০৭:০৪ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২২ এপ্রিল ২০২৪, ৯ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

যুক্তরাষ্ট্রে প্রতি ১৩ সেতুর একটির কাঠামো দুর্বল

 

 

বিশ্বের বৃহত্তম অর্থনীতির দেশ যুক্তরাষ্ট্রে রয়েছে ছয় লাখেরও বেশি সেতু। ছোট-বড় এসব সেতুর অনেকগুলোই আবার অদ্ভুতদর্শন; কিন্তু আকার ও আকৃতিতে বিচিত্র এসব সেতুর একটি বড় অংশই কাঠামোগতভাবে দুর্বল। মোট সেতুর সাড়ে সাত শতাংশ কাঠামোগতভাবে দুর্বল বলে জানিয়েছে আমেরিকান সোসাইটি অব সিভিল ইঞ্জিনিয়ার্স বিভাগ। আমেরিকান সোসাইটি অব সিভিল ইঞ্জিনিয়ার্স বিভাগ এবং ফেডারেল সরকার জানিয়েছে, আমেরিকায় ৪৬ হাজারের বেশি সেতুর কাঠামোগতভাবে দুর্বল অবস্থায় রয়েছে। যার মধ্যে ১৭ হাজার সেতু রয়েছে একক আঘাতে ভেঙে পড়ার ঝুঁকিতে। ভূমিকম্প ও হারিকেনের মত ঘটনা, ভারী ট্রাক ও বৃহত্তর কনটেইনারবাহী জাহাজের সংঘর্ষের কারণে যুক্তরাষ্ট্রের সেতুগুলোর জন্য উল্লেখযোগ্য ঝুঁকি তৈরি করে।

 

 

মার্কিন সংবাদমাধ্যম সিএনএনের প্রতিবেদনে বলা হয়, যুক্তরাষ্ট্রে প্রতি ১৩টি সেতুর মধ্যে একটির অবস্থা কাঠামোগতভাবে দুর্বল বলে জানিয়েছে আমেরিকান সোসাইটি অব সিভিল ইঞ্জিনিয়ার্স বিভাগ। তবে এসব সেতুকে এখনই ঝুঁকিপূর্ণ বলা যাবে না। মোট সেতুর সাড়ে ৭ শতাংশ ভবিষ্যতে ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে উঠতে পারে, এটা কোনোভাবেই ভালো কথা নয়। সম্প্রতি জাহাজের ধাক্কায় ভেঙে পড়া বাল্টিমোরের সেতু ৪৭ বছর আগে নিমার্ণ করা হয়েছিল। সেতুতে এক লাখ টনেরও বেশি ওজনের ডালি নামক জাহাজ আঘাত হানলে এক মিনিটেরও কম সময়ে ভেঙে পড়ে। এর ফলে বাল্টিমোর বন্দর কোটি কোটি ডলার ক্ষতির সম্মুখীন হবে। যুক্তরাষ্ট্রে রাজ্যগুলো প্রতি দুই বছরে অন্তত একবার মহাসড়কের সেতুগুলো পরিদর্শন করে এবং সেগুলোর ভালো ও দুর্বল কাঠামোগতভাবে শ্রেণিবদ্ধ করা হয়েছে।
আমেরিকান সোসাইটি অব সিভিল ইঞ্জিনিয়ার্স বিভাগের ২০২১ সালে প্রকাশিত অবকাঠামো প্রতিবেদন অনুযায়ী, যুক্তরাষ্ট্রজুড়ে ছয় লাখ ১৭ হাজার সেতুর প্রায় ৪৬ হাজার ১০০ সেতু কাঠামোগতভাবে দুর্বল। যা মোট সেতুর সাড়ে ৭ শতাংশ। সেতুগুলো অনিরাপদ নয়। তবে ঝুঁকি রয়েছে। প্রায় ২১ হাজার সেতু ভূমিকম্প, হারিকেনের মতো প্রাকৃতিক ঘটনায় সেতুর ভিত্তি হুমকির জন্য সংবেদনশীল বলে দেখা গেছে।

 

