০৮:০৭ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৪ এপ্রিল ২০২৪, ১ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

যে গবেষণা মানুষের কাজে আসবে না সেই গবেষণার প্রয়োজন নেই: চবি উপাচার্য 

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের নবনিযুক্ত উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আবু তাহের বলেছেন, যে গবেষণা মানুষের কাজে আসবে না সেই গবেষণার প্রয়োজন নেই। বিশ্ববিদ্যালয়ের মূল কাজ হচ্ছে জ্ঞান সৃষ্টি, জ্ঞান বিতরণ ও জ্ঞান সংরক্ষণ। জ্ঞান সৃষ্টি করতে প্রয়োজন গবেষণা। বিশ্ববিদ্যালয় হচ্ছে গবেষণার মূল জায়গা। শিক্ষক শিক্ষার্থীদের জীবনের মূল লক্ষ্যই হবে গবেষণা করা।
বৃহস্পতিবার (২১ মার্চ) সকাল সাড়ে ৯টায় বিশ্ববিদ্যালয় সিন্ডিকেট কক্ষে চবি সাংবাদিক সমিতির সাথে মতবিনিময় সভায় তিন এসব কথা জানান। এসময় তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষা, গবেষণা ও উন্নয়ন নিয়ে কথা বলেন। পাশাপাশি একাডেমিক ও অবকাঠামোগত উন্নয়নের জন্য মাস্টারপ্ল্যানের গুরুত্ব তুলে ধরেন।
তিনি বলেন, ইউজিসিতে থাকায় গত বছর কয়েকটা বিশ্ববিদ্যালয়ের র‍্যাংকিংয়ের দায়িত্ব নিয়েছি। সবগুলো র‌্যাংকিংয়ে ঢুকেছে। কিন্তু চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় ঢুকবেনা কেনো? এখানে এসে শুনলাম আবেদনই করা হয়নি।
আবেদনই না করলে কিভাবে বুঝবো আমরা কোন পর্যায়ে? বছরে যদি দেড়শো আর্টিকেল পাবলিশ হয় তাহলে র‍্যাংকিংয়ের জন্য আবেদন করা যায়। চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে টিচার আছে এগারশো, তো দেড়শো আর্টিকেল হয়নি কেনো? আমি টিচারদের সাথে যখন বসবো আমি এগুলো বলবো।
তিনি আরও বলেন, ভালো মানের আর্টিকেল হলে আমার নিজের তহবিল থেকে এওয়ার্ড দিবো। আমাদের মানসম্মত গবেষণা লাগবে। শুধু বাংলাদেশে নয়, আন্তর্জাতিকভাবে মানসম্মত হতে হবে।
ভালো মানের জার্নাল পাবলিশ হতে হবে।আমাদের চিন্তা করতে হবে বিশ্ববিদ্যালয়ে মাস্টার্সে অধ্যায়নরত শিক্ষার্থীদের কিভাবে গবেষণার সাথে যুক্ত করা যায়। এটা আমার একটা প্লান। যারা ডিপার্টমেন্টে ফার্স্ট, সেকেন্ড, থার্ড হবে তাদেরকে অবশ্যই গবেষণার সাথে যুক্ত করতে হবে। উপাচার্য বলেন, যোগ্যতার ভিত্তিতে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক নিয়োগ দিতে হবে। একজন অযোগ্য ব্যক্তিকে শিক্ষক হিসেবে নিয়োগ দিলে সে ৪০ বছর ধরে বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্ষতি করবে। নিয়োগের ক্ষেত্রে কোনো ছাড় নেই। যেকোনো মূল্যে যোগ্য ও মেধাবী শিক্ষক নিয়োগ দিতে হবে।
মতবিনিময় সভায় উপস্থিত ছিলেন চবি সাংবাদিক সমিতির সহ-সভাপতি আহমেদ জুনাইদ, সাধারণ সম্পাদক রোকনুজ্জামান, যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক শাহরিয়াজ মোহাম্মদ, দপ্তর, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক জানে আলম’সহ সমিতির সদস্যবৃন্দ।
জনপ্রিয় সংবাদ

