০৮:০২ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৩০ মে ২০২৪, ১৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

রাজস্থলী উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে জমে উঠছে দ্বিমুখী লড়াই

আগামী ২১ মে রাঙামাটির রাজস্থলী উপজেলা পরিষদের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। এতে চেয়ারম্যান পদে ২ জন, প্রতিদ্বন্ধিতা করছেন। গত ২ মে রাঙামাটি জেলা রিটার্নিং কর্মকর্তার কার্যালয়ে প্রতীক বরাদ্দের পর প্রার্থীরা গণসংযোগে ব্যস্ত হয়ে পড়েছেন। বুধবার সকাল হতে রাজস্থলী উপজেলার ৩ টি ইউনিয়নের বেশ কয়েকটি ওয়ার্ডে গিয়ে দেখা যায়, পোস্টারে পোস্টারে ছেয়ে গেছে বাজার, রাস্তাঘাট এবং অলিগলি। চায়ের দোকান কিংবা পাড়ার অলিতে-গলিতে এখন আলোচনার কেন্দ্র বিন্দু কে হবেন রাজস্থলী উপজেলা পরিষদ এর পরবর্তী চেয়ারম্যান।
এ সময় ভোটারদের সাথে কথা বলে জানা যায়, চেয়ারম্যান পদে উবাচ মারমা ও রিয়াজ উদ্দিন রানার মধ্যে দ্বিমুখী লড়াই হবে। এছাড়া ভাইস চেয়ারম্যান পদে হারাধন কর্মকার ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে গৌতমি খিয়াং বিনা প্রতিদ্ধদ্ধিতায় নির্বাচিত হয়েছেন।
এ উপজেলার অনেক ভোটারের সাথে কথা হয় এই প্রতিবেদকের। তারা সকলেই বলেন, একজন সৎ, যোগ্য এবং সবসময় জনগনের পাশে থাকবেন এমন প্রার্থীকে আমরা বেঁচে নিব। রাজস্থলী উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে আনারস প্রতীক নিয়ে অংশ নেওয়া রাজস্থলী উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও উপজেলা  পরিষদের বর্তমান চেয়ারম্যান উবাচ মারমা তার জয়ের ব্যাপারে শতভাগ আশাবাদ নিয়ে বলেন, সেই ছোট বেলা হতে আমি ছাত্র রাজনীতির সাথে জড়িত। একবার গাইন্দ্যা  ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এর দায়িত্ব পালন করেছি।বর্তমানে উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যানের দাযিত্ব পালন করছি। আমি সবসময় জনগণ হতে বিচ্ছিন্ন হই নাই। পূন্যরায় আমি যদি জয়ী হই, তাহলে সরকারের চলমান উন্নয়নের ধারা প্রত্যন্ত অঞ্চলে পৌঁছে দিব। একটি স্মার্ট, আধুনিক, মডেল উপজেলা হিসাবে রাজস্থলী উপজেলাকে গড়ে তুলবো।
দোয়াত কলম প্রতীক নিয়ে উপজেলা পরিষদ এর চেয়ারম্যান পদে লড়ছেন রুপান্তর বাংলার সম্পাদক ও প্রকাশক রিয়াজ উদ্দিন রানা। তিনি বলেন, আমি উপজেলা গিয়ে সবসময় জনগণের পাশে থাকার চেষ্টা করেছি। করোনা মহামারী সহ বিভিন্ন প্রাকৃতিক দূর্যোগে, নানা সামাজিক অনুষ্ঠানে সবসময় মানুষের পাশে থেকেছি। আশা করি জনগণ আমাকে বিপুল ভোটে জয়যুক্ত করবেন। আমি যদি জয়ী হই, তাহলে রাজস্থলী উপজেলাকে একটি মডেল  উপজেলা হিসাবে গড়ে তুলবো। পাশাপাশি প্রত্যেকটা পাড়ায় পাড়ায় সরকারের উন্নয়নকে জনগণের দৌঁড়গোঁড়ায় পৌঁছে দিব।
ফলে উন্নয়ন এর এই কর্মকান্ডকে উপজেলার প্রত্যেকটি ইউনিয়নে ছড়িয়ে দিতে আমি  চেয়ারম্যান প্রার্থী হয়েছি। প্রচার প্রচারনায় যেখানে যাচ্ছি যেখানে সকল শ্রেণির মানুষের ভালোবাসা এবং প্রতিশ্রুতি পাচ্ছি। জনগণ আমাকে বিপুল ভোটে জয়যুক্ত করবেন বলে আমার বিশ্বাস। আমি নির্বাচিত হলে উন্নয়ন কর্মকান্ডে নিজেকে সম্পৃক্ত করবো।
অতিরিক্ত দায়িত্ব কাপ্তাই উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা তানিয়া আক্তার বলেন, ৬ষ্ট উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে রাজস্থলী উপজেলায় ১৪ টি কেন্দ্রে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। সর্বমোট ২০ হাজার ৮ শত ৬৮জন ভোটার ভোটাধিকার প্রয়োগ করবেন।

