০৫:৫৪ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ২৬ মে ২০২৪, ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

বিভাগীয় প্রধান নিয়োগের দাবিতে বেরোবি’র শিক্ষার্থীদের ক্লাস বর্জন

বিভাগীয় প্রধান নিয়োগের দাবিতে দুই দিন আন্দোলনের পর ক্লাস বর্জনের ঘোষণা দিয়েছেন বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের (বেরোবি) গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের শিক্ষার্থীরা।

 

 

আজ ৭ মে মঙ্গলবার রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের শিক্ষার্থীরা এ ঘোষণা দেন। শিক্ষার্থীরা বলেন, প্রায় দুই মাস ধরে আমাদের বিভাগ বিভাগীয় প্রধান শূন্য। এতে আমরা ভোগান্তির মধ্যে পড়েছি। আমাদের ক্লাস শেষ হলেও কোনো ব্যাচের পরীক্ষা হচ্ছে না। এতে আমরা সকল দিক থেকে পিছিয়ে যাচ্ছি। আমাদের দাবি হচ্ছে নিয়ম অনুযায়ী বিভাগীয় প্রধান নিয়োগ দিতে হবে এবং বিভাগের অচলাবস্থা দূর করতে হবে। আমাদের ধারাবাহিক পরীক্ষাগুলো নিতে হবে। গত দুই দিন বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ভবনের সামনে দাবি নিয়ে আন্দোলন করেছি। কিন্তু বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন থেকে নানা তালবাহানা করা হয়েছে। প্রশাসনিক ভবন অবরোধ করলে গত সোমবার বিকাল ৫টার পর ভিসি রুম থেকে হয়ে আমাদের কাছে এসে ১২ মে পর্যন্ত সময় নেন।

 

 

শিক্ষার্থীরা বিভাগীয় প্রধান নিয়োগ না দেওয়া পর্যন্ত ক্লাস বর্জনের ঘোষণা দেন। জানা যায়, গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ড. মো. নজরুল ইসলাম গত ১০ মার্চ বিভাগীয় প্রধান হিসেবে তার দায়িত্বের মেয়াদ শেষ করেন। এরপর বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়, আইন ২০০৯ এর ধারা-২৮(৩) অনুযায়ী জ্যেষ্ঠতার ভিত্তিতে বিভাগীয় প্রধান হিসেবে দায়িত্ব পাওয়ার কথা ছিল বিভাগের অপর সহযোগী অধ্যাপক তাবিউর রহমান প্রধানের। কিন্তু তা না করে গত ১০ মার্চ সহকারী অধ্যাপক নিয়ামুন নাহারকে দায়িত্ব দেওয়া হলে তিনি দায়িত্ব নিতে রাজি হননি। এরপর ১২ মার্চ সহকারী অধ্যাপক সারোয়ার আহমেদ এবং ১৯ মার্চ সহকারী অধ্যাপক মো. রহমতুল্লাহকে দায়িত্ব প্রদান করা হলে তারাও দায়িত্ব নিতে অপারগতা প্রকাশ করেন। তখন থেকেই বিভাগটি বিভাগীয় প্রধান শূন্য রয়েছে। সাংবাদিকতা বিভাগের বিভাগীয় প্রধান নিয়োগের বিষয়ে রেজিস্ট্রার প্রকৌশলী মুহম্মদ আলমগীর চৌধুরী বলেন, আইনগত জটিলতা থাকায় ওই বিভাগে বিভাগীয় প্রধান নিয়োগ দেওয়া সম্ভব হয়নি।

 

 

 

বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. হাসিবুর রশীদ বলেন, গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগে শিক্ষক নিয়োগে জটিলতা তৈরি হয়েছে। এ জটিলতা নিরসনে কমিটি গঠন করা হয়েছে। কমিটি রিপোর্ট দিলে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। সাংবাদিকতা বিভাগের প্রধান নিয়োগে সংকট নিরসনে গঠন করা কমিটির প্রধান সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদের ডিন অধ্যাপক মোরশেদ এর সাথে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলেও তা সম্ভব হয়নি।

ঘূর্ণিঝড় রেমাল মোকাবেলায় কতটুকু প্রস্তুত পবিপ্রবি?