জনপ্রিয় সংবাদ

যুক্তরাষ্ট্রে প্রতি ১৩ সেতুর একটির কাঠামো দুর্বল

আপডেট সময় : ০৭:৪৬:৩৪ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ১ এপ্রিল ২০২৪

 

 

বিশ্বের বৃহত্তম অর্থনীতির দেশ যুক্তরাষ্ট্রে রয়েছে ছয় লাখেরও বেশি সেতু। ছোট-বড় এসব সেতুর অনেকগুলোই আবার অদ্ভুতদর্শন; কিন্তু আকার ও আকৃতিতে বিচিত্র এসব সেতুর একটি বড় অংশই কাঠামোগতভাবে দুর্বল। মোট সেতুর সাড়ে সাত শতাংশ কাঠামোগতভাবে দুর্বল বলে জানিয়েছে আমেরিকান সোসাইটি অব সিভিল ইঞ্জিনিয়ার্স বিভাগ। আমেরিকান সোসাইটি অব সিভিল ইঞ্জিনিয়ার্স বিভাগ এবং ফেডারেল সরকার জানিয়েছে, আমেরিকায় ৪৬ হাজারের বেশি সেতুর কাঠামোগতভাবে দুর্বল অবস্থায় রয়েছে। যার মধ্যে ১৭ হাজার সেতু রয়েছে একক আঘাতে ভেঙে পড়ার ঝুঁকিতে। ভূমিকম্প ও হারিকেনের মত ঘটনা, ভারী ট্রাক ও বৃহত্তর কনটেইনারবাহী জাহাজের সংঘর্ষের কারণে যুক্তরাষ্ট্রের সেতুগুলোর জন্য উল্লেখযোগ্য ঝুঁকি তৈরি করে।

 

 

মার্কিন সংবাদমাধ্যম সিএনএনের প্রতিবেদনে বলা হয়, যুক্তরাষ্ট্রে প্রতি ১৩টি সেতুর মধ্যে একটির অবস্থা কাঠামোগতভাবে দুর্বল বলে জানিয়েছে আমেরিকান সোসাইটি অব সিভিল ইঞ্জিনিয়ার্স বিভাগ। তবে এসব সেতুকে এখনই ঝুঁকিপূর্ণ বলা যাবে না। মোট সেতুর সাড়ে ৭ শতাংশ ভবিষ্যতে ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে উঠতে পারে, এটা কোনোভাবেই ভালো কথা নয়। সম্প্রতি জাহাজের ধাক্কায় ভেঙে পড়া বাল্টিমোরের সেতু ৪৭ বছর আগে নিমার্ণ করা হয়েছিল। সেতুতে এক লাখ টনেরও বেশি ওজনের ডালি নামক জাহাজ আঘাত হানলে এক মিনিটেরও কম সময়ে ভেঙে পড়ে। এর ফলে বাল্টিমোর বন্দর কোটি কোটি ডলার ক্ষতির সম্মুখীন হবে। যুক্তরাষ্ট্রে রাজ্যগুলো প্রতি দুই বছরে অন্তত একবার মহাসড়কের সেতুগুলো পরিদর্শন করে এবং সেগুলোর ভালো ও দুর্বল কাঠামোগতভাবে শ্রেণিবদ্ধ করা হয়েছে।
আমেরিকান সোসাইটি অব সিভিল ইঞ্জিনিয়ার্স বিভাগের ২০২১ সালে প্রকাশিত অবকাঠামো প্রতিবেদন অনুযায়ী, যুক্তরাষ্ট্রজুড়ে ছয় লাখ ১৭ হাজার সেতুর প্রায় ৪৬ হাজার ১০০ সেতু কাঠামোগতভাবে দুর্বল। যা মোট সেতুর সাড়ে ৭ শতাংশ। সেতুগুলো অনিরাপদ নয়। তবে ঝুঁকি রয়েছে। প্রায় ২১ হাজার সেতু ভূমিকম্প, হারিকেনের মতো প্রাকৃতিক ঘটনায় সেতুর ভিত্তি হুমকির জন্য সংবেদনশীল বলে দেখা গেছে।