১১:৫৩ অপরাহ্ন, বুধবার, ১২ জুন ২০২৪, ২৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

পতাকাবাহী গাড়িতে চেপে নড়াইলে হুইপ মাশরাফী

জাতীয় সংসদের হুইপ হয়ে লাল সবুজের পতাকাবাহী গাড়িতে চেপে চিরচেনা চিত্রা পাড়ের শহর নড়াইলে এসেছেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের যুব ও ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক নড়াইল-২ আসনের সংসদ সদস্য মাশরাফি বিন মুর্তজা।
বৃহস্পতিবার (১ ফেব্রুয়ারি) হুইপ নির্বাচিত হওয়ার পর প্রথমবারের মত নড়াইলে এসে সাংবাদিকদের সামনে নিজের এসব অনুভূতি প্রকাশ করেন মাশরাফী।
এ সময়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নে মাশরাফী বলেন, প্রধানমন্ত্রী আমাকে হুইপ হিসাবে নিয়োগ দিয়েছেন, আমার সর্বোচ্চটুকু দিয়ে চেষ্টা করবো যেন দায়িত্বটা ঠিক মত পালন করতে পারি। সেই সঙ্গে এই জনপদের মানুষকে ধন্যবাদ জানাই, তাদের ভালবাসাতেই আমি এ পর্যন্ত আসতে পেরেছি। কাজের মাধ্যম দিয়েই নড়াইলের মানুষের সমস্যার সমাধান করে আস্থার প্রতিদান দিবো ইনশাআল্লাহ।
নড়াইলের মেগা প্রকল্পগুলো বাস্তবায়নে হুইপ মাশরাফী বেশি সুবিধা পাবে কি না? এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, বিষয়টা আসলে তেমন নয়। এই জনপদের মানুষের জীবনমান উন্নয়নের জন্য ইতোমধ্যে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বেশ কয়েকটি মেগা প্রকল্প দিয়ে দিয়েছেন। যেগুলো বাস্তবায়ন করা জরুরি। বিশ্বাস করি ইনশাআল্লাহ আগামী পাঁচ বছরের মধ্যে দৃশ্যমান হবে সেগুলো। আরও যা কিছু এলাকার মানুষের জন্য প্রয়োজন, সেগুলো নিয়ে কাজ করবো যেন ভবিষ্যতে সেগুলো বাস্তবায়িত হয়।
হুইপ নিযুক্ত হওয়ায় দায়িত্বও বেড়ে গেছে, সেক্ষেত্রে খেলার থেকে অবসরে গেলেন কি না? এমন প্রশ্নের জবাবে মাশরাফী বলেন, খেলা আমার প্যাশন সেটা সবসময় ই বলেছি। এই বিষয়টিতে আমার নিজের মত করেই সিদ্ধান্ত নিবো। তবে সেটা বলার সময় এখনো আসেনি।
এর আগে বৃহস্পতিবার সকালে তারকা ক্রিকেটার, আওয়ামী লীগের যুব ও ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক, সংসদের হুইপ ও নড়াইল-২ আসনের সংসদ সদস্য মাশরাফী বিন মোর্ত্তজা লাল সবুজের পতাকাবাহী গাড়িতে প্রথমবার নড়াইল সার্কিট হাউজে পৌঁছালে ফুলেল শুভেচ্ছা জানান জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ আশফাকুল হক চৌধুরী, জেলা পুলিশ সুপার মোহা. মেহেদী হাসানসহ প্রশাসনের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা। প্রটোকল অনুযায়ী, রাষ্ট্রীয় সালাম গ্রহণ শেষে প্রশাসনিক কর্মকর্তাদের সঙ্গে মতবিনিময় করেন।
পরে জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে রচিত ‘সমৃদ্ধির অগ্রযাত্রায় নড়াইল’ শীর্ষক বইয়ের মোড়ক উন্মোচন করে বঙ্গবন্ধুর মাজারে শ্রদ্ধা নিবেদনের উদ্দেশ্যে টুঙ্গিপাড়ায় যাত্রা করেন।
জনপ্রিয় সংবাদ

