০৭:৫৯ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৮ মে ২০২৪, ১৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ভাঙ্গুড়ায় গরম থেকে বাঁচতে শরবতের দোকানে ভিড়

গত কয়েক সপ্তাহের তাপপ্রবাহে জনজীবন দুর্বিষহ হয়ে উঠেছে। প্রখর রোদ আর তীব্র গরমে অতিষ্ঠ হয়ে স্বাভাবিক কাজকর্ম করতে পারছে না মানুষ। তাই তারা স্বস্তি খোঁজার চেষ্টা করছে ফুটপাতের শরবতের দোকানে।
তীব্র গরম বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে শরবতের চাহিদা বাড়ায় পাবনার ভাঙ্গুড়ায় বিভিন্ন স্থানে গড়ে উঠেছে ভ্রাম্যমাণ শরবতের দোকান। দিন দিন সেই সংখ্যা বাড়ছে। তৃষ্ণা মেটাতে এসব দোকানে বেশি ভিড় করছে অটোভ্যান চালক, দিনমজুর ও পথচারীরা।
আজ রোববার (৫ মে) ভাঙ্গুড়া উপজেলার বিভিন্ন এলাকা ঘুরে দেখা গেছে, সড়কের পাশে ও বিভিন্ন অলিগলিতে নানা ধরনের মুখরোচক শরবত বিক্রি করছেন বিক্রেতারা। আর গরমে অতিষ্ঠ হয়ে তৃপ্তিসহকারে তা পান করছে সাধারণ মানুষ।
বিভিন্ন রকমের শরবত বিক্রি হচ্ছে ভাসমান এসব দোকানে। বিক্রেতারা জানিয়েছেন, এবার গরমে প্রাণ যায় যায় অবস্থা। তাই প্রচণ্ড গরম থেকে প্রাণ বাঁচাতে, তৃষ্ণা মেটাতে তাদের দোকানে শরবত খেতে ভিড় করছেন মানুষ।
এ সময় লেবুর শরবতের চাহিদা সবচেয়ে বেশি। এ ছাড়া রয়েছে ইসবগুলের ভুসি, অরেঞ্জ পাউডার, আখের রস এবং বেল, পেঁপে, মাল্টা ও উলটকম্বলের শরবত।
ঈশ্বরদী আবহাওয়া অফিসের সহকারী পর্যবেক্ষক নাজমুল হক রঞ্জন দৈনিক সবুজ বাংলাকে বলেন, পাবনার উপর দিয়ে বয়ে যাওয়া তীব্র তাপপ্রবাহ পর্যাপ্ত বৃষ্টিপাত না হওয়া পর্যন্ত তাপমাত্রা কমার সম্ভাবনা নেই।

বিশ্বকাপের প্রস্তুতি ম্যাচে জয় কানাডা-ওমান ও নামিবিয়ার

ভাঙ্গুড়ায় গরম থেকে বাঁচতে শরবতের দোকানে ভিড়

আপডেট সময় : ০২:২৪:৪২ অপরাহ্ন, রবিবার, ৫ মে ২০২৪
গত কয়েক সপ্তাহের তাপপ্রবাহে জনজীবন দুর্বিষহ হয়ে উঠেছে। প্রখর রোদ আর তীব্র গরমে অতিষ্ঠ হয়ে স্বাভাবিক কাজকর্ম করতে পারছে না মানুষ। তাই তারা স্বস্তি খোঁজার চেষ্টা করছে ফুটপাতের শরবতের দোকানে।
তীব্র গরম বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে শরবতের চাহিদা বাড়ায় পাবনার ভাঙ্গুড়ায় বিভিন্ন স্থানে গড়ে উঠেছে ভ্রাম্যমাণ শরবতের দোকান। দিন দিন সেই সংখ্যা বাড়ছে। তৃষ্ণা মেটাতে এসব দোকানে বেশি ভিড় করছে অটোভ্যান চালক, দিনমজুর ও পথচারীরা।
আজ রোববার (৫ মে) ভাঙ্গুড়া উপজেলার বিভিন্ন এলাকা ঘুরে দেখা গেছে, সড়কের পাশে ও বিভিন্ন অলিগলিতে নানা ধরনের মুখরোচক শরবত বিক্রি করছেন বিক্রেতারা। আর গরমে অতিষ্ঠ হয়ে তৃপ্তিসহকারে তা পান করছে সাধারণ মানুষ।
বিভিন্ন রকমের শরবত বিক্রি হচ্ছে ভাসমান এসব দোকানে। বিক্রেতারা জানিয়েছেন, এবার গরমে প্রাণ যায় যায় অবস্থা। তাই প্রচণ্ড গরম থেকে প্রাণ বাঁচাতে, তৃষ্ণা মেটাতে তাদের দোকানে শরবত খেতে ভিড় করছেন মানুষ।
এ সময় লেবুর শরবতের চাহিদা সবচেয়ে বেশি। এ ছাড়া রয়েছে ইসবগুলের ভুসি, অরেঞ্জ পাউডার, আখের রস এবং বেল, পেঁপে, মাল্টা ও উলটকম্বলের শরবত।
ঈশ্বরদী আবহাওয়া অফিসের সহকারী পর্যবেক্ষক নাজমুল হক রঞ্জন দৈনিক সবুজ বাংলাকে বলেন, পাবনার উপর দিয়ে বয়ে যাওয়া তীব্র তাপপ্রবাহ পর্যাপ্ত বৃষ্টিপাত না হওয়া পর্যন্ত তাপমাত্রা কমার সম্ভাবনা নেই।