১০:৫০ অপরাহ্ন, রবিবার, ০৩ মার্চ ২০২৪, ২০ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
নির্বাচনের এক মাস পার

শঙ্কা উতরে স্বস্তিতে সরকার

  • সাইফ আশরাফ 
  • আপডেট সময় : ১২:১৫:৪৬ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪
  • 10
দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের এক মাস পূর্ণ হয়েছে গতকাল বুধবার। গত মাসের ৭ জানুয়ারি নানা শঙ্কা ও দ্বিধার এবং বিএনপি-জামায়াতসহ সমমনা দলগুলোর ভোট বর্জন ও আন্দোলনের মধ্যেই ওই নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। নির্বাচনের পূর্বে যুক্তারাষ্ট্রের আগ্রহ, দেশটির রাষ্ট্রদূত পিটার হাসের সক্রিয়তা ছাড়াও নির্বাচনের পর ছিল ভিসানীতি প্রয়োগ ও নিষেধাজ্ঞার শঙ্কা। কিন্তু সব বাধা উতরে দ্বাদশ জাতীয় নির্বাচনে নিরুঙ্কুশ বিজয় লাভের পর গঠিত নতুন সরকার এখন অনেকটা স্বস্তিতে।
গত এক মাসে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য ছাড়াও বন্ধুরাষ্ট্র ভারত, রাশিয়া ও উন্নয়ন সহযোগী চীনসহ বিশে^র বহু উন্নত উন্নয়নশীল দেশের রাষ্ট্র প্রধানরা শেখ হাসিনা ও নতুন সরকারকে শুভেচ্ছা জানিয়ে, এক সঙ্গে কাজ করার প্রত্যয় ব্যক্ত করে স্বীকৃতি জানিয়েছে। গতকাল বুধবার জাতীয় সংসদের অধিবেশনে প্রশ্নোত্তর পর্বে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা  জানান, দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিজয়ী হয়ে নতুন সরকার গঠন করায় ৪৮টি দেশের রাষ্ট্র ও সরকারপ্রধান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে অভিনন্দন বার্তা পাঠিয়েছেন। এছাড়া ২৫টি আন্তর্জাতিক সংস্থা, সরকারি ও বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধিও তাকে অভিনন্দন জানান। নির্বাচনে পর্যবেক্ষকদের তথ্য তুলে ধরে তিনি বলেন, বিশ্বের ৪১টি দেশ থেকে ১২৬ জন পর্যবেক্ষক দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন পর্যবেক্ষণ করতে বাংলাদেশে আসেন। সরকারিভাবে ও বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সংস্থা থেকে ৪৫ জন এবং স্বাধীনভাবে ৭৯ জন বিদেশি পর্যবেক্ষক এ নির্বাচনে পর্যবেক্ষক হিসেবে অংশ নেন। গত বৃহস্পতিবার যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র দপ্তরের নিয়মিত ব্রিফিংয়ে মুখপাত্র ম্যাথু মিলার বলেন, বাংলাদেশের নির্বাচন নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশের মানে এটা নয় যে, বাংলাদেশ সরকারের সঙ্গে কাজ করার দায়িত্ব নেই। নির্বাচন নিয়ে গত দুই বছর ধরেই সোচ্চার ছিল দেশটি। অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচন অনুষ্ঠানে চাপ দেওয়ার অংশ হিসেবে ভিসানীতির পর শ্রমনীতিও ঘোষণা করে। তবে নির্বাচনের পর দেশটি বলেছে তারা বাণিজ্যসহ নানা বিষয়ে বাংলাদেশের সঙ্গে সম্পর্ক গভীর করবে। সবশেষ গতকাল বুধবার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে চিঠি পাঠিয়েছেন যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রী ঋষি সুনাক। তাতে তিনি বাংলাদেশকে এলডিসি থেকে উত্তরণ এবং অর্থনৈতিক ও নিরাপত্তা অংশীদারত্ব জোরদারে সমর্থন করার প্রতিশ্রুতি ব্যক্ত করেন। সার্বিক বিষয়ে আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আহমদ হোসেন বলেন, জনগণ পক্ষে থাকলে কাউকে দমিয়ে রাখা সম্ভব নয়, যেমন বঙ্গবন্ধুকে দমিয়ে রাখা সম্ভব হয়নি, শেখ হাসিনাকেও দমিয়ে রাখা সম্ভব না।
স/ম