যে গবেষণা মানুষের কাজে আসবে না সেই গবেষণার প্রয়োজন নেই: চবি উপাচার্য 

আপডেট সময় : ০৪:৫৮:২১ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২১ মার্চ ২০২৪
চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের নবনিযুক্ত উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আবু তাহের বলেছেন, যে গবেষণা মানুষের কাজে আসবে না সেই গবেষণার প্রয়োজন নেই। বিশ্ববিদ্যালয়ের মূল কাজ হচ্ছে জ্ঞান সৃষ্টি, জ্ঞান বিতরণ ও জ্ঞান সংরক্ষণ। জ্ঞান সৃষ্টি করতে প্রয়োজন গবেষণা। বিশ্ববিদ্যালয় হচ্ছে গবেষণার মূল জায়গা। শিক্ষক শিক্ষার্থীদের জীবনের মূল লক্ষ্যই হবে গবেষণা করা।
বৃহস্পতিবার (২১ মার্চ) সকাল সাড়ে ৯টায় বিশ্ববিদ্যালয় সিন্ডিকেট কক্ষে চবি সাংবাদিক সমিতির সাথে মতবিনিময় সভায় তিন এসব কথা জানান। এসময় তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষা, গবেষণা ও উন্নয়ন নিয়ে কথা বলেন। পাশাপাশি একাডেমিক ও অবকাঠামোগত উন্নয়নের জন্য মাস্টারপ্ল্যানের গুরুত্ব তুলে ধরেন।
তিনি বলেন, ইউজিসিতে থাকায় গত বছর কয়েকটা বিশ্ববিদ্যালয়ের র‍্যাংকিংয়ের দায়িত্ব নিয়েছি। সবগুলো র‌্যাংকিংয়ে ঢুকেছে। কিন্তু চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় ঢুকবেনা কেনো? এখানে এসে শুনলাম আবেদনই করা হয়নি।
আবেদনই না করলে কিভাবে বুঝবো আমরা কোন পর্যায়ে? বছরে যদি দেড়শো আর্টিকেল পাবলিশ হয় তাহলে র‍্যাংকিংয়ের জন্য আবেদন করা যায়। চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে টিচার আছে এগারশো, তো দেড়শো আর্টিকেল হয়নি কেনো? আমি টিচারদের সাথে যখন বসবো আমি এগুলো বলবো।
তিনি আরও বলেন, ভালো মানের আর্টিকেল হলে আমার নিজের তহবিল থেকে এওয়ার্ড দিবো। আমাদের মানসম্মত গবেষণা লাগবে। শুধু বাংলাদেশে নয়, আন্তর্জাতিকভাবে মানসম্মত হতে হবে।
ভালো মানের জার্নাল পাবলিশ হতে হবে।আমাদের চিন্তা করতে হবে বিশ্ববিদ্যালয়ে মাস্টার্সে অধ্যায়নরত শিক্ষার্থীদের কিভাবে গবেষণার সাথে যুক্ত করা যায়। এটা আমার একটা প্লান। যারা ডিপার্টমেন্টে ফার্স্ট, সেকেন্ড, থার্ড হবে তাদেরকে অবশ্যই গবেষণার সাথে যুক্ত করতে হবে। উপাচার্য বলেন, যোগ্যতার ভিত্তিতে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক নিয়োগ দিতে হবে। একজন অযোগ্য ব্যক্তিকে শিক্ষক হিসেবে নিয়োগ দিলে সে ৪০ বছর ধরে বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্ষতি করবে। নিয়োগের ক্ষেত্রে কোনো ছাড় নেই। যেকোনো মূল্যে যোগ্য ও মেধাবী শিক্ষক নিয়োগ দিতে হবে।
মতবিনিময় সভায় উপস্থিত ছিলেন চবি সাংবাদিক সমিতির সহ-সভাপতি আহমেদ জুনাইদ, সাধারণ সম্পাদক রোকনুজ্জামান, যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক শাহরিয়াজ মোহাম্মদ, দপ্তর, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক জানে আলম’সহ সমিতির সদস্যবৃন্দ।