টিউশনের নামে প্রতারণার ফাঁদ

পতাকাবাহী গাড়িতে চেপে নড়াইলে হুইপ মাশরাফী

আপডেট সময় : ০৪:০৭:৫৭ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪
জাতীয় সংসদের হুইপ হয়ে লাল সবুজের পতাকাবাহী গাড়িতে চেপে চিরচেনা চিত্রা পাড়ের শহর নড়াইলে এসেছেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের যুব ও ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক নড়াইল-২ আসনের সংসদ সদস্য মাশরাফি বিন মুর্তজা।
বৃহস্পতিবার (১ ফেব্রুয়ারি) হুইপ নির্বাচিত হওয়ার পর প্রথমবারের মত নড়াইলে এসে সাংবাদিকদের সামনে নিজের এসব অনুভূতি প্রকাশ করেন মাশরাফী।
এ সময়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নে মাশরাফী বলেন, প্রধানমন্ত্রী আমাকে হুইপ হিসাবে নিয়োগ দিয়েছেন, আমার সর্বোচ্চটুকু দিয়ে চেষ্টা করবো যেন দায়িত্বটা ঠিক মত পালন করতে পারি। সেই সঙ্গে এই জনপদের মানুষকে ধন্যবাদ জানাই, তাদের ভালবাসাতেই আমি এ পর্যন্ত আসতে পেরেছি। কাজের মাধ্যম দিয়েই নড়াইলের মানুষের সমস্যার সমাধান করে আস্থার প্রতিদান দিবো ইনশাআল্লাহ।
নড়াইলের মেগা প্রকল্পগুলো বাস্তবায়নে হুইপ মাশরাফী বেশি সুবিধা পাবে কি না? এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, বিষয়টা আসলে তেমন নয়। এই জনপদের মানুষের জীবনমান উন্নয়নের জন্য ইতোমধ্যে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বেশ কয়েকটি মেগা প্রকল্প দিয়ে দিয়েছেন। যেগুলো বাস্তবায়ন করা জরুরি। বিশ্বাস করি ইনশাআল্লাহ আগামী পাঁচ বছরের মধ্যে দৃশ্যমান হবে সেগুলো। আরও যা কিছু এলাকার মানুষের জন্য প্রয়োজন, সেগুলো নিয়ে কাজ করবো যেন ভবিষ্যতে সেগুলো বাস্তবায়িত হয়।
হুইপ নিযুক্ত হওয়ায় দায়িত্বও বেড়ে গেছে, সেক্ষেত্রে খেলার থেকে অবসরে গেলেন কি না? এমন প্রশ্নের জবাবে মাশরাফী বলেন, খেলা আমার প্যাশন সেটা সবসময় ই বলেছি। এই বিষয়টিতে আমার নিজের মত করেই সিদ্ধান্ত নিবো। তবে সেটা বলার সময় এখনো আসেনি।
এর আগে বৃহস্পতিবার সকালে তারকা ক্রিকেটার, আওয়ামী লীগের যুব ও ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক, সংসদের হুইপ ও নড়াইল-২ আসনের সংসদ সদস্য মাশরাফী বিন মোর্ত্তজা লাল সবুজের পতাকাবাহী গাড়িতে প্রথমবার নড়াইল সার্কিট হাউজে পৌঁছালে ফুলেল শুভেচ্ছা জানান জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ আশফাকুল হক চৌধুরী, জেলা পুলিশ সুপার মোহা. মেহেদী হাসানসহ প্রশাসনের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা। প্রটোকল অনুযায়ী, রাষ্ট্রীয় সালাম গ্রহণ শেষে প্রশাসনিক কর্মকর্তাদের সঙ্গে মতবিনিময় করেন।
পরে জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে রচিত ‘সমৃদ্ধির অগ্রযাত্রায় নড়াইল’ শীর্ষক বইয়ের মোড়ক উন্মোচন করে বঙ্গবন্ধুর মাজারে শ্রদ্ধা নিবেদনের উদ্দেশ্যে টুঙ্গিপাড়ায় যাত্রা করেন।