০৮:০৪ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৪ এপ্রিল ২০২৪, ১ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

উপজেলা নির্বাচনঃ নালিতাবাড়ীতে বিএনপির একক প্রার্থীর সম্ভাবনা ও অন্যদিকে আওয়ামী লীগের চার

শেরপুর জেলার সীমান্তবর্তী নালিতাবাড়ী উপজেলাকে একটি ‘মডেল ও স্মার্ট উপজেলায়’ রুপান্তরিত করার লক্ষ্যে আসন্ন নালিতাবাড়ী উপজেলা পরিষদ নির্বাচনকে সামনে রেখে তৃণমূল পর্যায়ে ভোটারদের বাড়ীর দরজায় কড়া নাড়ছেন চেয়ারম্যান প্রার্থীরা। দলীয় প্রতীক না থাকাতে প্রত্যেক প্রার্থীর মাঝে একটি আশানুরূপ ভাব বিরাজ করছে।সেই দিক থেকে আওয়ামী লীগ থেকে প্রার্থী ৪জন ও অন্যদিকে বিএনপির ১ জন।  প্রার্থীরা হলেন বর্তমানে উপজেলা চেয়ারম্যান   মোকছেদুর রহমান লেবু, উপজেলা পরিষদের বর্তমান ভাইস চেয়ারম্যান হাজী মো. আমিনুল ইসলাম, নালিতাবাড়ী উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক  হাজী মো: মোশারফ হোসেন, ও নালিতাবাড়ী উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি আছমত আরা আছমা ও বিএনপি শহর বিএনপির সাবেক আহ্বায়ক মোঃ আনোয়ার হোসেন।
মোকছেদুর রহমান লেবু নালিতাবাড়ী উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান হিসাবে নিজের জায়গায় থেকে গুছিয়ে নিয়েছেন মাঠ,  করেছেন উপজেলার বেশ কিছু উন্নয়ন। সবদিক বিবেচনা করে বলা যায় আসন্ন উপজেলা নির্বাচনে প্রার্থী হিসেবে নিজের শক্ত জায়গা তৈরি করে নিয়েছেন মোকছেদুর রহমান লেবু। হতেও পারে আবার নালিতাবাড়ী উপজেলা চেয়ারম্যান।
অপরদিকে বর্তমান উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান আমিনুল ইসলাম জানা যায় মহামারী করোনাকালীন সময়ে নালিতাবাড়ী উপজেলার নিম্ন আয়ের মানুষদের মাঝে প্রত্যেক এলাকায় ব্যাপক ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করেছেন। এলাকার শিক্ষা, সকল ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান, ক্রীড়া ও আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে দীর্ঘদিন ধরে কাজ করে যাচ্ছেন তিনি। তাই বলা যেতেই পারে আসন্ন উপজেলা নির্বাচনে প্রার্থী হিসেবে নিজের শক্ত জায়গা গুছিয়ে নিয়েছেন আমিনুল ইসলাম। তবে তার প্রচারণায় কিছু ভিন্নতা থাকায় সোশাল মিডিয়ায় অতোটা লক্ষ্য না করা গেলেও তৃণমূল পর্যায়ের মানুষদের নিকট ভালোই সাড়া পাওয়া যাচ্ছে তার।তাই বলা যায় সবকিছু ঠিকঠাক থাকলে বিজয়ের মালা পড়তে পারেন। ।
অপরদিকে শক্ত প্রার্থী হিসেবে অবস্থান হাজী মো: মোশারফ হোসেনের যিনি বর্তমান নালিতাবাড়ী উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন এবং গত উপজেলা নির্বাচনেও নৌকা প্রতীক নিয়ে উপজেলা নির্বাচনে অংশগ্রহন করলেও ঠিকমতো মাঠগুছাতে ব্যর্থ হয়েছিলেন তিনি। শেষ পর্যন্ত পরাজয় নিয়ে সন্তুষ্ট থাকতে হয়েছে তাকে । কিন্তু এবার সুন্দর ভাবেই মাঠ গুছিয়ে নিয়ে যাচ্ছেন তিনি। ভোটারদের দুয়ারে দুয়ারে দেখাচ্ছেন ভোটারদের নতুন স্বপ্ন নালিতাবাড়ী উপজেলাকে গড়ে তুলবে মডেল ও স্মার্ট উপজেলা হিসাবে। তাই বলা যায় সবকিছু ঠিকঠাক থাকলে বিজয়ের মালা পড়তে পারে হাজী মোশারফ হোসেন।