রাজস্থলী উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে জমে উঠছে দ্বিমুখী লড়াই

আপডেট সময় : ০৫:৩৪:৫৬ অপরাহ্ন, বুধবার, ৮ মে ২০২৪
আগামী ২১ মে রাঙামাটির রাজস্থলী উপজেলা পরিষদের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। এতে চেয়ারম্যান পদে ২ জন, প্রতিদ্বন্ধিতা করছেন। গত ২ মে রাঙামাটি জেলা রিটার্নিং কর্মকর্তার কার্যালয়ে প্রতীক বরাদ্দের পর প্রার্থীরা গণসংযোগে ব্যস্ত হয়ে পড়েছেন। বুধবার সকাল হতে রাজস্থলী উপজেলার ৩ টি ইউনিয়নের বেশ কয়েকটি ওয়ার্ডে গিয়ে দেখা যায়, পোস্টারে পোস্টারে ছেয়ে গেছে বাজার, রাস্তাঘাট এবং অলিগলি। চায়ের দোকান কিংবা পাড়ার অলিতে-গলিতে এখন আলোচনার কেন্দ্র বিন্দু কে হবেন রাজস্থলী উপজেলা পরিষদ এর পরবর্তী চেয়ারম্যান।
এ সময় ভোটারদের সাথে কথা বলে জানা যায়, চেয়ারম্যান পদে উবাচ মারমা ও রিয়াজ উদ্দিন রানার মধ্যে দ্বিমুখী লড়াই হবে। এছাড়া ভাইস চেয়ারম্যান পদে হারাধন কর্মকার ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে গৌতমি খিয়াং বিনা প্রতিদ্ধদ্ধিতায় নির্বাচিত হয়েছেন।
এ উপজেলার অনেক ভোটারের সাথে কথা হয় এই প্রতিবেদকের। তারা সকলেই বলেন, একজন সৎ, যোগ্য এবং সবসময় জনগনের পাশে থাকবেন এমন প্রার্থীকে আমরা বেঁচে নিব। রাজস্থলী উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে আনারস প্রতীক নিয়ে অংশ নেওয়া রাজস্থলী উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও উপজেলা  পরিষদের বর্তমান চেয়ারম্যান উবাচ মারমা তার জয়ের ব্যাপারে শতভাগ আশাবাদ নিয়ে বলেন, সেই ছোট বেলা হতে আমি ছাত্র রাজনীতির সাথে জড়িত। একবার গাইন্দ্যা  ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এর দায়িত্ব পালন করেছি।বর্তমানে উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যানের দাযিত্ব পালন করছি। আমি সবসময় জনগণ হতে বিচ্ছিন্ন হই নাই। পূন্যরায় আমি যদি জয়ী হই, তাহলে সরকারের চলমান উন্নয়নের ধারা প্রত্যন্ত অঞ্চলে পৌঁছে দিব। একটি স্মার্ট, আধুনিক, মডেল উপজেলা হিসাবে রাজস্থলী উপজেলাকে গড়ে তুলবো।
দোয়াত কলম প্রতীক নিয়ে উপজেলা পরিষদ এর চেয়ারম্যান পদে লড়ছেন রুপান্তর বাংলার সম্পাদক ও প্রকাশক রিয়াজ উদ্দিন রানা। তিনি বলেন, আমি উপজেলা গিয়ে সবসময় জনগণের পাশে থাকার চেষ্টা করেছি। করোনা মহামারী সহ বিভিন্ন প্রাকৃতিক দূর্যোগে, নানা সামাজিক অনুষ্ঠানে সবসময় মানুষের পাশে থেকেছি। আশা করি জনগণ আমাকে বিপুল ভোটে জয়যুক্ত করবেন। আমি যদি জয়ী হই, তাহলে রাজস্থলী উপজেলাকে একটি মডেল  উপজেলা হিসাবে গড়ে তুলবো। পাশাপাশি প্রত্যেকটা পাড়ায় পাড়ায় সরকারের উন্নয়নকে জনগণের দৌঁড়গোঁড়ায় পৌঁছে দিব।
ফলে উন্নয়ন এর এই কর্মকান্ডকে উপজেলার প্রত্যেকটি ইউনিয়নে ছড়িয়ে দিতে আমি  চেয়ারম্যান প্রার্থী হয়েছি। প্রচার প্রচারনায় যেখানে যাচ্ছি যেখানে সকল শ্রেণির মানুষের ভালোবাসা এবং প্রতিশ্রুতি পাচ্ছি। জনগণ আমাকে বিপুল ভোটে জয়যুক্ত করবেন বলে আমার বিশ্বাস। আমি নির্বাচিত হলে উন্নয়ন কর্মকান্ডে নিজেকে সম্পৃক্ত করবো।
অতিরিক্ত দায়িত্ব কাপ্তাই উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা তানিয়া আক্তার বলেন, ৬ষ্ট উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে রাজস্থলী উপজেলায় ১৪ টি কেন্দ্রে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। সর্বমোট ২০ হাজার ৮ শত ৬৮জন ভোটার ভোটাধিকার প্রয়োগ করবেন।