০৬:৩৩ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৬ জুলাই ২০২৪, ১ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

পাবনায় পৌর কাউন্সিলকে মিথ্যা মামলায় ফাঁসানোর প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন

পাবনা প্রতিনিধি

নিজের মামাদের সঙ্গে সম্পত্তি নিয়ে বিরোধ এবং রাজনৈতিক প্রতিহিংসার মুখে চুরির অভিযোগে মিথ্যা মামলায় ফাঁসানোর প্রতিবাদে পাবনার সুজানগর পৌরসভার কাউন্সিলর জায়দুল হক জনি।
মঙ্গলবার (৩ অক্টোবর) দুপুরে পাবনা প্রেসক্লাব মিলনায়তনে এক সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে জায়দুল হক জনি বলেন, তিনি সুজানগর পৌরসভার ৩ নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর, মুক্তিযোদ্ধার সংসদ সন্তান কমান্ড, সুজানগর পৌর শাখার সাধারণ সম্পাদক। তার বড় মামা মৃত আব্দুস সালাম স্বপরিবারে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত হওয়ার পর মেজ মামা আব্দুর সবুর রাজা কোটি কোটি টাকার সম্পত্তি ভোগদখল করতে থাকেন। পরবর্তীতে অন্যান্য ভাই-বোন মৃত বড় ভাইয়ের সম্পত্তির ভাগ চাইলে বিরোধ শুরু হয়। ওয়ারিশ সূত্রে কাউকে পাওনা না দিয়ে নানা অপকৌশল শুরু করেন মেজ মামা আব্দুর সবুর রাজা। গত ৯ আগস্ট মধ্যরাতে মেজ মামা আব্দুর সবুর রাজা বলেন, বাড়িঘর ভেঙা হয়েছে। বাড়ির ফ্রিজ, এসি, জেনেটার, পানির পাম্প ও জমিজমার দলিলসহ জিনিসপত্রগুলো আমার বাড়িতে রাখতে চান। আমি সরল মনে মামার কথায় বিশ্বাস করে সেগুলো রেখেছিলাম। কিন্তু ১৩ আগস্ট থানায় সেইসব মালামাল চুরি দেখিয়ে মিথ্যা মামলা দিয়ে আমাকে ফাঁসানো হয় এবং গ্রেফতার করানো হয়।
তিনি আরো বলেন, ‘পুলিশ আমাকে থানায় নেয়ার পর মেজ মামা আব্দুর সবুর রাজা আমাকে প্রস্তাব দেন যে ‘মালামালগুলো আমার ছোট মামা চুরি করে আমার বাড়িতে রেখেছে’ এমনটা বললে আমাকে ছেড়ে দেওয়া হবে। কিন্তু আমি অস্বীকার করায় আমাকে সেই মালামালের চুরির মামলা দিয়ে ফাঁসানো হয়। আমার মেজ মামা আমার রাজনৈতিক প্রতিপক্ষের সঙ্গে হাত মিলিয়ে আমাকে মিথ্যা ও ষড়যন্ত্রমূলক মামলা ফাঁসিয়ে দিয়েছে। আমি এই মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার এবং ষড়যন্ত্রমূলক ঘটনার বিচার চাই।
সংবাদ সম্মেলনে ভুক্তভোগীর ছোট মামা রেজয়ান খোকন ও শফিকুল ইসলাম শফিসহ বিভিন্ন আত্মীয়-স্বজনরা উপস্থিত ছিলেন।
এব্যাপারে অভিযুক্ত আব্দুর সবুর রাজার যোগাযোগ করলে তিনি কোন মন্তব্য করতে রাজি হননি। ফলে তার বক্তব্য জানা যায়নি।

ইবির বঙ্গবন্ধু হলের পকেট গেট বন্ধ করে দিল প্রশাসন 

পাবনায় পৌর কাউন্সিলকে মিথ্যা মামলায় ফাঁসানোর প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন

আপডেট সময় : ০৪:০৬:৪৫ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ৩ অক্টোবর ২০২৩

পাবনা প্রতিনিধি

নিজের মামাদের সঙ্গে সম্পত্তি নিয়ে বিরোধ এবং রাজনৈতিক প্রতিহিংসার মুখে চুরির অভিযোগে মিথ্যা মামলায় ফাঁসানোর প্রতিবাদে পাবনার সুজানগর পৌরসভার কাউন্সিলর জায়দুল হক জনি।
মঙ্গলবার (৩ অক্টোবর) দুপুরে পাবনা প্রেসক্লাব মিলনায়তনে এক সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে জায়দুল হক জনি বলেন, তিনি সুজানগর পৌরসভার ৩ নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর, মুক্তিযোদ্ধার সংসদ সন্তান কমান্ড, সুজানগর পৌর শাখার সাধারণ সম্পাদক। তার বড় মামা মৃত আব্দুস সালাম স্বপরিবারে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত হওয়ার পর মেজ মামা আব্দুর সবুর রাজা কোটি কোটি টাকার সম্পত্তি ভোগদখল করতে থাকেন। পরবর্তীতে অন্যান্য ভাই-বোন মৃত বড় ভাইয়ের সম্পত্তির ভাগ চাইলে বিরোধ শুরু হয়। ওয়ারিশ সূত্রে কাউকে পাওনা না দিয়ে নানা অপকৌশল শুরু করেন মেজ মামা আব্দুর সবুর রাজা। গত ৯ আগস্ট মধ্যরাতে মেজ মামা আব্দুর সবুর রাজা বলেন, বাড়িঘর ভেঙা হয়েছে। বাড়ির ফ্রিজ, এসি, জেনেটার, পানির পাম্প ও জমিজমার দলিলসহ জিনিসপত্রগুলো আমার বাড়িতে রাখতে চান। আমি সরল মনে মামার কথায় বিশ্বাস করে সেগুলো রেখেছিলাম। কিন্তু ১৩ আগস্ট থানায় সেইসব মালামাল চুরি দেখিয়ে মিথ্যা মামলা দিয়ে আমাকে ফাঁসানো হয় এবং গ্রেফতার করানো হয়।
তিনি আরো বলেন, ‘পুলিশ আমাকে থানায় নেয়ার পর মেজ মামা আব্দুর সবুর রাজা আমাকে প্রস্তাব দেন যে ‘মালামালগুলো আমার ছোট মামা চুরি করে আমার বাড়িতে রেখেছে’ এমনটা বললে আমাকে ছেড়ে দেওয়া হবে। কিন্তু আমি অস্বীকার করায় আমাকে সেই মালামালের চুরির মামলা দিয়ে ফাঁসানো হয়। আমার মেজ মামা আমার রাজনৈতিক প্রতিপক্ষের সঙ্গে হাত মিলিয়ে আমাকে মিথ্যা ও ষড়যন্ত্রমূলক মামলা ফাঁসিয়ে দিয়েছে। আমি এই মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার এবং ষড়যন্ত্রমূলক ঘটনার বিচার চাই।
সংবাদ সম্মেলনে ভুক্তভোগীর ছোট মামা রেজয়ান খোকন ও শফিকুল ইসলাম শফিসহ বিভিন্ন আত্মীয়-স্বজনরা উপস্থিত ছিলেন।
এব্যাপারে অভিযুক্ত আব্দুর সবুর রাজার যোগাযোগ করলে তিনি কোন মন্তব্য করতে রাজি হননি। ফলে তার বক্তব্য জানা যায়নি।