০৯:১০ অপরাহ্ন, রবিবার, ০৩ মার্চ ২০২৪, ২০ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

কুবির ময়মনসিংহ ছাত্র কল্যাণ পরিষদের নবীন বরণ ও প্রবীণ বিদায় অনুষ্ঠিত 

কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ে (কুবি) আঞ্চলিক সংগঠন  ময়মনসিংহ ছাত্র কল্যাণ পরিষদ কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের উদ্যোগে নবীন বরণ ও প্রবীণ বিদায় সংবর্ধনা অনুষ্ঠিত হয়েছে। বৃহস্পতিবার (১ ফেব্রুয়ারি) রাশিদুল ইসলাম শুভ এবং হুমাইরা তাসনিম বিভার সঞ্চালনায় সন্ধ্যা ৬ টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের বিজ্ঞান অনুষদের হল রুমে অনুষ্ঠানটি আয়োজিত হয়।
প্রত্নতত্ত্ব বিভাগের শিক্ষার্থী মোঃ শহিদুল ইসলামের পবিত্র কুরআন তিলোয়াতের মাধ্যমে অনুষ্ঠান শুরু হয়।
অতিথি হিসেবে উপস্থিত আইসিটি বিভাগের প্রভাষক আলিমুল রাজী, গণিত বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক মো: জিল্লুর রহমান। এছাড়া উপস্থিত ছিলেন বৃহত্তর ময়মনসিংহ কল্যাণ সমিতি, কুমিল্লা সাধারণ সম্পাদক মো: মাজহারুল ইসলাম, দপ্তর ও প্রচার সম্পাদক মো: মোস্তাফিজুর রহমান আলম, অর্থ সম্পাদক হাকিম মো: আজিজুর রহমান মোল্লা।
প্রভাষক আলিমুল রাজী বলেন, “এবারের প্রোগ্রামটা গতবারের চেয়ে ছোট। আমরা যদি একত্রে থাকতাম আজকের প্রোগ্রামটা আরও বড় হতো। সংগঠনের অনুষ্ঠানের ছবি গুলো স্মৃতি বহন করে। এখান থেকে চলে গেলে এসব স্মৃতি হয়ে থাকবে। সবকিছু পরিকল্পনা করে করা উচিত।”
বৃহত্তর ময়মনসিংহ কল্যাণ সমিতির দপ্তর ও প্রচার সম্পাদক মো: মোস্তাফিজুর রহমান আলম বলেন, “আমাদের সমিতির স্লোগান ছিল, এসো মিলি প্রাণের টানে। আমাদের মধ্যে থেকে টাঙ্গাইল এবং কিশোরগঞ্জ আলাদা হয়ে গেছে। আলাদা হলেও তারা এখনো আমাদের সাথে। আমাদের শেকড় এক। ময়মনসিংহের সুনাম রক্ষা করার চেষ্টা করবে। ময়মনসিংহের সুনাম তোমাদের উপর নির্ভর করবে।”
 সংগঠনটির সাধারণ সম্পাদক এম. এম. হাশমী সরকার বলেন, “আমি যখন আসি তখন ভানিনি ময়মনসিংহের কাউকে পাবো। যখন এই সংগঠনে আসি তখন আমাদের সংখ্যা অনেক কম ছিল। এখন তো আমাদের সংগঠন অনেক বড় হয়েছে। আরেকটা ভরসার জায়গা হচ্ছে বৃহত্তর ময়মনসিংহ কল্যাণ সমিতি।”
সভাপতি জিয়াউল হক উজ্জ্বল বলেন, “প্রবীণরা আমাদের সংগঠনের সকল কাজে ছিল এবং সহযোগিতা করেছিল। নবীনরা সকল সিনিয়রদের সাথে মিলেমিশে চলবে। নবীনদের জন্য শুভেচ্ছা এবং প্রবীণদের বিদায়ে আমি কিছুটা ভারাক্রান্ত।”
আলোচনা অনুষ্ঠান শেষে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