বিভাগীয় প্রধান নিয়োগের দাবিতে বেরোবি’র শিক্ষার্থীদের ক্লাস বর্জন

আপডেট সময় : ০৫:২১:১০ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ৭ মে ২০২৪

বিভাগীয় প্রধান নিয়োগের দাবিতে দুই দিন আন্দোলনের পর ক্লাস বর্জনের ঘোষণা দিয়েছেন বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের (বেরোবি) গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের শিক্ষার্থীরা।

 

 

আজ ৭ মে মঙ্গলবার রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের শিক্ষার্থীরা এ ঘোষণা দেন। শিক্ষার্থীরা বলেন, প্রায় দুই মাস ধরে আমাদের বিভাগ বিভাগীয় প্রধান শূন্য। এতে আমরা ভোগান্তির মধ্যে পড়েছি। আমাদের ক্লাস শেষ হলেও কোনো ব্যাচের পরীক্ষা হচ্ছে না। এতে আমরা সকল দিক থেকে পিছিয়ে যাচ্ছি। আমাদের দাবি হচ্ছে নিয়ম অনুযায়ী বিভাগীয় প্রধান নিয়োগ দিতে হবে এবং বিভাগের অচলাবস্থা দূর করতে হবে। আমাদের ধারাবাহিক পরীক্ষাগুলো নিতে হবে। গত দুই দিন বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ভবনের সামনে দাবি নিয়ে আন্দোলন করেছি। কিন্তু বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন থেকে নানা তালবাহানা করা হয়েছে। প্রশাসনিক ভবন অবরোধ করলে গত সোমবার বিকাল ৫টার পর ভিসি রুম থেকে হয়ে আমাদের কাছে এসে ১২ মে পর্যন্ত সময় নেন।

 

 

শিক্ষার্থীরা বিভাগীয় প্রধান নিয়োগ না দেওয়া পর্যন্ত ক্লাস বর্জনের ঘোষণা দেন। জানা যায়, গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ড. মো. নজরুল ইসলাম গত ১০ মার্চ বিভাগীয় প্রধান হিসেবে তার দায়িত্বের মেয়াদ শেষ করেন। এরপর বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়, আইন ২০০৯ এর ধারা-২৮(৩) অনুযায়ী জ্যেষ্ঠতার ভিত্তিতে বিভাগীয় প্রধান হিসেবে দায়িত্ব পাওয়ার কথা ছিল বিভাগের অপর সহযোগী অধ্যাপক তাবিউর রহমান প্রধানের। কিন্তু তা না করে গত ১০ মার্চ সহকারী অধ্যাপক নিয়ামুন নাহারকে দায়িত্ব দেওয়া হলে তিনি দায়িত্ব নিতে রাজি হননি। এরপর ১২ মার্চ সহকারী অধ্যাপক সারোয়ার আহমেদ এবং ১৯ মার্চ সহকারী অধ্যাপক মো. রহমতুল্লাহকে দায়িত্ব প্রদান করা হলে তারাও দায়িত্ব নিতে অপারগতা প্রকাশ করেন। তখন থেকেই বিভাগটি বিভাগীয় প্রধান শূন্য রয়েছে। সাংবাদিকতা বিভাগের বিভাগীয় প্রধান নিয়োগের বিষয়ে রেজিস্ট্রার প্রকৌশলী মুহম্মদ আলমগীর চৌধুরী বলেন, আইনগত জটিলতা থাকায় ওই বিভাগে বিভাগীয় প্রধান নিয়োগ দেওয়া সম্ভব হয়নি।

 

 

 

বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. হাসিবুর রশীদ বলেন, গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগে শিক্ষক নিয়োগে জটিলতা তৈরি হয়েছে। এ জটিলতা নিরসনে কমিটি গঠন করা হয়েছে। কমিটি রিপোর্ট দিলে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। সাংবাদিকতা বিভাগের প্রধান নিয়োগে সংকট নিরসনে গঠন করা কমিটির প্রধান সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদের ডিন অধ্যাপক মোরশেদ এর সাথে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলেও তা সম্ভব হয়নি।