০৮:০৯ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ২০ এপ্রিল ২০২৪, ৭ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

বেড়েছে আলুর দাম, কমেছে পেঁয়াজের ঝাঁজ

 

 

সপ্তাহের ব্যবধানে রাজধানীতে আলুর দাম কেজিতে ৫ থেকে ৭ টাকা বেড়েছে। গতকাল শনিবার রাজধানীর বেশ কয়েকটি কাঁচাবাজার ঘুরে দেখা যায়, প্রতি কেজি আলু বিক্রি হচ্ছে ৪০-৪২ টাকায়। সপ্তাহখানেক আগেও যা ছিল ৩৫ টাকা তবে, উৎপাদন ও সরবরাহ ভালো থাকায় পেঁয়াজের দাম কমেছে। প্রতি কেজি পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ৫৫ থেকে ৬০ টাকায়, যা সপ্তাহখানেক আগেও ছিল ১০০ থেকে ১১০ টাকা।

 

 

বিক্রেতারা বলছেন, মুদি বাজারে আলু ব্যতীত অন্যান্য পণ্যের দাম স্থিতিশীল রয়েছে। এ সময় তারা শঙ্কা প্রকাশ করেন, আলুর দাম আরো বাড়তে পারে।
সবজি বাজার ঘুরে দেখা গেছে, বেগুন প্রতি কেজি ৬০ টাকা, করোলা ৮০ টাকা, পেঁপে ৪০ টাকা, কচুর লতি ৮০ টাকা, গাজর ৪০ টাকা, শিম ৪০ টাকা, কাঁচামরিচ ১০০ টাকা, প্রতি পিস লাউ ৫০ টাকা, বাঁধাকপি ৫০ টাকা, ফুলকপি ৫০ টাকা, টমেটো ৫০ টাকা, চিচিঙ্গা ৫০ টাকা, শসা ৬০ টাকা, বরবটি ৬০ টাকা, ঢেঁড়স ৬০ টাকা, পটল ৬০ টাকা ও কুমড়া ৩০ টাকা ফাইল বিক্রি হচ্ছে।

 

মাছের বাজার ঘুরে দেখা যায়, চাষের পাঙাশ প্রতি কেজি ২০০ থেকে ২২০ টাকা, তেলাপিয়া ২২০ টাকা, চাষের শিং ৪৮০ থেকে ৫০০ টাকা, রুই মানভেদে ২৪০-৪০০ টাকা, চাষের কই ২৫০ টাকা, পাবদা মানভেদে ৪০০-৪৫০ টাকা, চিংড়ি ৮০০-১০০০ টাকা, কাতলা ৫০০-৬০০ টাকা, নলা ২০০ টাকা, টাটকিনি ২০০ টাকা ও সরপুঁটি বিক্রি হচ্ছে ২০০ টাকা কেজি দরে।

 

গোশতের বাজার ঘুরে দেখা যায়, ব্রয়লার মুরগি বিক্রি হচ্ছে ২০০-২২০ টাকা কেজি। সোনালি ৩০০-৩৫০ টাকা। গরুর গোশতের কেজি ৮০০ টাকা ও খাসির গোশত ১১০০ টাকা। ডিম বিক্রি হচ্ছে ৪০ টাকা হালি।

 

রাজধানীর কারওয়ান বাজারের মুদি দোকানদার মো. আলিম বলেন, সরবরাহ ভালো থাকায় পেঁয়াজের দাম কমেছে। তবে, আলুর দাম বাড়তির দিকে। এ সময় তিনি শঙ্কা প্রকাশ করেন, দাম আরো বাড়াতে পারে।

 

 

কারওয়ান বাজারে বাজার করতে আসা শফিকুল ইসলাম বলেন, আলুর দাম বাড়তির দিকে। এছাড়া, সবজি ও মাছের দাম আগের মতোই আছে।

জনপ্রিয় সংবাদ

বেড়েছে আলুর দাম, কমেছে পেঁয়াজের ঝাঁজ

আপডেট সময় : ০৭:৩২:৩৬ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ৩১ মার্চ ২০২৪

 

 

সপ্তাহের ব্যবধানে রাজধানীতে আলুর দাম কেজিতে ৫ থেকে ৭ টাকা বেড়েছে। গতকাল শনিবার রাজধানীর বেশ কয়েকটি কাঁচাবাজার ঘুরে দেখা যায়, প্রতি কেজি আলু বিক্রি হচ্ছে ৪০-৪২ টাকায়। সপ্তাহখানেক আগেও যা ছিল ৩৫ টাকা তবে, উৎপাদন ও সরবরাহ ভালো থাকায় পেঁয়াজের দাম কমেছে। প্রতি কেজি পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ৫৫ থেকে ৬০ টাকায়, যা সপ্তাহখানেক আগেও ছিল ১০০ থেকে ১১০ টাকা।

 

 

বিক্রেতারা বলছেন, মুদি বাজারে আলু ব্যতীত অন্যান্য পণ্যের দাম স্থিতিশীল রয়েছে। এ সময় তারা শঙ্কা প্রকাশ করেন, আলুর দাম আরো বাড়তে পারে।
সবজি বাজার ঘুরে দেখা গেছে, বেগুন প্রতি কেজি ৬০ টাকা, করোলা ৮০ টাকা, পেঁপে ৪০ টাকা, কচুর লতি ৮০ টাকা, গাজর ৪০ টাকা, শিম ৪০ টাকা, কাঁচামরিচ ১০০ টাকা, প্রতি পিস লাউ ৫০ টাকা, বাঁধাকপি ৫০ টাকা, ফুলকপি ৫০ টাকা, টমেটো ৫০ টাকা, চিচিঙ্গা ৫০ টাকা, শসা ৬০ টাকা, বরবটি ৬০ টাকা, ঢেঁড়স ৬০ টাকা, পটল ৬০ টাকা ও কুমড়া ৩০ টাকা ফাইল বিক্রি হচ্ছে।

 

মাছের বাজার ঘুরে দেখা যায়, চাষের পাঙাশ প্রতি কেজি ২০০ থেকে ২২০ টাকা, তেলাপিয়া ২২০ টাকা, চাষের শিং ৪৮০ থেকে ৫০০ টাকা, রুই মানভেদে ২৪০-৪০০ টাকা, চাষের কই ২৫০ টাকা, পাবদা মানভেদে ৪০০-৪৫০ টাকা, চিংড়ি ৮০০-১০০০ টাকা, কাতলা ৫০০-৬০০ টাকা, নলা ২০০ টাকা, টাটকিনি ২০০ টাকা ও সরপুঁটি বিক্রি হচ্ছে ২০০ টাকা কেজি দরে।

 

গোশতের বাজার ঘুরে দেখা যায়, ব্রয়লার মুরগি বিক্রি হচ্ছে ২০০-২২০ টাকা কেজি। সোনালি ৩০০-৩৫০ টাকা। গরুর গোশতের কেজি ৮০০ টাকা ও খাসির গোশত ১১০০ টাকা। ডিম বিক্রি হচ্ছে ৪০ টাকা হালি।

 

রাজধানীর কারওয়ান বাজারের মুদি দোকানদার মো. আলিম বলেন, সরবরাহ ভালো থাকায় পেঁয়াজের দাম কমেছে। তবে, আলুর দাম বাড়তির দিকে। এ সময় তিনি শঙ্কা প্রকাশ করেন, দাম আরো বাড়াতে পারে।

 

 

কারওয়ান বাজারে বাজার করতে আসা শফিকুল ইসলাম বলেন, আলুর দাম বাড়তির দিকে। এছাড়া, সবজি ও মাছের দাম আগের মতোই আছে।