির্মাণ ও আর্কাইভিংয়ের জন্য একুশে পদক পেয়েছেন কাউসার চৌধুরী ও চিত্রকলায় শাহজাহান আহমেদ বিকাশ।

 

 

স/মিফা