০৮:২২ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৪ এপ্রিল ২০২৪, ১ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

৩০০ টাকায় মিলছে আট কেজির তরমুজ

 

 

 

পবিত্র রমজান মাস উপলক্ষে ঢাকায় ২০ স্থানে ভ্রাম্যমাণ ট্রাকসেল ও দোকানের মাধ্যমে ন্যায্যমূল্যে তরমুজ বিক্রির কার্যক্রম শুরু হয়েছে। এসব স্থানে পিস হিসেবে তরমুজ বিক্রয় করা হবে। প্রাথমিকভাবে সাত থেকে আট কেজি এক পিস তরমুজের দাম নির্ধারণ করা হয়েছে ৩০০ টাকা। চার থেকে ছয় কেজি ওজনের দাম হবে ২০০ টাকা। এ উদ্যোগ নিয়েছে বাংলাদেশ পোল্ট্রি অ্যাসোসিয়েশন (বিপিএ) ও ফসল ডটকম লিমিটেড। গতকাল বৃহস্পতিবার রাজধানীর কারওয়ান বাজারের টিসিবি ভবন চত্বরে জাতীয় ভোক্তা-অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক এ এইচ এম সফিকুজ্জামান এ কার্যক্রম উদ্বোধন করেন।

ভোক্তা ডিজি বলেন, বেসরকারি অনেক প্রতিষ্ঠানে এবার রমজানের মধ্যে পণ্যের দামে বিশেষ ছাড় দিয়েছে। তারা নিত্যপণ্যের দামে যেন মানুষের কষ্ট না হয় সেজন্য কাজ করছে। সরকারিভাবে তাদের সহায়তা দিতে পারলে শুধু রমজানের নয়, বছরব্যাপী তারা স্বস্তিদায়ক দামে পণ্য দিতে পারবে।

বিপিএর সভাপতি সুমন হাওলাদার বলেন, রমজান উপলক্ষে আমরা ন্যায্যমূল্যে ডিম-দুধ বিক্রি করে আসছি। এর মধ্যে দেখছি, তরমুজ অস্বাভাবিক দামে বিক্রি করছেন ব্যবসায়ীরা। যে কারণে ক্রেতাদের স্বস্তি দিতে এ উদ্যোগ নিয়েছি। পর্যায়ক্রমে ঢাকার ২০ স্থানে তরমুজ সরবরাহ করা হবে। প্রাথমিকভাবে আকারভেদে ২০০ থেকে ৩০০ টাকার মধ্যে তরমুজ বিক্রির সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

জনপ্রিয় সংবাদ

৩০০ টাকায় মিলছে আট কেজির তরমুজ

আপডেট সময় : ০৭:০৯:২৩ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ২২ মার্চ ২০২৪

 

 

 

পবিত্র রমজান মাস উপলক্ষে ঢাকায় ২০ স্থানে ভ্রাম্যমাণ ট্রাকসেল ও দোকানের মাধ্যমে ন্যায্যমূল্যে তরমুজ বিক্রির কার্যক্রম শুরু হয়েছে। এসব স্থানে পিস হিসেবে তরমুজ বিক্রয় করা হবে। প্রাথমিকভাবে সাত থেকে আট কেজি এক পিস তরমুজের দাম নির্ধারণ করা হয়েছে ৩০০ টাকা। চার থেকে ছয় কেজি ওজনের দাম হবে ২০০ টাকা। এ উদ্যোগ নিয়েছে বাংলাদেশ পোল্ট্রি অ্যাসোসিয়েশন (বিপিএ) ও ফসল ডটকম লিমিটেড। গতকাল বৃহস্পতিবার রাজধানীর কারওয়ান বাজারের টিসিবি ভবন চত্বরে জাতীয় ভোক্তা-অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক এ এইচ এম সফিকুজ্জামান এ কার্যক্রম উদ্বোধন করেন।

ভোক্তা ডিজি বলেন, বেসরকারি অনেক প্রতিষ্ঠানে এবার রমজানের মধ্যে পণ্যের দামে বিশেষ ছাড় দিয়েছে। তারা নিত্যপণ্যের দামে যেন মানুষের কষ্ট না হয় সেজন্য কাজ করছে। সরকারিভাবে তাদের সহায়তা দিতে পারলে শুধু রমজানের নয়, বছরব্যাপী তারা স্বস্তিদায়ক দামে পণ্য দিতে পারবে।

বিপিএর সভাপতি সুমন হাওলাদার বলেন, রমজান উপলক্ষে আমরা ন্যায্যমূল্যে ডিম-দুধ বিক্রি করে আসছি। এর মধ্যে দেখছি, তরমুজ অস্বাভাবিক দামে বিক্রি করছেন ব্যবসায়ীরা। যে কারণে ক্রেতাদের স্বস্তি দিতে এ উদ্যোগ নিয়েছি। পর্যায়ক্রমে ঢাকার ২০ স্থানে তরমুজ সরবরাহ করা হবে। প্রাথমিকভাবে আকারভেদে ২০০ থেকে ৩০০ টাকার মধ্যে তরমুজ বিক্রির সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।