১০:২৩ অপরাহ্ন, রবিবার, ০৩ মার্চ ২০২৪, ২০ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

‘ভাষা ও সাংস্কৃতিক আধিপত্যের’ প্রতিবাদে সভা

১৯৪৭ সালে পাকিস্তান প্রতিষ্ঠার কয়েক মাসের মধ্যেই বাংলা ভাষার গুরুত্ব নিয়ে প্রশ্ন তৈরি হয়। তখন থেকেই বাঙালি ছাত্র ও নেতাদের কেন্দ্রীয় প্রশাসনের সঙ্গে আলাপ আলোচনা ও দাওয়াতে বাংলা ভাষাকে সরকারি মর্যাদা দেওয়ার দাবি তোলা হয়; যা ১৯৪৮ সালের শুরুতেই ভাষা আন্দোলনের সূত্রপাত ঘটায়। মূলত সাংস্কৃতিক আন্দোলনের মাধ্যমে এর সূচনা হলেও ক্রমে এটি একটি রাজনৈতিক আন্দোলনে রূপ নেয়; যা ক্রমান্বয়ে ছোটো বড় ঘটনার মধ্য দিয়ে আন্দোলন বেগবান হতে থাকে। যার পরিক্রমায় ১৯৫২ সালের ২১ ফেব্রুয়ারি পাকিস্তানি স্বৈরাশাসকের রক্তচক্ষু উপেক্ষা করে ১৪৪ ধারা ভঙ্গ করে ছাত্র-জনতা। এর আগে ৩ ফেব্রুয়ারি তৎকালীন পূর্ববঙ্গজুড়ে ‘ভাষা ও সাংস্কৃতিক আধিপত্যের’ প্রতিবাদে কমিটি অব অ্যাকশন ঢাকায় আওয়ামী লীগ প্রতিবাদ সভা ডাকে। এভাবে বাংলা ভাষার দাবি পরবর্তীকালে ধীরে ধীরে রাজনৈতিক, অর্থনৈতিক শোষণের বিরুদ্ধে রাজনৈতিক আন্দোলনে রূপ নেয়।

 

 

 

স/ম

‘ভাষা ও সাংস্কৃতিক আধিপত্যের’ প্রতিবাদে সভা

আপডেট সময় : ০১:০৪:২০ অপরাহ্ন, শনিবার, ৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

১৯৪৭ সালে পাকিস্তান প্রতিষ্ঠার কয়েক মাসের মধ্যেই বাংলা ভাষার গুরুত্ব নিয়ে প্রশ্ন তৈরি হয়। তখন থেকেই বাঙালি ছাত্র ও নেতাদের কেন্দ্রীয় প্রশাসনের সঙ্গে আলাপ আলোচনা ও দাওয়াতে বাংলা ভাষাকে সরকারি মর্যাদা দেওয়ার দাবি তোলা হয়; যা ১৯৪৮ সালের শুরুতেই ভাষা আন্দোলনের সূত্রপাত ঘটায়। মূলত সাংস্কৃতিক আন্দোলনের মাধ্যমে এর সূচনা হলেও ক্রমে এটি একটি রাজনৈতিক আন্দোলনে রূপ নেয়; যা ক্রমান্বয়ে ছোটো বড় ঘটনার মধ্য দিয়ে আন্দোলন বেগবান হতে থাকে। যার পরিক্রমায় ১৯৫২ সালের ২১ ফেব্রুয়ারি পাকিস্তানি স্বৈরাশাসকের রক্তচক্ষু উপেক্ষা করে ১৪৪ ধারা ভঙ্গ করে ছাত্র-জনতা। এর আগে ৩ ফেব্রুয়ারি তৎকালীন পূর্ববঙ্গজুড়ে ‘ভাষা ও সাংস্কৃতিক আধিপত্যের’ প্রতিবাদে কমিটি অব অ্যাকশন ঢাকায় আওয়ামী লীগ প্রতিবাদ সভা ডাকে। এভাবে বাংলা ভাষার দাবি পরবর্তীকালে ধীরে ধীরে রাজনৈতিক, অর্থনৈতিক শোষণের বিরুদ্ধে রাজনৈতিক আন্দোলনে রূপ নেয়।

 

 

 

স/ম