০৩:২৫ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ২১ জুন ২০২৪, ৬ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

রাজশাহী আইএএইচটি শিক্ষার্থীদের ১১ দফা দাবিতে অবস্থান

রাজশাহী ইঞ্জিনিয়ারিং অব হেলথ টেকনোলজির শিক্ষার্থীরা ১১ দফা দাবিতে অবস্থান কর্মসূচি পালন করেছে। এসময় আইএএইচটিতে সকল ধরনের ক্লাস বন্ধ ছিল। শিক্ষার্থীরা মূল ফটকে তালা মেরে অবস্থান করে।

সোমবার (২৯ জানুয়ারি) সকাল ৯টা থেকে দুপুর ২টা পর্যন্ত এই অবস্থান চলে। এতে তারা মানববন্ধ ও সমাবেশও করেছে। অবস্থান চলা সময়ে দুই শিক্ষার্থী অসুস্থ হয়ে গেলে তাদের রামেক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।
আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের ১১ দফা দাবির মধ্যে আছে, সকল হোস্টেল খুলে দেওয়া, শিক্ষকদের হয়রানী বন্ধ, মেধাক্রমে নিজ ডিপার্টমেন্টে শিক্ষকতার সুযোগ, ল্যাবে প্রয়োজনী ইন্ট্রুমেন্ট নিয়ে আসা, ছাত্রীদের জন্য পৃথক টয়লেট নির্মাণ, মিডটার্ম পরীক্ষার ব্যবস্থা, বার্ষিক ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, মানসম্মত ক্যান্টিন ও
খেলার মাঠ সংস্কার, প্রশাসনিক ভবন সংস্কার ও ক্লাসরুমে সৌন্দর্য্য বৃদ্ধি, ছাত্রীদের হোস্টেলে পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতা নিরাপত্তা ও খাবারের মান বৃদ্ধি।

শিক্ষার্থীরা বলেন, এই ক্যাম্পাসে সমস্যা অনেক। বারবার বলেও কোনো সমাধান করেনি কর্তৃপক্ষ। তাই আমাদের বাধ্য হয়ে আন্দোলন করতে হচ্ছে। এই ক্যাম্পাসে আমরা শিক্ষা নিতে এসেছি। কিন্তু এর পরিবেশ শিক্ষা নেওয়ার মতো না। আমাদে দাবি না মানা হলে আমরা আরও কঠোর আন্দোলন করবো। রাজশাহী আইএএইচটির ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ ফারহানা হক মৌসুমী বলেন, আমি শিক্ষার্থীদের সাথে বসেছি। তাদের দাবিগুলো শুনবো। বিষয়টি মন্ত্রণালয়ে পাঠাবো। তারা যা সিদ্ধান্ত নেবেন আমি শিক্ষার্থীদের জানিয়ে দেবো।

জনপ্রিয় সংবাদ

শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে গ্রীষ্মের ছুটি কমল

রাজশাহী আইএএইচটি শিক্ষার্থীদের ১১ দফা দাবিতে অবস্থান

আপডেট সময় : ০৬:৩৮:১৯ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৯ জানুয়ারী ২০২৪

রাজশাহী ইঞ্জিনিয়ারিং অব হেলথ টেকনোলজির শিক্ষার্থীরা ১১ দফা দাবিতে অবস্থান কর্মসূচি পালন করেছে। এসময় আইএএইচটিতে সকল ধরনের ক্লাস বন্ধ ছিল। শিক্ষার্থীরা মূল ফটকে তালা মেরে অবস্থান করে।

সোমবার (২৯ জানুয়ারি) সকাল ৯টা থেকে দুপুর ২টা পর্যন্ত এই অবস্থান চলে। এতে তারা মানববন্ধ ও সমাবেশও করেছে। অবস্থান চলা সময়ে দুই শিক্ষার্থী অসুস্থ হয়ে গেলে তাদের রামেক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।
আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের ১১ দফা দাবির মধ্যে আছে, সকল হোস্টেল খুলে দেওয়া, শিক্ষকদের হয়রানী বন্ধ, মেধাক্রমে নিজ ডিপার্টমেন্টে শিক্ষকতার সুযোগ, ল্যাবে প্রয়োজনী ইন্ট্রুমেন্ট নিয়ে আসা, ছাত্রীদের জন্য পৃথক টয়লেট নির্মাণ, মিডটার্ম পরীক্ষার ব্যবস্থা, বার্ষিক ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, মানসম্মত ক্যান্টিন ও
খেলার মাঠ সংস্কার, প্রশাসনিক ভবন সংস্কার ও ক্লাসরুমে সৌন্দর্য্য বৃদ্ধি, ছাত্রীদের হোস্টেলে পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতা নিরাপত্তা ও খাবারের মান বৃদ্ধি।

শিক্ষার্থীরা বলেন, এই ক্যাম্পাসে সমস্যা অনেক। বারবার বলেও কোনো সমাধান করেনি কর্তৃপক্ষ। তাই আমাদের বাধ্য হয়ে আন্দোলন করতে হচ্ছে। এই ক্যাম্পাসে আমরা শিক্ষা নিতে এসেছি। কিন্তু এর পরিবেশ শিক্ষা নেওয়ার মতো না। আমাদে দাবি না মানা হলে আমরা আরও কঠোর আন্দোলন করবো। রাজশাহী আইএএইচটির ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ ফারহানা হক মৌসুমী বলেন, আমি শিক্ষার্থীদের সাথে বসেছি। তাদের দাবিগুলো শুনবো। বিষয়টি মন্ত্রণালয়ে পাঠাবো। তারা যা সিদ্ধান্ত নেবেন আমি শিক্ষার্থীদের জানিয়ে দেবো।