নির্বাচনের এক মাস পার

শঙ্কা উতরে স্বস্তিতে সরকার

আপডেট সময় : ১২:১৫:৪৬ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪
দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের এক মাস পূর্ণ হয়েছে গতকাল বুধবার। গত মাসের ৭ জানুয়ারি নানা শঙ্কা ও দ্বিধার এবং বিএনপি-জামায়াতসহ সমমনা দলগুলোর ভোট বর্জন ও আন্দোলনের মধ্যেই ওই নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। নির্বাচনের পূর্বে যুক্তারাষ্ট্রের আগ্রহ, দেশটির রাষ্ট্রদূত পিটার হাসের সক্রিয়তা ছাড়াও নির্বাচনের পর ছিল ভিসানীতি প্রয়োগ ও নিষেধাজ্ঞার শঙ্কা। কিন্তু সব বাধা উতরে দ্বাদশ জাতীয় নির্বাচনে নিরুঙ্কুশ বিজয় লাভের পর গঠিত নতুন সরকার এখন অনেকটা স্বস্তিতে।
গত এক মাসে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য ছাড়াও বন্ধুরাষ্ট্র ভারত, রাশিয়া ও উন্নয়ন সহযোগী চীনসহ বিশে^র বহু উন্নত উন্নয়নশীল দেশের রাষ্ট্র প্রধানরা শেখ হাসিনা ও নতুন সরকারকে শুভেচ্ছা জানিয়ে, এক সঙ্গে কাজ করার প্রত্যয় ব্যক্ত করে স্বীকৃতি জানিয়েছে। গতকাল বুধবার জাতীয় সংসদের অধিবেশনে প্রশ্নোত্তর পর্বে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা  জানান, দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিজয়ী হয়ে নতুন সরকার গঠন করায় ৪৮টি দেশের রাষ্ট্র ও সরকারপ্রধান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে অভিনন্দন বার্তা পাঠিয়েছেন। এছাড়া ২৫টি আন্তর্জাতিক সংস্থা, সরকারি ও বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধিও তাকে অভিনন্দন জানান। নির্বাচনে পর্যবেক্ষকদের তথ্য তুলে ধরে তিনি বলেন, বিশ্বের ৪১টি দেশ থেকে ১২৬ জন পর্যবেক্ষক দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন পর্যবেক্ষণ করতে বাংলাদেশে আসেন। সরকারিভাবে ও বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সংস্থা থেকে ৪৫ জন এবং স্বাধীনভাবে ৭৯ জন বিদেশি পর্যবেক্ষক এ নির্বাচনে পর্যবেক্ষক হিসেবে অংশ নেন। গত বৃহস্পতিবার যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র দপ্তরের নিয়মিত ব্রিফিংয়ে মুখপাত্র ম্যাথু মিলার বলেন, বাংলাদেশের নির্বাচন নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশের মানে এটা নয় যে, বাংলাদেশ সরকারের সঙ্গে কাজ করার দায়িত্ব নেই। নির্বাচন নিয়ে গত দুই বছর ধরেই সোচ্চার ছিল দেশটি। অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচন অনুষ্ঠানে চাপ দেওয়ার অংশ হিসেবে ভিসানীতির পর শ্রমনীতিও ঘোষণা করে। তবে নির্বাচনের পর দেশটি বলেছে তারা বাণিজ্যসহ নানা বিষয়ে বাংলাদেশের সঙ্গে সম্পর্ক গভীর করবে। সবশেষ গতকাল বুধবার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে চিঠি পাঠিয়েছেন যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রী ঋষি সুনাক। তাতে তিনি বাংলাদেশকে এলডিসি থেকে উত্তরণ এবং অর্থনৈতিক ও নিরাপত্তা অংশীদারত্ব জোরদারে সমর্থন করার প্রতিশ্রুতি ব্যক্ত করেন। সার্বিক বিষয়ে আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আহমদ হোসেন বলেন, জনগণ পক্ষে থাকলে কাউকে দমিয়ে রাখা সম্ভব নয়, যেমন বঙ্গবন্ধুকে দমিয়ে রাখা সম্ভব হয়নি, শেখ হাসিনাকেও দমিয়ে রাখা সম্ভব না।
স/ম