অপরদিকে প্রার্থী হিসেবে রয়েছেন নালিতাবাড়ী উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি আছমত আরা আছমা। সাবেক উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান, ভোটারদের মাঝে তার তেমন যোগাযোগ না থাকলেও আলোচনায় তিনিও একজন। অন্য সব প্রার্থীর মতো গোছাতে পারেনি নিজের শক্ত  জায়গাটুকু, তবে শেষ পর্যন্ত তিনি মাঠে থাকলে  ব্যতিক্রমী কিছু দেখা যেতেও পারে।
তবে অন্যদিকে আরেকজন প্রার্থী মোঃ আনোয়ার হোসেন। যিনি নালিতাবাড়ী শহর বিএনপির সাবেক আহ্বায়ক এবং সাবেক পৌরসভার মেয়র।কেন্দ্রীয় বিএনপির নির্দেশনা উপজেলা নির্বাচনে অংশগ্রহনের ব্যাপারে খোলাসা না করাতে তিনি মাঠে বিচ্ছিন্ন ভাবে প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছেন। কিন্তু শেষ সময় পর্যন্ত নির্বাচনে অংশগ্রহন করবে কি না তা এখনও সাধারণ জনগনের মনে প্রশ্ন থেকেই যাচ্ছে। তবে শেষ পর্যন্ত তিনি অংশগ্রহণ করলে থমকে থাকা বিএনপি নেতাকর্মী ও তৃণমূল পর্যায়ের বিএনপি সমর্থনকারীদের একক ভোটে নির্বাচিত হলেও হতে পারে। যেই জায়গায় আওয়ামী লীগের ভোট চারটি ভাগে ভাগ হচ্ছে। সেইক্ষেত্রে বিএনপির প্রার্থী হিসেবে অনেকটা এগিয়ে তিনি।
আগামী ২১মে দ্বিতীয় ধাপে অনুষ্ঠিত নালিতাবাড়ী উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে যেসব প্রার্থী অংশ নিয়েছেন তারা ইতোমধ্যে তৃণমূল পর্যায়ের মানুষের কাছে গিয়ে ভোট প্রার্থনা এবং দোয়া চাচ্ছেন। সকাল থেকে রাত পর্যন্ত বেশির ভাগ সময় পাড় করছেন নির্বাচনী প্রচারনায় । তৃণমূল  ভোটারদের দিচ্ছেন নানা প্রতিশ্রুতি। উপজেলার বিভিন্ন বাজারের চায়ের দোকান, হোটেল, গ্রাম, পাড়া মহল্লায় চলছে প্রার্থীদের নিয়ে আলোচনা। তাই সার্বিক দিক বিবেচনা করে বলা যায়  উপজেলা চেয়ারম্যান হিসাবে নতুন মুখ আসতেও পারে। তবে নির্বাচন হতে যাচ্ছে উৎসব মুখর।
জনপ্রিয় সংবাদ

উপজেলা নির্বাচনঃ নালিতাবাড়ীতে বিএনপির একক প্রার্থীর সম্ভাবনা ও অন্যদিকে আওয়ামী লীগের চার

আপডেট সময় : ০২:৪০:৫৪ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২ এপ্রিল ২০২৪
শেরপুর জেলার সীমান্তবর্তী নালিতাবাড়ী উপজেলাকে একটি ‘মডেল ও স্মার্ট উপজেলায়’ রুপান্তরিত করার লক্ষ্যে আসন্ন নালিতাবাড়ী উপজেলা পরিষদ নির্বাচনকে সামনে রেখে তৃণমূল পর্যায়ে ভোটারদের বাড়ীর দরজায় কড়া নাড়ছেন চেয়ারম্যান প্রার্থীরা। দলীয় প্রতীক না থাকাতে প্রত্যেক প্রার্থীর মাঝে একটি আশানুরূপ ভাব বিরাজ করছে।সেই দিক থেকে আওয়ামী লীগ থেকে প্রার্থী ৪জন ও অন্যদিকে বিএনপির ১ জন।  প্রার্থীরা হলেন বর্তমানে উপজেলা চেয়ারম্যান   মোকছেদুর রহমান লেবু, উপজেলা পরিষদের বর্তমান ভাইস চেয়ারম্যান হাজী মো. আমিনুল ইসলাম, নালিতাবাড়ী উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক  হাজী মো: মোশারফ হোসেন, ও নালিতাবাড়ী উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি আছমত আরা আছমা ও বিএনপি শহর বিএনপির সাবেক আহ্বায়ক মোঃ আনোয়ার হোসেন।
মোকছেদুর রহমান লেবু নালিতাবাড়ী উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান হিসাবে নিজের জায়গায় থেকে গুছিয়ে নিয়েছেন মাঠ,  করেছেন উপজেলার বেশ কিছু উন্নয়ন। সবদিক বিবেচনা করে বলা যায় আসন্ন উপজেলা নির্বাচনে প্রার্থী হিসেবে নিজের শক্ত জায়গা তৈরি করে নিয়েছেন মোকছেদুর রহমান লেবু। হতেও পারে আবার নালিতাবাড়ী উপজেলা চেয়ারম্যান।
