০১:৪৭ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৩ জুন ২০২৪, ২৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ত্রিশাল উপজেলা পরিষদের নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান আনোয়ার সাদাত

ময়মনসিংহের ত্রিশাল উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে কাপ পিরিচ প্রতীকের প্রার্থী মুহাম্মদ আনোয়ার সাদাত ৩৯ হাজার ৩৬৬ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে বিজয়ী হয়েছেন। তিনি বিএনপির সাবেক এমপি ও সাবেক উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মরহুম আব্দুল খালেকের ছেলে।

 

 

তাঁর নিকটতম প্রতীদ্বন্দী কৈ মাছ প্রতীকের প্রার্থী ত্রিশাল উপজেলা শাখা যুবলীগের সভাপতি মোহাম্মদ জাহিদুল ইসলাম জুয়েল সরকার পেয়েছেন ৩১ হাজার ৮৮৭ ভোট। তিনি আওয়ামীলীগের সাবেক এমপি ও উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল মতিন সরকারের ছেলে।

 

 

এছাড়া দোয়াত কলম প্রতীক নিয়ে মোঃ মাজহারুল ইসলাম জুয়েল পেয়েছেন ২৫ হাজার ৯১৬ ভোট, মোটরসাইকেল প্রতীক নিয়ে মোঃ ইকবাল হোসেন পেয়েছেন ২২ হাজার ৪০৮ ভোট ও আনারস প্রতীক নিয়ে আবুল কালাম মোঃ শামছুদ্দিন পেয়েছেন ১৬ হাজার ৯৮৯ ভোট।

 

 

পুরুষ ভাইস চেয়ারম্যান পদে টিউবওয়েল প্রতীকের প্রার্থী মোঃ ইব্রাহীম খলিল (নয়ন) ৫৩ হাজার ৫১৩ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে জয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী তালা প্রতীকের প্রার্থী মোঃ হুমায়ুন কবির আকন্দ পেয়েছেন ৪৪ হাজার ৭৬৯ ভোট।

 

 

এছাড়া চশমা প্রতীকের প্রার্থী মীর মোহাম্মদ সারোয়ার আলম পেয়েছেন ৩৩ হাজার ৯০০ ভোট এবং উড়োজাহাজ প্রতীকের প্রার্থী প্রীতিময় মোদক পেয়েছেন ৩ হাজার ৩৪২ ভোট।

 

মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে কলস প্রতীকের প্রার্থী শিরিন ইসলাম চায়না ৭১ হাজার ৫৯৫ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে জয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী হাঁস প্রতীকের প্রার্থী লুৎফুন নেছা বিউটি পেয়েছেন ৩৪ হাজার ৭৯৭ ভোট।

 

 

এছাড়া পদ্মফুল প্রতীকের প্রার্থী মোছাঃ মাহমুদা খানম রুমা পেয়েছেন ২৪ হাজার ৮০৪ ভোট।

জনপ্রিয় সংবাদ

টিউশনের নামে প্রতারণার ফাঁদ

ত্রিশাল উপজেলা পরিষদের নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান আনোয়ার সাদাত

আপডেট সময় : ০৫:৫০:৫০ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৩০ মে ২০২৪

ময়মনসিংহের ত্রিশাল উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে কাপ পিরিচ প্রতীকের প্রার্থী মুহাম্মদ আনোয়ার সাদাত ৩৯ হাজার ৩৬৬ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে বিজয়ী হয়েছেন। তিনি বিএনপির সাবেক এমপি ও সাবেক উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মরহুম আব্দুল খালেকের ছেলে।

 

 

তাঁর নিকটতম প্রতীদ্বন্দী কৈ মাছ প্রতীকের প্রার্থী ত্রিশাল উপজেলা শাখা যুবলীগের সভাপতি মোহাম্মদ জাহিদুল ইসলাম জুয়েল সরকার পেয়েছেন ৩১ হাজার ৮৮৭ ভোট। তিনি আওয়ামীলীগের সাবেক এমপি ও উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল মতিন সরকারের ছেলে।

 

 

এছাড়া দোয়াত কলম প্রতীক নিয়ে মোঃ মাজহারুল ইসলাম জুয়েল পেয়েছেন ২৫ হাজার ৯১৬ ভোট, মোটরসাইকেল প্রতীক নিয়ে মোঃ ইকবাল হোসেন পেয়েছেন ২২ হাজার ৪০৮ ভোট ও আনারস প্রতীক নিয়ে আবুল কালাম মোঃ শামছুদ্দিন পেয়েছেন ১৬ হাজার ৯৮৯ ভোট।

 

 

পুরুষ ভাইস চেয়ারম্যান পদে টিউবওয়েল প্রতীকের প্রার্থী মোঃ ইব্রাহীম খলিল (নয়ন) ৫৩ হাজার ৫১৩ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে জয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী তালা প্রতীকের প্রার্থী মোঃ হুমায়ুন কবির আকন্দ পেয়েছেন ৪৪ হাজার ৭৬৯ ভোট।

 

 

এছাড়া চশমা প্রতীকের প্রার্থী মীর মোহাম্মদ সারোয়ার আলম পেয়েছেন ৩৩ হাজার ৯০০ ভোট এবং উড়োজাহাজ প্রতীকের প্রার্থী প্রীতিময় মোদক পেয়েছেন ৩ হাজার ৩৪২ ভোট।

 

মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে কলস প্রতীকের প্রার্থী শিরিন ইসলাম চায়না ৭১ হাজার ৫৯৫ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে জয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী হাঁস প্রতীকের প্রার্থী লুৎফুন নেছা বিউটি পেয়েছেন ৩৪ হাজার ৭৯৭ ভোট।

 

 

এছাড়া পদ্মফুল প্রতীকের প্রার্থী মোছাঃ মাহমুদা খানম রুমা পেয়েছেন ২৪ হাজার ৮০৪ ভোট।