১০:৩৯ অপরাহ্ন, শনিবার, ০২ মার্চ ২০২৪, ১৯ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

ধর্ষণের ঘটনায় জাবিতে তদন্ত কমিটি গঠন 

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে (জাবি) ধর্ষণের ঘটনাকে কেন্দ্র করে ১৫ কার্যদিবসের তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।
রবিবার (৪ ফেব্রুয়ারি) সন্ধ্যা ৬ টায় সিন্ডিকেট মিটিং শেষে রেজিস্ট্রার ভবনের সামনে প্রেস ব্রিফিং করেন উপাচার্য নুরুল আলম।
প্রেস ব্রিফিং এ সিন্ডিকেটের সিদ্ধান্ত জানানো হয়। সিদ্ধান্তগুলো হলো-
প্রক্টরিয়াল বডির প্রাথমিক প্রতিবেদন গ্রহণ করা।
১.প্রচলিত আইন অনুযায়ী মামলা করার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়েছে।
২.মোস্তাফিজের সনদ স্থগিত করা হলো, ক্যাম্পাসে অবাঞ্ছিত ঘোষণা করা হলো।
৩.মুরাদকে সাময়িক বহিষ্কার ও সনদ স্থগিত করা হলো।
৪.শাহ পরান সনদ স্থগিত করা হলো।
৫. সাব্বির আহমেদ সাগর, সাময়িক বরখাস্ত ও সনদ প্রদান স্থগিত করা হলো।
৬.এ এস এম মোস্তফা মনোয়ার সিদ্দিকী, সাময়িক বহিষ্কার ও সনদ স্থগিত করা হলো।
৭. হাসান সনদ স্থগিত ও ক্যাম্পাসে অবাঞ্ছিত ঘোষণা করা হলো।
৮. প্রফেসর ড অজিত কুমার মজুমদার কে সভাপতি করে তদন্ত কমিটি, সদস্য, সাইদুর রহমান লোক প্রশাসন বিভাগ, আফসানা হক নগর ও অঞ্চল পরিকল্পনা বিভাগ মাহতাবুজ্জাহিদ সদস্য সচিব। ১৫ কার্যদিবসের মধ্যে রিপোর্ট প্রদান করতে বলা হলো।
৯. সকল অছাত্রদের ৫ দিনের মধ্যে হল ত্যাগের বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হবে।
১০.সকল ভাসমান দোকান তুলে দেয়ার জন্য নিরাপত্তা ও স্টেট কে নির্দেশ দেয়া হলো।
১১.অবৈধ অটো রিকশা চলাচল বন্ধ করা হলো।
সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের (জাবি) মীর মশাররফ হোসেন হলে স্বামীকে আটকে রেখে স্ত্রীকে দলবদ্ধ ধর্ষণের অভিযোগে করা মামলায় ছাত্রলীগ নেতা মোস্তাফিজুরসহ চারজনের তিনদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত। রিমান্ডপ্রাপ্ত অন্য আসামিরা হলেন- সাব্বির হাসান, সাগর সিদ্দিক ও হাসানুজ্জামান।
রোববার (৪ ফেব্রুয়ারি) আসামিদের আদালতে হাজির করে পুলিশ। এরপর সুষ্ঠু তদন্তের স্বার্থে তাদের সাতদিনের রিমান্ড আবেদন করেন মামলার তদন্ত কর্মকর্তা আশুলিয়া থানার উপ-পরিদর্শক মিজানুর রহমান। এ বিষয়ে শুনানি শেষে আসামিদের তিনদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন ঢাকার সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট রাবেয়া বেগমের আদালত।

ধর্ষণের ঘটনায় জাবিতে তদন্ত কমিটি গঠন 

আপডেট সময় : ০৭:১২:১৭ অপরাহ্ন, রবিবার, ৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৪
জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে (জাবি) ধর্ষণের ঘটনাকে কেন্দ্র করে ১৫ কার্যদিবসের তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।
রবিবার (৪ ফেব্রুয়ারি) সন্ধ্যা ৬ টায় সিন্ডিকেট মিটিং শেষে রেজিস্ট্রার ভবনের সামনে প্রেস ব্রিফিং করেন উপাচার্য নুরুল আলম।
প্রেস ব্রিফিং এ সিন্ডিকেটের সিদ্ধান্ত জানানো হয়। সিদ্ধান্তগুলো হলো-
প্রক্টরিয়াল বডির প্রাথমিক প্রতিবেদন গ্রহণ করা।
১.প্রচলিত আইন অনুযায়ী মামলা করার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়েছে।
২.মোস্তাফিজের সনদ স্থগিত করা হলো, ক্যাম্পাসে অবাঞ্ছিত ঘোষণা করা হলো।
৩.মুরাদকে সাময়িক বহিষ্কার ও সনদ স্থগিত করা হলো।
৪.শাহ পরান সনদ স্থগিত করা হলো।
৫. সাব্বির আহমেদ সাগর, সাময়িক বরখাস্ত ও সনদ প্রদান স্থগিত করা হলো।
৬.এ এস এম মোস্তফা মনোয়ার সিদ্দিকী, সাময়িক বহিষ্কার ও সনদ স্থগিত করা হলো।
৭. হাসান সনদ স্থগিত ও ক্যাম্পাসে অবাঞ্ছিত ঘোষণা করা হলো।
৮. প্রফেসর ড অজিত কুমার মজুমদার কে সভাপতি করে তদন্ত কমিটি, সদস্য, সাইদুর রহমান লোক প্রশাসন বিভাগ, আফসানা হক নগর ও অঞ্চল পরিকল্পনা বিভাগ মাহতাবুজ্জাহিদ সদস্য সচিব। ১৫ কার্যদিবসের মধ্যে রিপোর্ট প্রদান করতে বলা হলো।
৯. সকল অছাত্রদের ৫ দিনের মধ্যে হল ত্যাগের বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হবে।
১০.সকল ভাসমান দোকান তুলে দেয়ার জন্য নিরাপত্তা ও স্টেট কে নির্দেশ দেয়া হলো।
১১.অবৈধ অটো রিকশা চলাচল বন্ধ করা হলো।
সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের (জাবি) মীর মশাররফ হোসেন হলে স্বামীকে আটকে রেখে স্ত্রীকে দলবদ্ধ ধর্ষণের অভিযোগে করা মামলায় ছাত্রলীগ নেতা মোস্তাফিজুরসহ চারজনের তিনদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত। রিমান্ডপ্রাপ্ত অন্য আসামিরা হলেন- সাব্বির হাসান, সাগর সিদ্দিক ও হাসানুজ্জামান।
রোববার (৪ ফেব্রুয়ারি) আসামিদের আদালতে হাজির করে পুলিশ। এরপর সুষ্ঠু তদন্তের স্বার্থে তাদের সাতদিনের রিমান্ড আবেদন করেন মামলার তদন্ত কর্মকর্তা আশুলিয়া থানার উপ-পরিদর্শক মিজানুর রহমান। এ বিষয়ে শুনানি শেষে আসামিদের তিনদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন ঢাকার সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট রাবেয়া বেগমের আদালত।