০৬:৫৬ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৮ মে ২০২৪, ১৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

সৌদি পৌঁছেছেন ২০ হাজার হজযাত্রী

❖শেষ মুহূর্তে ভিসা অনিশ্চয়তায় অনেকে
❖ ১৮৭৫ জনের ভিসা না করায় ৬ এজেন্সিকে ধর্ম মন্ত্রণালয়ের শোকজ
❖হজযাত্রীদের কোরবানির টাকা নিয়ে মন্ত্রণালয়ের সতর্কতা

বাংলাদেশ থেকে হজ ফ্লাইট শুরু হয়েছে ৬ দিন আগে। এরই মধ্যে প্রায় ২০ হাজার হজযাত্রী সৌদি আরবে পৌঁছেছেন। সর্বশেষ গতকাল ৮টি ফ্লাইটে তিন হাজারের বেশি হজযাত্রী ঢাকা ছেড়েছেন। এদিকে বাংলাদেশ থেকে এবার ৮৫ হাজার ২৪৭ জন পবিত্র হজে যাওয়ার প্রস্তুতি নিয়েছেন। এরই মধ্যে ভিসা প্রক্রিয়ার কাজও শেষ পর্যায়ে। তবে এখনও সাড়ে ৭ হাজারের মতো হজযাত্রীর ভিসা বাকি রয়েছে বলে হজ এজেন্সি মালিকদের সংগঠন-হাবের সভাপতি এম শাহাদাত হোসাইন তসলিম জানিয়েছেন। এছাড়া ৬টি হজ এজেন্সির ১৮৭৫ জন হজযাত্রীর ভিসা আবেদন করা হয়নি। ফলে তাদের হজযাত্রা অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে। এ বিষয়ে ব্যাখ্যা জানতে সংশ্লিষ্ট এজেন্সিগুলোকে আজ ধর্মমন্ত্রণালয়ে তলব করা হয়েছে।

গতকাল ধর্ম মন্ত্রণালয়ের এক জরুরি নোটিসে বলা হয়, গত ৯ মে হতে হজযাত্রীদের সৌদি আরব গমন শুরু হয়েছে এবং এরই মধ্যে (সোমবার পর্যন্ত) ১৭ হাজার ৩১ জন হজযাত্রী সৌদি আরবে পৌঁছেছেন। ২৫৯টি এজেন্সি/লিড এজেন্সির অধিকাংশই হজযাত্রীর ভিসা সম্পন্ন করলেও একাধিকবার তাগিদ দেয়া সত্ত্বেও নিম্নোক্ত ৬টি এজেন্সি অদ্যাবধি হজযাত্রীদের ভিসা করেনি। ভিসা সম্পন্ন না করায় হজযাত্রীদের হজে গমনে অনিশ্চয়তার আশঙ্কা রয়েছে। এজেন্সির এরুপ কর্মকাণ্ড সুষ্ঠু হজ ব্যবস্থাপনার অন্তরায়। এমতাবস্থায় নির্ধারিত সময়ের মধ্যে হজযাত্রীদের ভিসা সম্পন্ন না করার বিষয়ে ১৫ মে তারিখের মধ্যে এ মন্ত্রণালয়ে যথাযথ ব্যাখ্যা প্রদানের জন্য অনুরোধ করা হলো। একই সঙ্গে সব হজযাত্রীর ভিসা দ্রুত সম্পন্ন করার জন্য নির্দেশক্রমে অনুরোধ করা হলো।

এজেন্সিগুলো হচ্ছেÑ ওয়ার্ল্ডলিঙ্ক ট্যুরস অ্যান্ড ট্রাভেলস (হজ লাইসেন্স নম্বর-৫৭০), আনসারী ওভারসিস (হজ লাইসেন্স নম্বর-৬০১) আল-রাইসান ট্রাভেল এজেন্সি (হজ লাইসেন্স নম্বর-৬৭২), মিকাত ট্যুরস অ্যান্ড ট্রাভেলস (হজ লাইসেন্স নম্বর-১০২৫), নর্থ বেঙ্গল হজ ট্রাভেলস অ্যান্ড ট্যুরস (হজ লাইসেন্স নম্বর-১০৮৬) এবং হলি দারুন্নাজাত হজ ওভারসিস (হজ লাইসেন্স নম্বর-১৪৬২)।

