০৭:৫৫ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৪ এপ্রিল ২০২৪, ১ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

কর্মশালায় বক্তারা সড়ক দুর্ঘটনার ভয়াবহতা করোনার চেয়েও বেশি

সড়ক দুর্ঘটনায় প্রতিদিন বহু মানুষের প্রাণ যায়। দুর্ঘটনায় অনেককে আবার চিরতরে পঙ্গুত্ব বরণ করতে হচ্ছে। সড়ক দুর্ঘটনার ভয়াবহতা করোনাভাইরাসের চেয়েও বেশি। গতকাল সোমবার রাজধানীর জাতীয় গণমাধ্যম ইনস্টিটিউটে আয়োজিত ‘বাংলাদেশে নিরাপদ সড়ক প্রতিষ্ঠা এবং গণমাধ্যম’ শীর্ষক কর্মশালায় বক্তারা এসব কথা বলেন।

 

ইউনাইটেড নিউজ অব বাংলাদেশের (ইউএনবি) উপদেষ্টা সম্পাদক ফরিদ হোসেন তার বক্তব্যে বাংলাদেশের সড়ক নিরাপত্তা নিশ্চিতকল্পে টেকসই সমন্বিত সড়ক ব্যবস্থাপনা, বিদ্যমান সড়ক আইনের যথাযথ প্রয়োগে গণমাধ্যমের ভূমিকা ও করণীয় বিষয়ে আলোচনা করেন। তিনি গণপরিবহনের চালক ও হেলপারদের দক্ষতা বাড়ানো, মহাসড়কে ফিটনেসবিহীন যানবাহন চলাচল বন্ধ করার ওপর গুরুত্ব দেন।

 

ইনস্টিটিউটের অতিরিক্ত মহাপরিচালক সুফী জাকির হোসেন বলেন, সড়ক দুর্ঘটনা কমিয়ে আনতে গণপরিবহনকে শৃঙ্খলায় নিয়ে আসার পাশাপাশি সড়ক ব্যবহারকারীদের মধ্যে সচেতনতা বাড়ানোর ওপর জোর দিতে হবে।

সড়কে হতাহতের ঘটনা প্রতিরোধে সরকারের বিভিন্ন পরিকল্পনা বাস্তবায়নের বিষয়টি তুলে ধরেন সড়ক ও সেতু বিভাগের (নিরাপত্তা শাখা) উপ-সচিব মো. জহিরুল ইসলাম।

 

সড়ক দুর্ঘটনা বিষয়ে গণমাধ্যমে সংবাদ পরিবেশনের গতিধারা, নিরাপদ সড়ক প্রতিরোধে বিভিন্ন মেয়াদি পরিকল্পনা সংক্রান্ত উপস্থাপনা করেন জাতীয় গণমাধ্যম ইনস্টিটিউটের উপ-পরিচালক মোহাম্মদ আবু সাদেক।

জাতীয় গণমাধ্যম ইনস্টিটিউটের অতিরিক্ত মহাপরিচালক সুফী জাকির হোসেনের সভাপতিত্বে এ কর্মশালায় শিপিং অ্যান্ড কমিউনিকেশন রিপোর্টার্স ফোরামের (এসসিআরএফ) সভাপতি আশীষ কুমার দে ও সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম, জাতীয় গণমাধ্যম ইনস্টিটিউটের কর্মকর্তা ও সাংবাদিকরা উপস্থিত ছিলেন।

জনপ্রিয় সংবাদ

কর্মশালায় বক্তারা সড়ক দুর্ঘটনার ভয়াবহতা করোনার চেয়েও বেশি

আপডেট সময় : ০৬:৪৯:৪৫ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৬ মার্চ ২০২৪

সড়ক দুর্ঘটনায় প্রতিদিন বহু মানুষের প্রাণ যায়। দুর্ঘটনায় অনেককে আবার চিরতরে পঙ্গুত্ব বরণ করতে হচ্ছে। সড়ক দুর্ঘটনার ভয়াবহতা করোনাভাইরাসের চেয়েও বেশি। গতকাল সোমবার রাজধানীর জাতীয় গণমাধ্যম ইনস্টিটিউটে আয়োজিত ‘বাংলাদেশে নিরাপদ সড়ক প্রতিষ্ঠা এবং গণমাধ্যম’ শীর্ষক কর্মশালায় বক্তারা এসব কথা বলেন।

 

ইউনাইটেড নিউজ অব বাংলাদেশের (ইউএনবি) উপদেষ্টা সম্পাদক ফরিদ হোসেন তার বক্তব্যে বাংলাদেশের সড়ক নিরাপত্তা নিশ্চিতকল্পে টেকসই সমন্বিত সড়ক ব্যবস্থাপনা, বিদ্যমান সড়ক আইনের যথাযথ প্রয়োগে গণমাধ্যমের ভূমিকা ও করণীয় বিষয়ে আলোচনা করেন। তিনি গণপরিবহনের চালক ও হেলপারদের দক্ষতা বাড়ানো, মহাসড়কে ফিটনেসবিহীন যানবাহন চলাচল বন্ধ করার ওপর গুরুত্ব দেন।

 

ইনস্টিটিউটের অতিরিক্ত মহাপরিচালক সুফী জাকির হোসেন বলেন, সড়ক দুর্ঘটনা কমিয়ে আনতে গণপরিবহনকে শৃঙ্খলায় নিয়ে আসার পাশাপাশি সড়ক ব্যবহারকারীদের মধ্যে সচেতনতা বাড়ানোর ওপর জোর দিতে হবে।

সড়কে হতাহতের ঘটনা প্রতিরোধে সরকারের বিভিন্ন পরিকল্পনা বাস্তবায়নের বিষয়টি তুলে ধরেন সড়ক ও সেতু বিভাগের (নিরাপত্তা শাখা) উপ-সচিব মো. জহিরুল ইসলাম।

 

সড়ক দুর্ঘটনা বিষয়ে গণমাধ্যমে সংবাদ পরিবেশনের গতিধারা, নিরাপদ সড়ক প্রতিরোধে বিভিন্ন মেয়াদি পরিকল্পনা সংক্রান্ত উপস্থাপনা করেন জাতীয় গণমাধ্যম ইনস্টিটিউটের উপ-পরিচালক মোহাম্মদ আবু সাদেক।

জাতীয় গণমাধ্যম ইনস্টিটিউটের অতিরিক্ত মহাপরিচালক সুফী জাকির হোসেনের সভাপতিত্বে এ কর্মশালায় শিপিং অ্যান্ড কমিউনিকেশন রিপোর্টার্স ফোরামের (এসসিআরএফ) সভাপতি আশীষ কুমার দে ও সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম, জাতীয় গণমাধ্যম ইনস্টিটিউটের কর্মকর্তা ও সাংবাদিকরা উপস্থিত ছিলেন।