০৫:১৫ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২২ এপ্রিল ২০২৪, ৮ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

গেন্ডারিয়ায় দেড় হাজার পরিবার পেল ঈদ উপহার

 

পবিত্র ঈদুল ফিতর উপলক্ষে বৃহস্পতিবার দুঃস্থদের মাঝে বস্ত্র ও খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করেন ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) ৪৭ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর অ্যাডভোকেট সাহানা আক্তার।

 

আলহাজ সাইদুর রহমান সহিদ ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে ওয়ার্ডের ফরিদাবাদ লেন , হরিচরণ রায় রোড ,বাহাদুরপুর লেন ,লালমোহন পোদ্দার লেন , গেন্ডারিয়া, ডিআইটি প্লট ও শহীদনগর এলাকার বিভিন্ন পয়েন্টে ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করা হয়।

 

দেড় হাজারের বেশি পরিবারের মাঝে ঈদ সামগ্রী এবং ৬ হাজারের বেশী মানুষকে ঈদের পোষাক বিতরণ করেন কাউন্সিলর। খাদ্যদ্রব্যের মধ্যে ৫ কেজি চাল, ১ কেজি ডাল, ২ কেজি তেল, ১ কেজি চিনি ও ১ কেজি খেজুর এবং পোষাকের মধ্যে লুঙ্গী, শাড়ি ও থ্রি পিছ বিতরণ করা হয়েছে।

 

এডভোকেট সাহানা আক্তার গণমাধ্যমকে বলেন, ‘‌আলহাজ সাইদুর রহমান সহিদ ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে প্রতি বছরই আমরা রোজায় ও ঈদে ত্রান সামগ্রী বিতরণ করে থাকি। দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতির কারণে এবার নিম্ম আয়ের মানুষের জন্য রোজা ও ঈদ উপযাপন অনেক কষ্টের হয়ে পড়েছে। আমরা মানুষের কষ্ট লাঘবের জন্য চেষ্টা করে যাচ্ছি। এ প্রচেষ্টা অব্যাহত থাকবে।’

জনপ্রিয় সংবাদ

গেন্ডারিয়ায় দেড় হাজার পরিবার পেল ঈদ উপহার

আপডেট সময় : ০৯:১৬:৪৩ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৪ এপ্রিল ২০২৪

 

পবিত্র ঈদুল ফিতর উপলক্ষে বৃহস্পতিবার দুঃস্থদের মাঝে বস্ত্র ও খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করেন ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) ৪৭ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর অ্যাডভোকেট সাহানা আক্তার।

 

আলহাজ সাইদুর রহমান সহিদ ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে ওয়ার্ডের ফরিদাবাদ লেন , হরিচরণ রায় রোড ,বাহাদুরপুর লেন ,লালমোহন পোদ্দার লেন , গেন্ডারিয়া, ডিআইটি প্লট ও শহীদনগর এলাকার বিভিন্ন পয়েন্টে ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করা হয়।

 

দেড় হাজারের বেশি পরিবারের মাঝে ঈদ সামগ্রী এবং ৬ হাজারের বেশী মানুষকে ঈদের পোষাক বিতরণ করেন কাউন্সিলর। খাদ্যদ্রব্যের মধ্যে ৫ কেজি চাল, ১ কেজি ডাল, ২ কেজি তেল, ১ কেজি চিনি ও ১ কেজি খেজুর এবং পোষাকের মধ্যে লুঙ্গী, শাড়ি ও থ্রি পিছ বিতরণ করা হয়েছে।

 

এডভোকেট সাহানা আক্তার গণমাধ্যমকে বলেন, ‘‌আলহাজ সাইদুর রহমান সহিদ ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে প্রতি বছরই আমরা রোজায় ও ঈদে ত্রান সামগ্রী বিতরণ করে থাকি। দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতির কারণে এবার নিম্ম আয়ের মানুষের জন্য রোজা ও ঈদ উপযাপন অনেক কষ্টের হয়ে পড়েছে। আমরা মানুষের কষ্ট লাঘবের জন্য চেষ্টা করে যাচ্ছি। এ প্রচেষ্টা অব্যাহত থাকবে।’