১২:১৫ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৩ জুন ২০২৪, ২৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ফেনীতে ভারতীয় শাড়ি-থ্রীপিছসহ কার্ভাটভ্যান আটক

ফেনীর পরশুরামে বিপুল পরিমান ভারতীয় শাড়ি-থ্রীপিছসহ একটি কার্ভাটভ্যান আটক করেছে পুলিশ। এর মধ্যে ২৫টি  বান্ডিলে ১৭৬৬ পিছ শাড়ি, ৯ বান্ডিলটি বান্ডিলে ৫২৪ পিছ থ্রী পিছ ও ২টি বান্ডিলে  ১৮৯ পিছ বেবী থ্রী পিছসহ মোট ২৪৭৯ পিছ কাপড় আটক করা হয়েছে।
আজ রোববার (১১ ফেব্রুয়ারি) রাত ৮ টার দিকে এ ঘটনায় পুলিশ বাদী হয়ে অজ্ঞাতনামা আসামি করে মামলা দায়ের করেছে। শাড়ীগুলো গণনা শেষে পরশুরাম থানা পুলিশের পক্ষ থেকে এসব তথ্য জানানো হয়। এর আগে শনিবার(১০ ফেব্রুয়ারি) রাতে ওই উপজেলার কোলাপাড়া এলাকা থেকে তাদের আটক করা হয়।
জানা যায়,পরশুরাম থানা পুলিশের একটি টহল দল গোপন সংবাদের ভিত্তিতে খবর পেয়ে ওই স্থানে অভিযান চালিয়ে  ভারতীয় শাড়ি কাপড় সহ কার্ভাটভ্যানটি আটক করে। এসময় পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে আরও একটি কার্ভাটভ্যান ভারতীয় পণ্য নিয়ে ফেনী শহরের দিকে পালিয়ে যায়।
পুলিশের দাবি, দীর্ঘদিন ধরে বড় একটি সিন্ডিকেট ভারত থেকে চোরাই পথে লাখ লাখ টাকা ভারতীয় কাপড়, চিনিসহ বিভিন্ন ধরণের পণ্য দেশে এনে ফেনীসহ রাজধানী ঢাকা ও বন্দরনগরী চট্রগ্রাম নিয়ে যান।
স্থানীয়রা জানায়, এসব চোরাকারবারিরা ইতিপূর্বেও এ কাজে পিকআপ গাড়ি ব্যবহার করতো। বর্তমানে নিরাপদ পরিবহন হিসেবে কার্ভাটভ্যানকে বেছে নিয়েছে।
তাঁদের দাবি, এ উপজেলার সীমান্তবর্তী ১০টি এলাকা দিয়ে অবৈধভাবে প্রতিদিন মাদক, শাড়ি কাপড়, চিনি, পেঁয়াজ, যৌন উত্তেজক ঔষধ. টায়ারসহ বিপুল পরিমান ভারতীয় পণ্য দেশে ঢুকছে।
পরশুরাম থানার ওসি মো.শাহাদাত হোসেন বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান,উদ্ধারকৃত শাড়ী, থ্রী পিছসহ কার্ভাটভ্যানটি থানা হেফাজতে রয়েছে।এ ঘটনায় পুলিশ বাদী হয়ে অজ্ঞাতনামা আসামি করে মামলা দায়ের করা হয়েছে।
স/মিফা
জনপ্রিয় সংবাদ

টিউশনের নামে প্রতারণার ফাঁদ

ফেনীতে ভারতীয় শাড়ি-থ্রীপিছসহ কার্ভাটভ্যান আটক

আপডেট সময় : ০৯:৩৮:২৭ অপরাহ্ন, রবিবার, ১১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪
ফেনীর পরশুরামে বিপুল পরিমান ভারতীয় শাড়ি-থ্রীপিছসহ একটি কার্ভাটভ্যান আটক করেছে পুলিশ। এর মধ্যে ২৫টি  বান্ডিলে ১৭৬৬ পিছ শাড়ি, ৯ বান্ডিলটি বান্ডিলে ৫২৪ পিছ থ্রী পিছ ও ২টি বান্ডিলে  ১৮৯ পিছ বেবী থ্রী পিছসহ মোট ২৪৭৯ পিছ কাপড় আটক করা হয়েছে।
আজ রোববার (১১ ফেব্রুয়ারি) রাত ৮ টার দিকে এ ঘটনায় পুলিশ বাদী হয়ে অজ্ঞাতনামা আসামি করে মামলা দায়ের করেছে। শাড়ীগুলো গণনা শেষে পরশুরাম থানা পুলিশের পক্ষ থেকে এসব তথ্য জানানো হয়। এর আগে শনিবার(১০ ফেব্রুয়ারি) রাতে ওই উপজেলার কোলাপাড়া এলাকা থেকে তাদের আটক করা হয়।
জানা যায়,পরশুরাম থানা পুলিশের একটি টহল দল গোপন সংবাদের ভিত্তিতে খবর পেয়ে ওই স্থানে অভিযান চালিয়ে  ভারতীয় শাড়ি কাপড় সহ কার্ভাটভ্যানটি আটক করে। এসময় পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে আরও একটি কার্ভাটভ্যান ভারতীয় পণ্য নিয়ে ফেনী শহরের দিকে পালিয়ে যায়।
পুলিশের দাবি, দীর্ঘদিন ধরে বড় একটি সিন্ডিকেট ভারত থেকে চোরাই পথে লাখ লাখ টাকা ভারতীয় কাপড়, চিনিসহ বিভিন্ন ধরণের পণ্য দেশে এনে ফেনীসহ রাজধানী ঢাকা ও বন্দরনগরী চট্রগ্রাম নিয়ে যান।
স্থানীয়রা জানায়, এসব চোরাকারবারিরা ইতিপূর্বেও এ কাজে পিকআপ গাড়ি ব্যবহার করতো। বর্তমানে নিরাপদ পরিবহন হিসেবে কার্ভাটভ্যানকে বেছে নিয়েছে।
তাঁদের দাবি, এ উপজেলার সীমান্তবর্তী ১০টি এলাকা দিয়ে অবৈধভাবে প্রতিদিন মাদক, শাড়ি কাপড়, চিনি, পেঁয়াজ, যৌন উত্তেজক ঔষধ. টায়ারসহ বিপুল পরিমান ভারতীয় পণ্য দেশে ঢুকছে।
পরশুরাম থানার ওসি মো.শাহাদাত হোসেন বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান,উদ্ধারকৃত শাড়ী, থ্রী পিছসহ কার্ভাটভ্যানটি থানা হেফাজতে রয়েছে।এ ঘটনায় পুলিশ বাদী হয়ে অজ্ঞাতনামা আসামি করে মামলা দায়ের করা হয়েছে।
স/মিফা