১০:১৮ অপরাহ্ন, রবিবার, ০৩ মার্চ ২০২৪, ২০ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

ভূঞাপুরে অনুমোদন ছাড়াই রাস্তা সংস্কারের কাজ শুরু 

টাঙ্গাইলের ভূঞাপুর উপজেলা ভারই দ্বিমুখী উচ্চবিদ্যালয়ের সামনের রাস্তাটি স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের অনুমোদন ( ওয়ার্ক পারমিট)  ছাড়াই সংস্কারের কাজ শুরু করে দিয়েছে ঠিকাদার।
এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, উপজেলার ভারই কবরস্থান থেকে ভারই উচ্চ বিদ্যালয় হয়ে ভারই সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় পর্যন্ত ১৬৫ মিটার রাস্তা গত বছর জানুয়ারীতে এডিবির আওতায়   সিসি ঢালাইয়ের মাধ্যমে সংস্কার করা। ঢালাই নিম্ন মানের হওয়ায়  বছর যেতে না যেতেই তা ভেঙে গেলে স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয় পুরাতন রাস্তা উপরে ফলে নতুন করে কার্পেটিং করার টেন্ডার আহ্বান করা হয়। এতে কাজ পায় আগের ঠিকাদারের নিকটজন ফাহিম ফারদিন এন্টারপ্রাইজ। পূর্বের কাজের জামানত উত্তোলনের মেয়াদে নতুন করে দরপত্র আহবান করা হয়।
অপরদিকে এই রাস্তায় কার্পেটিংয়ের করার কথা শুনেই ঠিকাদারের অসৎ উদ্দেশ্য হাসিলে উপজেলা ইন্জিনিয়ারের অনুমতি ছাড়া বা কাজের ওয়ার্ক পারমিট ছাড়া  রাস্তা উপড়ে ফেলে দেয় পুর্বের ঠিকাদার আওয়ামী লীগ নেতা এবং ফরিদ হত্যা মামলার অন্যতম আসামী লাল মাহমুদ।  এতে  করে এলাকায় লোকজনের চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। বিশেষ করে স্কুলগামী শিক্ষার্থীদের।
এ বিষয়ে ভারই দ্বি-মুখী উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক কামরুল ইসলাম বলেন, বর্তমানে রাস্তার এমন অবস্থা হয়েছে ভ্যান তো দূরের কথা পায়ে হেঁটে চলাচল করতেই খুব কষ্ট হচ্ছে। আর সাব ঠিকাদার লাল মাহমুদ এর সাথে তো কথাই বলা যায় না। সবার সাথে খারাপ আচরণ করে।
এ বিষয়ে উপজেলা প্রকৌশলী মোঃ শফিকুল ইসলাম সবুজ বাংলাকে জানান, ঐ রাস্তায় কাজ করার কোনো অনুমতি দেওয়া হয়নি। ঠিকাদার খামখেয়ালি করে রাস্তার ঢালাই তুলে নিয়ে গেছে। তার বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করা হচ্ছে।
স/মিফা

ভূঞাপুরে অনুমোদন ছাড়াই রাস্তা সংস্কারের কাজ শুরু 

আপডেট সময় : ০৫:০০:১৩ অপরাহ্ন, বুধবার, ৩১ জানুয়ারী ২০২৪
টাঙ্গাইলের ভূঞাপুর উপজেলা ভারই দ্বিমুখী উচ্চবিদ্যালয়ের সামনের রাস্তাটি স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের অনুমোদন ( ওয়ার্ক পারমিট)  ছাড়াই সংস্কারের কাজ শুরু করে দিয়েছে ঠিকাদার।
এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, উপজেলার ভারই কবরস্থান থেকে ভারই উচ্চ বিদ্যালয় হয়ে ভারই সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় পর্যন্ত ১৬৫ মিটার রাস্তা গত বছর জানুয়ারীতে এডিবির আওতায়   সিসি ঢালাইয়ের মাধ্যমে সংস্কার করা। ঢালাই নিম্ন মানের হওয়ায়  বছর যেতে না যেতেই তা ভেঙে গেলে স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয় পুরাতন রাস্তা উপরে ফলে নতুন করে কার্পেটিং করার টেন্ডার আহ্বান করা হয়। এতে কাজ পায় আগের ঠিকাদারের নিকটজন ফাহিম ফারদিন এন্টারপ্রাইজ। পূর্বের কাজের জামানত উত্তোলনের মেয়াদে নতুন করে দরপত্র আহবান করা হয়।
অপরদিকে এই রাস্তায় কার্পেটিংয়ের করার কথা শুনেই ঠিকাদারের অসৎ উদ্দেশ্য হাসিলে উপজেলা ইন্জিনিয়ারের অনুমতি ছাড়া বা কাজের ওয়ার্ক পারমিট ছাড়া  রাস্তা উপড়ে ফেলে দেয় পুর্বের ঠিকাদার আওয়ামী লীগ নেতা এবং ফরিদ হত্যা মামলার অন্যতম আসামী লাল মাহমুদ।  এতে  করে এলাকায় লোকজনের চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। বিশেষ করে স্কুলগামী শিক্ষার্থীদের।
এ বিষয়ে ভারই দ্বি-মুখী উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক কামরুল ইসলাম বলেন, বর্তমানে রাস্তার এমন অবস্থা হয়েছে ভ্যান তো দূরের কথা পায়ে হেঁটে চলাচল করতেই খুব কষ্ট হচ্ছে। আর সাব ঠিকাদার লাল মাহমুদ এর সাথে তো কথাই বলা যায় না। সবার সাথে খারাপ আচরণ করে।
এ বিষয়ে উপজেলা প্রকৌশলী মোঃ শফিকুল ইসলাম সবুজ বাংলাকে জানান, ঐ রাস্তায় কাজ করার কোনো অনুমতি দেওয়া হয়নি। ঠিকাদার খামখেয়ালি করে রাস্তার ঢালাই তুলে নিয়ে গেছে। তার বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করা হচ্ছে।
স/মিফা