০৭:৪১ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ২০ এপ্রিল ২০২৪, ৭ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

৩০ সাংবাদিক-লেখককে সংবর্ধনা দিল আবিষ্কার প্রকাশনী

 

বই প্রকাশ হওয়া ৩০ সাংবাদিক লেখককে সংবর্ধনা দিয়েছে আবিষ্কার প্রকাশনী। গতকাল মঙ্গলবার জাতীয় প্রেস ক্লাবের জহুর হোসেন মিলনায়তনে এই প্রকাশনীর পক্ষ থেকে সংবর্ধনা দেয়া হয়। এ সময় প্রকাশনীর পক্ষ থেকে উত্তরীয় পরিয়ে এবং ক্রেস্ট দিয়ে লেখকদের সংবর্ধনা দেয়া হয়। এ সময় আবিষ্কার প্রকাশনীর প্রকাশক দেলোয়ার হাসান বলেন, আবিষ্কার প্রকাশনী থেকে এ পর্যন্ত যেসব সাংবাদিকের বই প্রকাশিত হয়েছে তাদেরকেই সংবর্ধিত করা হচ্ছে। আবিষ্কার এসব লেখক-সাংবাদিকদের বই প্রকাশ করতে পেরে গর্বিত। আশা করছি, এই লেখকদের সঙ্গে আবিষ্কারের আগামীর পথচলা আরো মসৃণ হবে। তিনি এ সময় ঘোষণা দেন, প্রত্যেক লেখককে পাঁচ হাজার টাকা করে সম্মানি প্রদান করা হবে। এটি আগামীকাল (আজ বুধবার) দুপুরের মধ্যে লেখকদের হাতে পৌঁছে দেওয়া হবে।

অনুষ্ঠানে সম্মানিত অতিথি ও কবি-সাংবাদিক সোহরাব হাসান বলেন, সাংবাদিকতার পাশাপাশি লেখালেখি চালিয়ে যাওয়া সত্যি খুব কঠিন কাজ। এর মধ্যেই যে আবিষ্কার প্রকাশনী সাংবাদিকদের বই প্রকাশ করেছে। তারপর তাদের আবার সংবর্ধনা দিচ্ছে এটি সত্যি একটি অনন্য উদ্যোগ। আমি এ উদ্যোগকে স্বাগত জানাই।

অনুষ্ঠানের সভাপতি ও সিনিয়র সাংবাদিক আজিজুল ইসলাম ভূঁইয়া বলেন, আমার তিনটি বই প্রকাশ করেছে আবিষ্কার প্রকাশনী। আমি তাদের কাছে খুবই কৃতজ্ঞ। এই বইগুলোর মধ্যে একটি বই নিয়ে কাজ করার সময় দেখলাম যে, ব্রিটিশ চলে যাবার সময় বাংলা ভাগ হওয়ার কথা ছিল না। কিন্তু ব্রিটিশরা আগে ভাবত যে, তারাই সবচেয়ে বেশি ইনটেলিজেন্ট। কিন্তু তারা এই ভারতবর্ষে আসার পর টের পায়, তাদের চেয়েও বেশি ইনটেলিজেন্ট একটি জাতি আছে। আর সেটি হচ্ছে বাঙালি জাতি। তারা দিল্লির চেয়ে কলকাতায় থাকতে বেশি পছন্দ করত। তাদের বাঙালি জাতির প্রতি আক্রোশ থেকেই ১৯৪৭ সালে বাংলাকে ভাগ করেছিল। সেই ভাগ হওয়া বাংলার একজন জনপ্রিয় লেখক সমরেশ মজুমদারের নামে পুরস্কার প্রদান অনুষ্ঠানের আয়োজন এটি দেলোয়ার করেছে। সে টানা তিনদিনের অনুষ্ঠানমালা তৈরি করে সকলকে দেখিয়ে দিয়েছে বাংলা সাহিত্যের উৎকর্ষ সাধনে এই প্রকাশনী ভূমিকা রেখে যাচ্ছে।

অনুষ্ঠানে যেসব লেখক-সাংবাদিক উপস্থিত হয়ে সংবর্ধনা গ্রহণ করেছেন তারা হলেন পু®িপতা আচার্য, দীপক আচার্য, আজিজুল ইসলাম ভূঁইয়া, সোহরাব হাসান, আবদুল মান্নান, আসাদুজ্জামান সম্রাট, কুদরাত-এ-খুদা, মুহম্মদ আকবর এবং দৈনিক সবুজ বাংলার স্টাফ রিপোর্টার তাসকিনা ইয়াসমিন। এ সময় আবিষ্কার প্রকাশক জানান, যারা উপস্থিত হননি বা হতে পারেননি তাদের ঈদের পর একটি সুবিধাজনক সময়ে পুরস্কার প্রদান করা হবে। অনুষ্ঠানে আবিষ্কার প্রকাশনীর কর্মকর্তা-কর্মচারী, শুভ্যানুধ্যায়ী ও পেশাগত দায়িত্ব পালনরত সাংবাদিক ও ক্যামেরা পারসনরা উপস্থিত ছিলেন।

