০৫:৩৭ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২২ এপ্রিল ২০২৪, ৮ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

অবশেষে ঘুরল পুঁজিবাজারের চাকা

 

 

 

ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) ও চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) সপ্তাহের তৃতীয় কার্যদিবস গতকাল বুধবার সূচকের বড় উত্থানের মধ্যে দিয়ে লেনদেন শেষ হয়েছে। ধারাবাহিকভাবে অষ্টম দিন ধরে পুঁজিবাজারে দরপতনের পর নবম দিন সূচকের উত্থান হয়েছে। আগের কার্যদিবসের চেয়ে টাকার পরিমাণে ডিএসইতে লেনদেন কমলেও সিএসইতে বেড়েছে। একই সঙ্গে এদিন উভয় স্টক এক্সচেঞ্জে লেনদেনে অংশ নেওয়া অধিকাংশ কোম্পানির শেয়ার এবং মিউচ্যুয়াল ফান্ডের ইউনিটের দাম বেড়েছে। ডিএসই ও সিএসই সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

বাজার পর্যালোচনায় দেখা গেছে, ডিএসইর প্রধান সূচক ডিএসইএক্স আগের দিনের চেয়ে ৫৮.৪৮ পয়েন্ট বেড়ে ৫ হাজার ৮৭২ পয়েন্টে অবস্থান করছে। ডিএসই শরিয়া সূচক ৯.১৯ পয়েন্ট বেড়ে ১ হাজার ২৭৭ পয়েন্টে এবং ডিএস৩০ সূচক ১২.১৭ পয়েন্ট বেড়ে ২ হাজার ৩২ পয়েন্টে দাঁড়িয়েছে।

ডিএসইতে মোট ৪০১টি কোম্পানির শেয়ার ও ইউনিট লেনদেন হয়েছে। এর মধ্যে শেয়ার ও ইউনিটের দাম বেড়েছে ৩০৫টি কোম্পানির, কমেছে ৫২টির এবং অপরিবর্তিত আছে ৪৪টির। ডিএসইতে এদিন মোট ৪২২ কোটি ৮৩ লাখ টাকা শেয়ার ও ইউনিট লেনদেন হয়েছে। আগের কার্যদিবসে লেনদেন হয়েছিল ৪৬৫ কোটি ৫৪ লাখ টাকার শেয়ার ও ইউনিট।

অপরদিকে, চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) সিএসসিএক্স ৮২.১৩ পয়েন্ট বেড়ে অবস্থান করছে ১০ হাজার ৮২ পয়েন্টে। সার্বিক সূচক সিএএসপিআই ১৪০.৫৯ পয়েন্ট বেড়ে ১৬ হাজার ৭৯৪ পয়েন্টে, শরিয়া সূচক ৪.১৮ পয়েন্ট বেড়ে ১ হাজার ৮৭ পয়েন্টে এবং সিএসই৩০ সূচক ৭৭.০৩ পয়েন্ট বেড়ে ১২ হাজার ৭২৮ পয়েন্টে অবস্থান করছে।

এদিন সিএসইতে ২০৬টি কোম্পানির শেয়ার ও ইউনিট লেনদেন হয়েছে। এর মধ্যে শেয়ার ও ইউনিটের দাম বেড়েছে ১৩৩টি কোম্পানির, কমেছে ৫৭টির এবং অপরিবর্তিত আছে ১৬টির। দিন শেষে সিএসইতে ১৭ কোটি ৮৭ লাখ টাকার শেয়ার ও ইউনিট লেনদেন হয়েছে। আগের কার্যদিবসে লেনদেন হয়েছিল ১৬ কোটি ৩৮ লাখ টাকার শেয়ার ও ইউনিট।

জনপ্রিয় সংবাদ

অবশেষে ঘুরল পুঁজিবাজারের চাকা

আপডেট সময় : ০৭:০৬:০৬ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২১ মার্চ ২০২৪

 

 

 

ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) ও চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) সপ্তাহের তৃতীয় কার্যদিবস গতকাল বুধবার সূচকের বড় উত্থানের মধ্যে দিয়ে লেনদেন শেষ হয়েছে। ধারাবাহিকভাবে অষ্টম দিন ধরে পুঁজিবাজারে দরপতনের পর নবম দিন সূচকের উত্থান হয়েছে। আগের কার্যদিবসের চেয়ে টাকার পরিমাণে ডিএসইতে লেনদেন কমলেও সিএসইতে বেড়েছে। একই সঙ্গে এদিন উভয় স্টক এক্সচেঞ্জে লেনদেনে অংশ নেওয়া অধিকাংশ কোম্পানির শেয়ার এবং মিউচ্যুয়াল ফান্ডের ইউনিটের দাম বেড়েছে। ডিএসই ও সিএসই সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

বাজার পর্যালোচনায় দেখা গেছে, ডিএসইর প্রধান সূচক ডিএসইএক্স আগের দিনের চেয়ে ৫৮.৪৮ পয়েন্ট বেড়ে ৫ হাজার ৮৭২ পয়েন্টে অবস্থান করছে। ডিএসই শরিয়া সূচক ৯.১৯ পয়েন্ট বেড়ে ১ হাজার ২৭৭ পয়েন্টে এবং ডিএস৩০ সূচক ১২.১৭ পয়েন্ট বেড়ে ২ হাজার ৩২ পয়েন্টে দাঁড়িয়েছে।

ডিএসইতে মোট ৪০১টি কোম্পানির শেয়ার ও ইউনিট লেনদেন হয়েছে। এর মধ্যে শেয়ার ও ইউনিটের দাম বেড়েছে ৩০৫টি কোম্পানির, কমেছে ৫২টির এবং অপরিবর্তিত আছে ৪৪টির। ডিএসইতে এদিন মোট ৪২২ কোটি ৮৩ লাখ টাকা শেয়ার ও ইউনিট লেনদেন হয়েছে। আগের কার্যদিবসে লেনদেন হয়েছিল ৪৬৫ কোটি ৫৪ লাখ টাকার শেয়ার ও ইউনিট।

অপরদিকে, চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) সিএসসিএক্স ৮২.১৩ পয়েন্ট বেড়ে অবস্থান করছে ১০ হাজার ৮২ পয়েন্টে। সার্বিক সূচক সিএএসপিআই ১৪০.৫৯ পয়েন্ট বেড়ে ১৬ হাজার ৭৯৪ পয়েন্টে, শরিয়া সূচক ৪.১৮ পয়েন্ট বেড়ে ১ হাজার ৮৭ পয়েন্টে এবং সিএসই৩০ সূচক ৭৭.০৩ পয়েন্ট বেড়ে ১২ হাজার ৭২৮ পয়েন্টে অবস্থান করছে।

এদিন সিএসইতে ২০৬টি কোম্পানির শেয়ার ও ইউনিট লেনদেন হয়েছে। এর মধ্যে শেয়ার ও ইউনিটের দাম বেড়েছে ১৩৩টি কোম্পানির, কমেছে ৫৭টির এবং অপরিবর্তিত আছে ১৬টির। দিন শেষে সিএসইতে ১৭ কোটি ৮৭ লাখ টাকার শেয়ার ও ইউনিট লেনদেন হয়েছে। আগের কার্যদিবসে লেনদেন হয়েছিল ১৬ কোটি ৩৮ লাখ টাকার শেয়ার ও ইউনিট।