ফুটপাত থেকে হকার মুক্ত করতে চসিকের ফের অভিযান

কুবির ময়মনসিংহ ছাত্র কল্যাণ পরিষদের নবীন বরণ ও প্রবীণ বিদায় অনুষ্ঠিত 

আপডেট সময় : ১০:২০:২৬ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪
কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ে (কুবি) আঞ্চলিক সংগঠন  ময়মনসিংহ ছাত্র কল্যাণ পরিষদ কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের উদ্যোগে নবীন বরণ ও প্রবীণ বিদায় সংবর্ধনা অনুষ্ঠিত হয়েছে। বৃহস্পতিবার (১ ফেব্রুয়ারি) রাশিদুল ইসলাম শুভ এবং হুমাইরা তাসনিম বিভার সঞ্চালনায় সন্ধ্যা ৬ টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের বিজ্ঞান অনুষদের হল রুমে অনুষ্ঠানটি আয়োজিত হয়।
প্রত্নতত্ত্ব বিভাগের শিক্ষার্থী মোঃ শহিদুল ইসলামের পবিত্র কুরআন তিলোয়াতের মাধ্যমে অনুষ্ঠান শুরু হয়।
অতিথি হিসেবে উপস্থিত আইসিটি বিভাগের প্রভাষক আলিমুল রাজী, গণিত বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক মো: জিল্লুর রহমান। এছাড়া উপস্থিত ছিলেন বৃহত্তর ময়মনসিংহ কল্যাণ সমিতি, কুমিল্লা সাধারণ সম্পাদক মো: মাজহারুল ইসলাম, দপ্তর ও প্রচার সম্পাদক মো: মোস্তাফিজুর রহমান আলম, অর্থ সম্পাদক হাকিম মো: আজিজুর রহমান মোল্লা।
প্রভাষক আলিমুল রাজী বলেন, “এবারের প্রোগ্রামটা গতবারের চেয়ে ছোট। আমরা যদি একত্রে থাকতাম আজকের প্রোগ্রামটা আরও বড় হতো। সংগঠনের অনুষ্ঠানের ছবি গুলো স্মৃতি বহন করে। এখান থেকে চলে গেলে এসব স্মৃতি হয়ে থাকবে। সবকিছু পরিকল্পনা করে করা উচিত।”
বৃহত্তর ময়মনসিংহ কল্যাণ সমিতির দপ্তর ও প্রচার সম্পাদক মো: মোস্তাফিজুর রহমান আলম বলেন, “আমাদের সমিতির স্লোগান ছিল, এসো মিলি প্রাণের টানে। আমাদের মধ্যে থেকে টাঙ্গাইল এবং কিশোরগঞ্জ আলাদা হয়ে গেছে। আলাদা হলেও তারা এখনো আমাদের সাথে। আমাদের শেকড় এক। ময়মনসিংহের সুনাম রক্ষা করার চেষ্টা করবে। ময়মনসিংহের সুনাম তোমাদের উপর নির্ভর করবে।”
 সংগঠনটির সাধারণ সম্পাদক এম. এম. হাশমী সরকার বলেন, “আমি যখন আসি তখন ভানিনি ময়মনসিংহের কাউকে পাবো। যখন এই সংগঠনে আসি তখন আমাদের সংখ্যা অনেক কম ছিল। এখন তো আমাদের সংগঠন অনেক বড় হয়েছে। আরেকটা ভরসার জায়গা হচ্ছে বৃহত্তর ময়মনসিংহ কল্যাণ সমিতি।”
সভাপতি জিয়াউল হক উজ্জ্বল বলেন, “প্রবীণরা আমাদের সংগঠনের সকল কাজে ছিল এবং সহযোগিতা করেছিল। নবীনরা সকল সিনিয়রদের সাথে মিলেমিশে চলবে। নবীনদের জন্য শুভেচ্ছা এবং প্রবীণদের বিদায়ে আমি কিছুটা ভারাক্রান্ত।”
আলোচনা অনুষ্ঠান শেষে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।