উল্লেখ্য, চাঁদ দেখা সাপেক্ষে এবার পবিত্র হজ অনুষ্ঠিত হবে ১৬ জুন। বাংলাদেশ থেকে এবার সরকারি ব্যবস্থাপনায় ৪ হাজার ৫৬২ জন এবং বেসরকারিভাবে ৮০ হাজার ৬৮৫ জন হজে যাবেন। ১০ জুন পর্যন্ত হজ ফ্লাইট চলবে।

এদিকে হজ ফ্লাইট ডাটা যথাসময়ে এন্ট্রি করার জন্য হজ এজেন্সিগুলোকে নির্দেশ দিয়েছে ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয়। একই সঙ্গে হজযাত্রীদের কাছ থেকে কোরবানির অর্থ না নেওয়ার জন্য তাদেরকে সতর্ক করা হয়েছে। এছাড়া, হজযাত্রীদের মাধ্যমে জর্দার কার্টুন না পাঠানোসহ কতিপয় বিষয়ে হজ এজেন্সিগুলোকে হুঁশিয়ার করেছে মন্ত্রণালয়।

গত ১২ মে জুম প্লাটফর্মে সৌদি হজ ও ওমরাহ মন্ত্রণালয়ের জেদ্দা এয়ারপোর্ট সার্ভিসের মহাপরিচালক আব্দুর রহমান ঘ্যানামের সঙ্গে সভা শেষে এ নির্দেশনাসমূহ জারি করে ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয়।

চট্টগ্রাম থেকে বিমানের হজ ফ্লাইট উদ্বোধন : চট্টগ্রাম থেকে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের হজ ফ্লাইটের উদ্বোধন করা হয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার সকালে বিমানের ডেডিকেটেড হজ ফ্লাইটটি চট্টগ্রাম শাহ আমানত আন্তর্জাতিক বিমান বন্দর থেকে হজযাত্রীদের নিয়ে যাত্রা করে।

ফ্লাইটের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মেয়র মো. রেজাউল করিম চৌধুরী। বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স জানায়, চট্টগ্রাম থেকে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের প্রথম হজ ফ্লাইটে ৩৯৮ জন যাত্রী মদিনার পথে যাত্রা করেন।

জ্বালানি ও বিদ্যুৎ খাতে রাশিয়ান বিনিয়োগের আহ্বান ঢাকা চেম্বারের

সৌদি পৌঁছেছেন ২০ হাজার হজযাত্রী

আপডেট সময় : ০৬:২০:১২ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ১৫ মে ২০২৪

❖শেষ মুহূর্তে ভিসা অনিশ্চয়তায় অনেকে
❖ ১৮৭৫ জনের ভিসা না করায় ৬ এজেন্সিকে ধর্ম মন্ত্রণালয়ের শোকজ
❖হজযাত্রীদের কোরবানির টাকা নিয়ে মন্ত্রণালয়ের সতর্কতা

বাংলাদেশ থেকে হজ ফ্লাইট শুরু হয়েছে ৬ দিন আগে। এরই মধ্যে প্রায় ২০ হাজার হজযাত্রী সৌদি আরবে পৌঁছেছেন। সর্বশেষ গতকাল ৮টি ফ্লাইটে তিন হাজারের বেশি হজযাত্রী ঢাকা ছেড়েছেন। এদিকে বাংলাদেশ থেকে এবার ৮৫ হাজার ২৪৭ জন পবিত্র হজে যাওয়ার প্রস্তুতি নিয়েছেন। এরই মধ্যে ভিসা প্রক্রিয়ার কাজও শেষ পর্যায়ে। তবে এখনও সাড়ে ৭ হাজারের মতো হজযাত্রীর ভিসা বাকি রয়েছে বলে হজ এজেন্সি মালিকদের সংগঠন-হাবের সভাপতি এম শাহাদাত হোসাইন তসলিম জানিয়েছেন। এছাড়া ৬টি হজ এজেন্সির ১৮৭৫ জন হজযাত্রীর ভিসা আবেদন করা হয়নি। ফলে তাদের হজযাত্রা অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে। এ বিষয়ে ব্যাখ্যা জানতে সংশ্লিষ্ট এজেন্সিগুলোকে আজ ধর্মমন্ত্রণালয়ে তলব করা হয়েছে।

