০৮:৫৩ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৪ এপ্রিল ২০২৪, ১ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

শীর্ষে আবাহনী

 

 

গতকাল প্রিমিয়ার লিগে মওলানা ভাসানী জাতীয় হকি স্টেডিয়ামে ম্যাচের প্রথম মিনিটে আবাহনীকে চমকে দিয়ে এগিয়ে যায় অ্যাজাক্স এসসি। কিন্তু এরপর আর চমক দেখাতে পারেনি তারা। দারুণভাবে ঘুরে দাঁড়ানো ম্যাচটা জিতেছে ৭-১ গোলে। এর মাধ্যমে লিগে টানা ষষ্ঠ জয় তুলে নিল আকাশী-নীলরা। ম্যাচে মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ এবং ওবায়দুল হোসেন জয় দুটি করে গোল করেন; আবাহনীর বাকি তিন গোলদাতা রাকিবুল হাসান রকি, হুজাইফা হোসেন এবং ভারতের শিশে গাওয়াদ। অ্যাজাক্সের একমাত্র গোলটি আসে ভারতের সিলহেইবার লিশামের স্টিক থেকে।

 

খেলা শুরুর মিনিটে লিশামের ফিল্ড গোলে এগিয়ে যায় অ্যাজাক্স। গোলটি তারা আগলেও রাখে ত্রয়োদশ মিনিট পর্যন্ত। এরপরই জয়ের লক্ষ্যভেদে সমতায় ফেরে আবাহনী। দ্বিতীয় কোয়ার্টারে একের পর এক পেনাল্টি কর্নার পেলেও এগিয়ে যাওয়া গোলের দেখা আবাহনী পাচ্ছিল না অ্যাজাক্সের গোলরক্ষক আজিম উদ্দিন এবং রক্ষণের দৃঢ়তায়। সে গেরো অবশেষে ছোটে ২১তম মিনিটে পেনাল্টি কর্নার থেকে আব্দুল্লাহ লক্ষ্যভেদ করলে। পরের মিনিটে গাওয়াদের ফিল্ড গোলে ব্যবধান বাড়ে আরও। এই কোয়ার্টারের শেষ দিকে আব্দুল্লাহর দ্বিতীয় গোলে ম্যাচে চালকের আসনে বসে যায় আকাশী-নীল জার্সিধারীরা। তৃতীয় কোয়ার্টারে ৩৮ থেকে ৪৪তম মিনিটের মধ্যে আরও তিন গোল হজম করে অ্যাজাক্স। জয়, রকি ও হুজাইফা পান জালের দেখা। তাতে চতুর্থ ও শেষ কোয়ার্টারে আর জালের দেখা না পেলেও অনায়াস জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে আবাহনী। লিগের সবগুলো ম্যাচের জয়ে ১৮ পয়েন্ট নিয়ে টেবিলে শীর্ষে আছে তারা।

জনপ্রিয় সংবাদ

শীর্ষে আবাহনী

আপডেট সময় : ০৭:৫৩:৪০ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ২৩ মার্চ ২০২৪

 

 

গতকাল প্রিমিয়ার লিগে মওলানা ভাসানী জাতীয় হকি স্টেডিয়ামে ম্যাচের প্রথম মিনিটে আবাহনীকে চমকে দিয়ে এগিয়ে যায় অ্যাজাক্স এসসি। কিন্তু এরপর আর চমক দেখাতে পারেনি তারা। দারুণভাবে ঘুরে দাঁড়ানো ম্যাচটা জিতেছে ৭-১ গোলে। এর মাধ্যমে লিগে টানা ষষ্ঠ জয় তুলে নিল আকাশী-নীলরা। ম্যাচে মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ এবং ওবায়দুল হোসেন জয় দুটি করে গোল করেন; আবাহনীর বাকি তিন গোলদাতা রাকিবুল হাসান রকি, হুজাইফা হোসেন এবং ভারতের শিশে গাওয়াদ। অ্যাজাক্সের একমাত্র গোলটি আসে ভারতের সিলহেইবার লিশামের স্টিক থেকে।

 

খেলা শুরুর মিনিটে লিশামের ফিল্ড গোলে এগিয়ে যায় অ্যাজাক্স। গোলটি তারা আগলেও রাখে ত্রয়োদশ মিনিট পর্যন্ত। এরপরই জয়ের লক্ষ্যভেদে সমতায় ফেরে আবাহনী। দ্বিতীয় কোয়ার্টারে একের পর এক পেনাল্টি কর্নার পেলেও এগিয়ে যাওয়া গোলের দেখা আবাহনী পাচ্ছিল না অ্যাজাক্সের গোলরক্ষক আজিম উদ্দিন এবং রক্ষণের দৃঢ়তায়। সে গেরো অবশেষে ছোটে ২১তম মিনিটে পেনাল্টি কর্নার থেকে আব্দুল্লাহ লক্ষ্যভেদ করলে। পরের মিনিটে গাওয়াদের ফিল্ড গোলে ব্যবধান বাড়ে আরও। এই কোয়ার্টারের শেষ দিকে আব্দুল্লাহর দ্বিতীয় গোলে ম্যাচে চালকের আসনে বসে যায় আকাশী-নীল জার্সিধারীরা। তৃতীয় কোয়ার্টারে ৩৮ থেকে ৪৪তম মিনিটের মধ্যে আরও তিন গোল হজম করে অ্যাজাক্স। জয়, রকি ও হুজাইফা পান জালের দেখা। তাতে চতুর্থ ও শেষ কোয়ার্টারে আর জালের দেখা না পেলেও অনায়াস জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে আবাহনী। লিগের সবগুলো ম্যাচের জয়ে ১৮ পয়েন্ট নিয়ে টেবিলে শীর্ষে আছে তারা।