০৫:১১ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২২ এপ্রিল ২০২৪, ৮ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ইমিগ্রেশনের সার্ভারের ত্রুটির কারনে আখাউড়া স্থলবন্দর দিয়ে যাত্রী পারা পার বন্ধ রয়েছে

ভারতের আগরতলা ইমিগ্রেশনের সার্ভারে ত্রুটির কারণে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়া স্থলবন্দর দিয়ে যাত্রী পারাপার বন্ধ রয়েছে। মঙ্গলবার (০২ এপ্রিল) সকাল ৮টা থেকে এই বন্দর দিয়ে ভারতগামী যাত্রী পারাপার বন্ধ রয়েছে।
এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত ইমিগ্রেশনে অন্তত ১০০ জন যাত্রী আটকা পড়েছেন।
আখাউড়া স্থলবন্দর ইমিগ্রেশন পুলিশের সহকারী উপ-পরিদর্শক দেওয়ান মোরশেদুল হক বলেন সকালে ১২ জন যাত্রী ভারতে প্রবেশ করার পর আগরতলা ইমিগ্রেশন কর্তৃপক্ষ যাত্রী পারাপার স্থগিত করতে বলে। বিএসএফের মাধ্যমে আমাদেরকে জানায়, যেন আর যাত্রী না পাঠানো হয়।
তিনি আরও বলেন, সকালে হঠাৎ করেই আগরতলা ইমিগ্রেশনের সার্ভারে ত্রুটি দেখা দেয়। ত্রুটি সারানোর জন্য কারিগরি টিমকে খবর দেওয়া হয়েছে বলেও জানানো হয়েছে। তবে কতক্ষণ নাগাদ যাত্রী পারাপার স্বাভাবিক হবে সে সম্পর্কে কিছু জানানো হয়নি।
স্থলপথে উত্তরপূর্ব ভারতের সঙ্গে বাংলাদেশের যোগাযোগের অন্যতম মাধ্যম আখাউড়া স্থলবন্দর। প্রতিদিন এ বন্দর দিয়ে প্রায় ৮-৯ শত যাত্রী পারাপার হয়ে থাকে।

জনপ্রিয় সংবাদ

ইমিগ্রেশনের সার্ভারের ত্রুটির কারনে আখাউড়া স্থলবন্দর দিয়ে যাত্রী পারা পার বন্ধ রয়েছে

আপডেট সময় : ১২:৫০:১৪ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২ এপ্রিল ২০২৪

ভারতের আগরতলা ইমিগ্রেশনের সার্ভারে ত্রুটির কারণে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়া স্থলবন্দর দিয়ে যাত্রী পারাপার বন্ধ রয়েছে। মঙ্গলবার (০২ এপ্রিল) সকাল ৮টা থেকে এই বন্দর দিয়ে ভারতগামী যাত্রী পারাপার বন্ধ রয়েছে।
এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত ইমিগ্রেশনে অন্তত ১০০ জন যাত্রী আটকা পড়েছেন।
আখাউড়া স্থলবন্দর ইমিগ্রেশন পুলিশের সহকারী উপ-পরিদর্শক দেওয়ান মোরশেদুল হক বলেন সকালে ১২ জন যাত্রী ভারতে প্রবেশ করার পর আগরতলা ইমিগ্রেশন কর্তৃপক্ষ যাত্রী পারাপার স্থগিত করতে বলে। বিএসএফের মাধ্যমে আমাদেরকে জানায়, যেন আর যাত্রী না পাঠানো হয়।
তিনি আরও বলেন, সকালে হঠাৎ করেই আগরতলা ইমিগ্রেশনের সার্ভারে ত্রুটি দেখা দেয়। ত্রুটি সারানোর জন্য কারিগরি টিমকে খবর দেওয়া হয়েছে বলেও জানানো হয়েছে। তবে কতক্ষণ নাগাদ যাত্রী পারাপার স্বাভাবিক হবে সে সম্পর্কে কিছু জানানো হয়নি।
স্থলপথে উত্তরপূর্ব ভারতের সঙ্গে বাংলাদেশের যোগাযোগের অন্যতম মাধ্যম আখাউড়া স্থলবন্দর। প্রতিদিন এ বন্দর দিয়ে প্রায় ৮-৯ শত যাত্রী পারাপার হয়ে থাকে।