অপরদিকে বর্তমান উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান আমিনুল ইসলাম জানা যায় মহামারী করোনাকালীন সময়ে নালিতাবাড়ী উপজেলার নিম্ন আয়ের মানুষদের মাঝে প্রত্যেক এলাকায় ব্যাপক ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করেছেন। এলাকার শিক্ষা, সকল ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান, ক্রীড়া ও আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে দীর্ঘদিন ধরে কাজ করে যাচ্ছেন তিনি। তাই বলা যেতেই পারে আসন্ন উপজেলা নির্বাচনে প্রার্থী হিসেবে নিজের শক্ত জায়গা গুছিয়ে নিয়েছেন আমিনুল ইসলাম। তবে তার প্রচারণায় কিছু ভিন্নতা থাকায় সোশাল মিডিয়ায় অতোটা লক্ষ্য না করা গেলেও তৃণমূল পর্যায়ের মানুষদের নিকট ভালোই সাড়া পাওয়া যাচ্ছে তার।তাই বলা যায় সবকিছু ঠিকঠাক থাকলে বিজয়ের মালা পড়তে পারেন। ।
অপরদিকে শক্ত প্রার্থী হিসেবে অবস্থান হাজী মো: মোশারফ হোসেনের যিনি বর্তমান নালিতাবাড়ী উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন এবং গত উপজেলা নির্বাচনেও নৌকা প্রতীক নিয়ে উপজেলা নির্বাচনে অংশগ্রহন করলেও ঠিকমতো মাঠগুছাতে ব্যর্থ হয়েছিলেন তিনি। শেষ পর্যন্ত পরাজয় নিয়ে সন্তুষ্ট থাকতে হয়েছে তাকে । কিন্তু এবার সুন্দর ভাবেই মাঠ গুছিয়ে নিয়ে যাচ্ছেন তিনি। ভোটারদের দুয়ারে দুয়ারে দেখাচ্ছেন ভোটারদের নতুন স্বপ্ন নালিতাবাড়ী উপজেলাকে গড়ে তুলবে মডেল ও স্মার্ট উপজেলা হিসাবে। তাই বলা যায় সবকিছু ঠিকঠাক থাকলে বিজয়ের মালা পড়তে পারে হাজী মোশারফ হোসেন।
অপরদিকে প্রার্থী হিসেবে রয়েছেন নালিতাবাড়ী উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি আছমত আরা আছমা। সাবেক উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান, ভোটারদের মাঝে তার তেমন যোগাযোগ না থাকলেও আলোচনায় তিনিও একজন। অন্য সব প্রার্থীর মতো গোছাতে পারেনি নিজের শক্ত  জায়গাটুকু, তবে শেষ পর্যন্ত তিনি মাঠে থাকলে  ব্যতিক্রমী কিছু দেখা যেতেও পারে।
তবে অন্যদিকে আরেকজন প্রার্থী মোঃ আনোয়ার হোসেন। যিনি নালিতাবাড়ী শহর বিএনপির সাবেক আহ্বায়ক এবং সাবেক পৌরসভার মেয়র।কেন্দ্রীয় বিএনপির নির্দেশনা উপজেলা নির্বাচনে অংশগ্রহনের ব্যাপারে খোলাসা না করাতে তিনি মাঠে বিচ্ছিন্ন ভাবে প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছেন। কিন্তু শেষ সময় পর্যন্ত নির্বাচনে অংশগ্রহন করবে কি না তা এখনও সাধারণ জনগনের মনে প্রশ্ন থেকেই যাচ্ছে। তবে শেষ পর্যন্ত তিনি অংশগ্রহণ করলে থমকে থাকা বিএনপি নেতাকর্মী ও তৃণমূল পর্যায়ের বিএনপি সমর্থনকারীদের একক ভোটে নির্বাচিত হলেও হতে পারে। যেই জায়গায় আওয়ামী লীগের ভোট চারটি ভাগে ভাগ হচ্ছে। সেইক্ষেত্রে বিএনপির প্রার্থী হিসেবে অনেকটা এগিয়ে তিনি।
আগামী ২১মে দ্বিতীয় ধাপে অনুষ্ঠিত নালিতাবাড়ী উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে যেসব প্রার্থী অংশ নিয়েছেন তারা ইতোমধ্যে তৃণমূল পর্যায়ের মানুষের কাছে গিয়ে ভোট প্রার্থনা এবং দোয়া চাচ্ছেন। সকাল থেকে রাত পর্যন্ত বেশির ভাগ সময় পাড় করছেন নির্বাচনী প্রচারনায় । তৃণমূল  ভোটারদের দিচ্ছেন নানা প্রতিশ্রুতি। উপজেলার বিভিন্ন বাজারের চায়ের দোকান, হোটেল, গ্রাম, পাড়া মহল্লায় চলছে প্রার্থীদের নিয়ে আলোচনা। তাই সার্বিক দিক বিবেচনা করে বলা যায়  উপজেলা চেয়ারম্যান হিসাবে নতুন মুখ আসতেও পারে। তবে নির্বাচন হতে যাচ্ছে উৎসব মুখর।