গতকাল ধর্ম মন্ত্রণালয়ের এক জরুরি নোটিসে বলা হয়, গত ৯ মে হতে হজযাত্রীদের সৌদি আরব গমন শুরু হয়েছে এবং এরই মধ্যে (সোমবার পর্যন্ত) ১৭ হাজার ৩১ জন হজযাত্রী সৌদি আরবে পৌঁছেছেন। ২৫৯টি এজেন্সি/লিড এজেন্সির অধিকাংশই হজযাত্রীর ভিসা সম্পন্ন করলেও একাধিকবার তাগিদ দেয়া সত্ত্বেও নিম্নোক্ত ৬টি এজেন্সি অদ্যাবধি হজযাত্রীদের ভিসা করেনি। ভিসা সম্পন্ন না করায় হজযাত্রীদের হজে গমনে অনিশ্চয়তার আশঙ্কা রয়েছে। এজেন্সির এরুপ কর্মকাণ্ড সুষ্ঠু হজ ব্যবস্থাপনার অন্তরায়। এমতাবস্থায় নির্ধারিত সময়ের মধ্যে হজযাত্রীদের ভিসা সম্পন্ন না করার বিষয়ে ১৫ মে তারিখের মধ্যে এ মন্ত্রণালয়ে যথাযথ ব্যাখ্যা প্রদানের জন্য অনুরোধ করা হলো। একই সঙ্গে সব হজযাত্রীর ভিসা দ্রুত সম্পন্ন করার জন্য নির্দেশক্রমে অনুরোধ করা হলো।

এজেন্সিগুলো হচ্ছেÑ ওয়ার্ল্ডলিঙ্ক ট্যুরস অ্যান্ড ট্রাভেলস (হজ লাইসেন্স নম্বর-৫৭০), আনসারী ওভারসিস (হজ লাইসেন্স নম্বর-৬০১) আল-রাইসান ট্রাভেল এজেন্সি (হজ লাইসেন্স নম্বর-৬৭২), মিকাত ট্যুরস অ্যান্ড ট্রাভেলস (হজ লাইসেন্স নম্বর-১০২৫), নর্থ বেঙ্গল হজ ট্রাভেলস অ্যান্ড ট্যুরস (হজ লাইসেন্স নম্বর-১০৮৬) এবং হলি দারুন্নাজাত হজ ওভারসিস (হজ লাইসেন্স নম্বর-১৪৬২)।

উল্লেখ্য, চাঁদ দেখা সাপেক্ষে এবার পবিত্র হজ অনুষ্ঠিত হবে ১৬ জুন। বাংলাদেশ থেকে এবার সরকারি ব্যবস্থাপনায় ৪ হাজার ৫৬২ জন এবং বেসরকারিভাবে ৮০ হাজার ৬৮৫ জন হজে যাবেন। ১০ জুন পর্যন্ত হজ ফ্লাইট চলবে।

এদিকে হজ ফ্লাইট ডাটা যথাসময়ে এন্ট্রি করার জন্য হজ এজেন্সিগুলোকে নির্দেশ দিয়েছে ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয়। একই সঙ্গে হজযাত্রীদের কাছ থেকে কোরবানির অর্থ না নেওয়ার জন্য তাদেরকে সতর্ক করা হয়েছে। এছাড়া, হজযাত্রীদের মাধ্যমে জর্দার কার্টুন না পাঠানোসহ কতিপয় বিষয়ে হজ এজেন্সিগুলোকে হুঁশিয়ার করেছে মন্ত্রণালয়।

গত ১২ মে জুম প্লাটফর্মে সৌদি হজ ও ওমরাহ মন্ত্রণালয়ের জেদ্দা এয়ারপোর্ট সার্ভিসের মহাপরিচালক আব্দুর রহমান ঘ্যানামের সঙ্গে সভা শেষে এ নির্দেশনাসমূহ জারি করে ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয়।

চট্টগ্রাম থেকে বিমানের হজ ফ্লাইট উদ্বোধন : চট্টগ্রাম থেকে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের হজ ফ্লাইটের উদ্বোধন করা হয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার সকালে বিমানের ডেডিকেটেড হজ ফ্লাইটটি চট্টগ্রাম শাহ আমানত আন্তর্জাতিক বিমান বন্দর থেকে হজযাত্রীদের নিয়ে যাত্রা করে।

ফ্লাইটের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মেয়র মো. রেজাউল করিম চৌধুরী। বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স জানায়, চট্টগ্রাম থেকে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের প্রথম হজ ফ্লাইটে ৩৯৮ জন যাত্রী মদিনার পথে যাত্রা করেন।