জনপ্রিয় সংবাদ

৩০ সাংবাদিক-লেখককে সংবর্ধনা দিল আবিষ্কার প্রকাশনী

আপডেট সময় : ০৯:২৮:০২ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২১ মার্চ ২০২৪

 

বই প্রকাশ হওয়া ৩০ সাংবাদিক লেখককে সংবর্ধনা দিয়েছে আবিষ্কার প্রকাশনী। গতকাল মঙ্গলবার জাতীয় প্রেস ক্লাবের জহুর হোসেন মিলনায়তনে এই প্রকাশনীর পক্ষ থেকে সংবর্ধনা দেয়া হয়। এ সময় প্রকাশনীর পক্ষ থেকে উত্তরীয় পরিয়ে এবং ক্রেস্ট দিয়ে লেখকদের সংবর্ধনা দেয়া হয়। এ সময় আবিষ্কার প্রকাশনীর প্রকাশক দেলোয়ার হাসান বলেন, আবিষ্কার প্রকাশনী থেকে এ পর্যন্ত যেসব সাংবাদিকের বই প্রকাশিত হয়েছে তাদেরকেই সংবর্ধিত করা হচ্ছে। আবিষ্কার এসব লেখক-সাংবাদিকদের বই প্রকাশ করতে পেরে গর্বিত। আশা করছি, এই লেখকদের সঙ্গে আবিষ্কারের আগামীর পথচলা আরো মসৃণ হবে। তিনি এ সময় ঘোষণা দেন, প্রত্যেক লেখককে পাঁচ হাজার টাকা করে সম্মানি প্রদান করা হবে। এটি আগামীকাল (আজ বুধবার) দুপুরের মধ্যে লেখকদের হাতে পৌঁছে দেওয়া হবে।

অনুষ্ঠানে সম্মানিত অতিথি ও কবি-সাংবাদিক সোহরাব হাসান বলেন, সাংবাদিকতার পাশাপাশি লেখালেখি চালিয়ে যাওয়া সত্যি খুব কঠিন কাজ। এর মধ্যেই যে আবিষ্কার প্রকাশনী সাংবাদিকদের বই প্রকাশ করেছে। তারপর তাদের আবার সংবর্ধনা দিচ্ছে এটি সত্যি একটি অনন্য উদ্যোগ। আমি এ উদ্যোগকে স্বাগত জানাই।

অনুষ্ঠানের সভাপতি ও সিনিয়র সাংবাদিক আজিজুল ইসলাম ভূঁইয়া বলেন, আমার তিনটি বই প্রকাশ করেছে আবিষ্কার প্রকাশনী। আমি তাদের কাছে খুবই কৃতজ্ঞ। এই বইগুলোর মধ্যে একটি বই নিয়ে কাজ করার সময় দেখলাম যে, ব্রিটিশ চলে যাবার সময় বাংলা ভাগ হওয়ার কথা ছিল না। কিন্তু ব্রিটিশরা আগে ভাবত যে, তারাই সবচেয়ে বেশি ইনটেলিজেন্ট। কিন্তু তারা এই ভারতবর্ষে আসার পর টের পায়, তাদের চেয়েও বেশি ইনটেলিজেন্ট একটি জাতি আছে। আর সেটি হচ্ছে বাঙালি জাতি। তারা দিল্লির চেয়ে কলকাতায় থাকতে বেশি পছন্দ করত। তাদের বাঙালি জাতির প্রতি আক্রোশ থেকেই ১৯৪৭ সালে বাংলাকে ভাগ করেছিল। সেই ভাগ হওয়া বাংলার একজন জনপ্রিয় লেখক সমরেশ মজুমদারের নামে পুরস্কার প্রদান অনুষ্ঠানের আয়োজন এটি দেলোয়ার করেছে। সে টানা তিনদিনের অনুষ্ঠানমালা তৈরি করে সকলকে দেখিয়ে দিয়েছে বাংলা সাহিত্যের উৎকর্ষ সাধনে এই প্রকাশনী ভূমিকা রেখে যাচ্ছে।

অনুষ্ঠানে যেসব লেখক-সাংবাদিক উপস্থিত হয়ে সংবর্ধনা গ্রহণ করেছেন তারা হলেন পু®িপতা আচার্য, দীপক আচার্য, আজিজুল ইসলাম ভূঁইয়া, সোহরাব হাসান, আবদুল মান্নান, আসাদুজ্জামান সম্রাট, কুদরাত-এ-খুদা, মুহম্মদ আকবর এবং দৈনিক সবুজ বাংলার স্টাফ রিপোর্টার তাসকিনা ইয়াসমিন। এ সময় আবিষ্কার প্রকাশক জানান, যারা উপস্থিত হননি বা হতে পারেননি তাদের ঈদের পর একটি সুবিধাজনক সময়ে পুরস্কার প্রদান করা হবে। অনুষ্ঠানে আবিষ্কার প্রকাশনীর কর্মকর্তা-কর্মচারী, শুভ্যানুধ্যায়ী ও পেশাগত দায়িত্ব পালনরত সাংবাদিক ও ক্যামেরা পারসনরা উপস্থিত ছিলেন।