০৬:৩০ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ২০ এপ্রিল ২০২৪, ৭ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ভোক্তা পর্যায়ে এলপিজির দাম কমল

 

 

এপ্রিল মাসের জন্য তরল পেট্রোলিয়াম গ্যাসের দাম কেজিতে ৩ টাকা ৩৪ পয়সা কমিয়ে ১২০ টাকা ১৮ পয়সা নির্ধারণ করেছে বাংলাদেশ এনার্জি রেগুলেটরি কমিশন-বিইআরসি। গতকাল বুধবার কারওয়ান বাজারে বিইআরসি কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলন করে এলপিজির নতুন এই দাম ঘোষণা করেন কমিশনের চেয়ারম্যান মো. নুরুল আমিন।

 

 

এর আগে মার্চে প্রতি কেজি এলপিজির দাম ছিল ১২৩ টাকা ৫২ পয়সা। সৌদি আরামকোর সিপি মূল্য কিছুটা কমায় এবং ডলারের বিপরীতে টাকার মান কিছুটা শক্তিশালী হওয়ায় এপ্রিলের জন্য দাম কমানোর ঘাষণা এল।

 

 

এর ফলে সবচেয়ে বেশি ব্যবহৃত ১২ কেজির সিলিন্ডারের দাম কমেছে ৪০ টাকা। মার্চে ১২ কেজির সিলিন্ডারের দাম নির্ধারিত ছিল ১,৪৮২ টাকা; এপ্রিলে তা ১,৪৪২ টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে। সংবাদ সম্মেলনে বলা হয়, সৌদি আরামকোর মূল্য অনুযায়ী এলপিজির মূল কাঁচামাল প্রোপেন ও বিউটেনের গড় মূল্য মার্চে ছিল ৬৩৬ দশমিক ৫০ ডলার; এপ্রিলে তা ১৮ দশমিক ২৫ ডলার কমে ৬১৮ দশমিক ২৫ ডলার হয়েছে।

 

 

বিইআরসির চেয়ারম্যান নুরুল আমিন বলেন, ফেব্রুয়ারি মাসে প্রতি ডলারের দাম ধরা হয়েছিল ১২০ টাকা ৫২ পয়সা, মার্চে সেটা আরেকটু কমিয়ে ১১৯ টাকা ৮৯ পয়সা ধরা হয়েছে। এপ্রিলে ডলারের মূল্য ধরা হয়েছে ১১৮ টাকা ৭৫ পয়সা। এই দুই কারণে এবার এলপিজির দাম কমেছে।

 

এপ্রিল মাসের জন্য রেটিকুলেটেড পদ্ধতির এলপিজির দাম ঠিক করা হয়েছে প্রতিকেজি ১১৬ টাকা ৩৬ পয়সা। প্রতিলিটার অটোগ্যাসের দাম ঠিক করা হয়েছে ৬৬ টাকা ২১ পয়সা।

জনপ্রিয় সংবাদ

ভোক্তা পর্যায়ে এলপিজির দাম কমল

আপডেট সময় : ০৭:৩৮:৩৫ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৪ এপ্রিল ২০২৪

 

 

এপ্রিল মাসের জন্য তরল পেট্রোলিয়াম গ্যাসের দাম কেজিতে ৩ টাকা ৩৪ পয়সা কমিয়ে ১২০ টাকা ১৮ পয়সা নির্ধারণ করেছে বাংলাদেশ এনার্জি রেগুলেটরি কমিশন-বিইআরসি। গতকাল বুধবার কারওয়ান বাজারে বিইআরসি কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলন করে এলপিজির নতুন এই দাম ঘোষণা করেন কমিশনের চেয়ারম্যান মো. নুরুল আমিন।

 

 

এর আগে মার্চে প্রতি কেজি এলপিজির দাম ছিল ১২৩ টাকা ৫২ পয়সা। সৌদি আরামকোর সিপি মূল্য কিছুটা কমায় এবং ডলারের বিপরীতে টাকার মান কিছুটা শক্তিশালী হওয়ায় এপ্রিলের জন্য দাম কমানোর ঘাষণা এল।

 

 

এর ফলে সবচেয়ে বেশি ব্যবহৃত ১২ কেজির সিলিন্ডারের দাম কমেছে ৪০ টাকা। মার্চে ১২ কেজির সিলিন্ডারের দাম নির্ধারিত ছিল ১,৪৮২ টাকা; এপ্রিলে তা ১,৪৪২ টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে। সংবাদ সম্মেলনে বলা হয়, সৌদি আরামকোর মূল্য অনুযায়ী এলপিজির মূল কাঁচামাল প্রোপেন ও বিউটেনের গড় মূল্য মার্চে ছিল ৬৩৬ দশমিক ৫০ ডলার; এপ্রিলে তা ১৮ দশমিক ২৫ ডলার কমে ৬১৮ দশমিক ২৫ ডলার হয়েছে।

 

 

বিইআরসির চেয়ারম্যান নুরুল আমিন বলেন, ফেব্রুয়ারি মাসে প্রতি ডলারের দাম ধরা হয়েছিল ১২০ টাকা ৫২ পয়সা, মার্চে সেটা আরেকটু কমিয়ে ১১৯ টাকা ৮৯ পয়সা ধরা হয়েছে। এপ্রিলে ডলারের মূল্য ধরা হয়েছে ১১৮ টাকা ৭৫ পয়সা। এই দুই কারণে এবার এলপিজির দাম কমেছে।

 

এপ্রিল মাসের জন্য রেটিকুলেটেড পদ্ধতির এলপিজির দাম ঠিক করা হয়েছে প্রতিকেজি ১১৬ টাকা ৩৬ পয়সা। প্রতিলিটার অটোগ্যাসের দাম ঠিক করা হয়েছে ৬৬ টাকা ২১ পয়সা।